Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯ , ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (40 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২১-২০১৩

‘পাকিস্তানের মনে রাখা উচিৎ এটা ১৯৭১ নয়’

মানোয়ার হোসেন


‘পাকিস্তানের মনে রাখা উচিৎ এটা ১৯৭১ নয়’

ওয়ালিউর রহমান। সাবেক পরারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব। রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাজ করেছেন ইতালি, যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশে। কূটনৈতিক পরিচয়ের বাইরেও তিনি একজন লেখক এবং গবেষক। বাংলাদেশের হয়ে জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এ প্রবীন কূটনৈতিক ১৯৪২ সালে যশোরে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতোকত্তোর ডিগ্রি লাভের পর ফেলোশিপ নিয়েছেন অক্সফোর্ডের ট্রিনিটি কলেজ থেকে।
 
দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে, বিশেষত জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর পাকিস্তানের পার্লামেন্টে গৃহীত নিন্দা ও শোক প্রস্তাব, বাংলাদেশের নির্বাচনী ইস্যুতে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক তৎপরতার নানা বিষয়ে তিনি কথা বলেছেন মানোয়ার হোসেনর সঙ্গে। সাক্ষাৎকারটির বিস্তারিত পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।
 
প্রতিবেদক: জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার ফাঁসির দণ্ডাদেশ কার্যকরের পর পাকিস্তান পার্লামেন্টে নিন্দা প্রস্তাব পাস, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিক্রিয়া, পাকিস্তানি হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠানো এবং দেশের বিভিন্ন স্তরের মানুষের মধ্যে পাকিস্তানবিরোধী প্রতিক্রিয়া, এই সামগ্রিক বিষয় নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কি?
 
ওয়ালিউর রহমান: বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ একটি সংবিধান রয়েছে এখানে। এই চেতনা অনুযায়ী সাম্প্রদায়িকতাহীন একটি দেশ গড়ার চেষ্টা চলছে। ধর্ম নিরপেক্ষতা এবং ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় থাকবে। বাংলাদেশের বিচারিক বিভাগ এবং আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে কাদের মোল্লার বিচার হয়েছে। সেখানে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে যে নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়েছে এটা অত্যন্ত নিন্দনীয়। পাকিস্তানের মনে রাখা উচিৎ এটা ২০১৩ সাল, ১৯৭১ নয়। নেছার আলীর চেষ্টায় তাদের পার্লামেন্টে যে বিল আনা হয়েছে তা ১৯৬১ সালের ভিয়েনা কনভেনশনের পরিপন্থি। পাকিস্তান নিজেই একটি ভঙ্গুর রাষ্ট্র। তাদের বেলুচিস্তানে সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেই। আর পেশোয়ারেতো সরকারের অস্তিত্বই নাই। সিন্ধুর ওপর তাদের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই বললেই চলে। তারা শুধু পাঞ্জাবকেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ফলত, তাদের পার্লামেন্টে এই নিন্দা বিল।
 
প্রতিবেদক: গণজাগরণ মঞ্চের পাকিস্তান হাইকমিশন ঘেরাও কর্মসূচি এবং পাকিস্তানের সঙ্গে সব কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার যে দাবি তা কতখানি যৌক্তিক? গণজাগরণ মঞ্চের এই দাবি কি সাধারণ মানুষেরও দাবি?
 
ওয়ালিউর: দেখুন, নতুন প্রজন্মকে আমি সালাম জানাই। দেশপ্রেম নিয়ে তাদের এই আবেগ ঠিক আছে। তারাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তবে একটি কথা মনে রাখতে হবে, আমরা আন্তর্জাতিকভাবে ভিয়েনা কনভেনশনের সদস্য। পাকিস্তানও যার সদস্য। এক্ষেত্রে পাকিস্তান ভিয়েনা কনভেনশনের শর্ত ভঙ্গ করেছে। আমরা করিনি। যুদ্ধাবস্থার মধ্যেও কূটনৈতিক সম্পর্ক চলে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত লন্ডনে ছিলেন। একইভাবে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত ছিলেন প্যারিসে। এটা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়েও ছিল।
 
প্রতিবেদক: আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যে প্রতিবাদ করেছে তার বাইরেও কি আরো কিছু করার ছিল?
 
ওয়ালিউর: মন্ত্রণালয় যা বলেছে, ঠিক বলেছে। দেশের মানুষের পক্ষে তারা বলেছে। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে মর্মাহত এ বিষয়ে বিএনপির নীরবতা নিয়ে।
 
প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ইস্যুতে সম্প্রতি মার্কিন সিনেটে শুনানির বিষয়টিকে কিভাবে দেখছেন?
 
ওয়ালিউর: মার্কিন সিনেট আর পাকিস্তান পার্লামেন্ট এক জিনিস নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একটি গণতান্ত্রিক দেশ। পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নেছার আলী, যিনি একজন আইএসআই এজেন্ট। আইএসআই নওয়াজ শরীফকে দিয়ে নেছার আলীকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করেছেন। ওদের ওইখানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
 
প্রতিবেদক: নির্বাচন ও জামায়াত ইস্যুতে জাতিসংঘ প্রধানের উদ্বেগ, অসন্তোষ ও তারানকোর বাংলাদেশ সফরকে কিভাবে মূল্যায়ন করবেন, বিশেষত কাদের মোল্লার দণ্ড কার্যকরে জাতিসংঘ ও ইইউ’র উদ্বেগের বিষয়টি?
 
ওয়ালিউর: জাতিসংঘ প্রধান (বান কি মুন) একজন সম্মানিত লোক। জাতিসংঘ সদস্যভুক্ত দেশগুলো মিলেই তাকে নির্বাচিত করা হয়েছে। তিনি একটি মতামত দিতেই পারেন। যেহেতু ইইউ’র কোনো দেশে মৃত্যুদণ্ডের বিধান নেই। জাপানে নেই, অষ্ট্রেলিয়াতেও নেই। যদিও যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুদণ্ড আছে। এরকম বিভিন্ন দেশের চাপেও তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করতে পারেন। তবে আমাদের বিচার ব্যবস্থার স্বচ্ছতার মধ্যেই এই বিচার কার্যক্রম চলছে। আর বাইরের দেশে বা মার্কিন সিনেটররা বা কংগ্রেস সদস্যরা বিভিন্ন সময় যে বক্তব্য বিবৃতি দিচ্ছেন এর কারণ, আমেরিকায় লবিস্ট নিয়োগের বিষয়টি সাংবিধানিকভাবে স্বীকৃত। টাকার বিনিময়ে সিনেটর বা অন্য অনেককেই আপনি লবিস্ট নিয়োগ করতে পারেন যারা আপনার পক্ষে কথা বলবে।
 
প্রতিবেদক: অনেকের মতে, যুক্তরাষ্ট্র নোবেলজয়ী অধ্যাপক ড. ইউনুসের পক্ষে। সেখানে সরকারের সঙ্গে ড. ইউনুসের দূরত্বকে আপনি কোন দৃষ্টিতে দেখছেন এবং বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র কূটনৈতিক সম্পর্কে এর কোনো প্রভাব আছে কি?
 
ওয়ালিউর: না এইটা ঠিক নয়। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে ড. ইউনুস কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়।
 
প্রতিবেদক: আপনি হয়তো জানেন মার্কিন সিনেটের শুনানিতে গ্রামীণ ব্যাংকের ক্ষমতা ফিরিয়ে দেয়ার কথা বলা হয়েছে।
 
ওয়ালিউর: দেখুন, গ্রামীণ ব্যাংক বাংলাদেশের ব্যাংকিং আইনের বাইরে কাজ করছিল। আমার মতে এ ব্যাংকটি এখন আগের চেয়ে লাভজনক হয়েছে। তবে ড. ইউনুস আমাদের জন্য সম্মান বয়ে এনেছেন।
 
প্রতিবেদক: একজন সাবেক রাষ্ট্রদূত, সচিব এবং কূটনৈতিক হিসেবে আপনার চোখে স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের কূটনৈতিক অগ্রগতি কতখানি?
 
ওয়ালিউর: আমরা বহুদূর এগিয়েছি নিঃসন্দেহে। আমি যখন ইতালিতে ছিলাম তখন ১০ হাজার লোককে ইতালিতে স্থায়ী করেছি। যার সংখ্যা এখন ৩ লাখ। আমি ১৯৮৭-৯৩ পর্যন্ত ইতালিতে ছিলাম। সেই ১০ হাজার থেকে ৩ লাখকে অবশ্যই আপনি অগ্রগতি বলবেন। ৮১’তে যখন আমি নিউইয়র্কে তখন ৩০০ বাঙালি অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টায় জাহাজ থেকে লাফিয়ে পড়েছিল। আমি তাদেরও পাসপোর্টের ব্যবস্থা করেছিলাম। এভাবে আমার সহকর্মী ছাড়াও এ পর্যন্ত যারা কাজ করেছেন তারা অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে এসেছেন। আমরা বিদেশ থেকে ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়ে এসেছি। জনশক্তি রপ্তানির মাধ্যমে রেমিটেন্স আসছে।
 
প্রতিবেদক: প্রায় প্রতিবার নির্বাচনের সময় নির্বাচন পদ্ধতি নিয়ে আমাদের সঙ্কট তৈরি হয়। এবারের সহিংসতা উদ্বেগজনক জায়গায় দাঁড়িয়েছে। আমরা কেন একটি নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে চলতে পারছি না?
 
ওয়ালিউর: হয়নি একেবারে তা নয়। ২০০১ সালে হয়েছে। মূলত, ৭৫’এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ১৫ বছর সেনা শাসনের নিষ্পেষণ চলেছে। জেনারেল জিয়া, এরশাদ, এরা আমাদের গণতান্ত্রিক পথটাকে রুদ্ধ করে দিয়েছেন। একাত্তরের পরাজিত শক্তিরা রাজনৈতিকভাবে পুনর্বাসিত হয়েছে। শাহ আজিজুর রহমান প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। সবমিলিয়ে এই ১৫ বছর আমাদের রাজনীতির অন্ধকার সময়। ৯০’র পর থেকে আমরা যে গণতান্ত্রিক চর্চা শুরু করেছি আশা করি ভবিষ্যতে স্থায়ী নির্বাচন পদ্ধতি প্রতিষ্ঠিত হবে।

সাক্ষাৎকার

আরও সাক্ষাৎকার

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে