Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০১৯ , ১ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.5/5 (78 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২০-২০১৩

যশোরের প্রত্যন্ত গ্রামে নীরবে গড়ে উঠছে বিশ্বমানের ইকো রিসোর্ট “পানিগ্রাম রিসোর্ট”

যশোরের প্রত্যন্ত গ্রামে নীরবে গড়ে উঠছে বিশ্বমানের ইকো রিসোর্ট “পানিগ্রাম রিসোর্ট”

যশোরের প্রত্যন্ত গ্রাম চৌগাছা উপজেলার কপোতাক্ষ-ভৈরব নদের মিলনস্থল তাহেরপুরে নীরবে গড়ে উঠছে পাঁচ তারকা হোটেল ও বিশ্বমানের বিশাল এক ইকো রিসোর্ট “পানিগ্রাম রিসোর্ট”। পানি আর সবুজের স্বাদ একসাথেই পাওয়া যাবে এখানে। প্রকৃতির খুব কাছ থেকেই উপভোগ করা যাবে এর বৈশিষ্ট্যতা। উদ্বোধন হলে এ “পানিগ্রাম রিসোর্ট” হবে যশোরের সব থেকে আলোচিত ও ট্রাভেলারদের জন্য আলোকিত স্পট।পানিগ্রাম রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ বলেছেন এটা পরিবেশ ও সমাজের সঙ্গে টেঁকসই ও সামঞ্জস্যপূর্ণ একটা পাঁচ তারকা বিশিষ্ট সুস্থ্যতা ও বিনোদন কেন্দ্র (ওয়েলনেস সেন্টার)। যেখানে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে ধারণ করে ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য একটা বিশুদ্ধ ও বৈশিষ্টপূর্ণ অভিজ্ঞতা উপহার দেয়।

প্রতিষ্ঠানটির আইনগত ভিত্তি সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ জানান, পানিগ্রাম রিসোর্ট ২০০৮ সালে বাংলাদেশের বিনিয়োগ বোর্ড এবং জয়েন্টস্টক কোম্পানিজ রেজিস্ট্রার এর নিবন্ধিত। এ প্রতিষ্ঠানের বর্তমান মালিকানার শতকরা ৮০ভাগ বাংলাদেশী এবং ২০ভাগ বিদেশী।৪৪বিঘা জমির ওপর নির্মিত এ রিসোর্টে বাংলাদেশের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে সাজিয়ে রাখার জন্য বিভিন্ন স্থাপত্য নকশা করা হয়েছে। এখানকার অতিথিরা বাংলাদেশের গ্রাম্য জীবন বিষয়ে একটা বিশুদ্ধ ধারণা পাবে।

অতিথিরা এখানে ধানক্ষেত, খেজুর গাছ ও জলহস্তিসহ বিচিত্র সব প্রাণী দেখবে। এছাড়াও ধান কাটা, গরু দেয়ানো ও বনের প্রাকৃতিক মধু আহরণ সম্পর্কে ব্যবহারিকভাবে জানতে ও দেখতে পারবে। সুস্থতা বজায় রাখার জন্য এখানে যোগব্যায়াম, মেডিটেশন শিক্ষা এবং পুষ্টি সচেতনতা ও বাঙালিদের ঐতিহ্যগত সৌন্দর্য আচরণ সম্পর্কে এখানে অতিথিদের জানানো ও এগুলো তাদের অভ্যাসের পরামর্শ দেয়া হবে।

সবকিছু সময়মত চললে অবকাঠামো ও উন্নয়ন সংক্রান্ত সব কাজ শেষ করে ২০১৪ সালের ১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। উদ্যোক্তারা আশা প্রকাশ করেন, শুধু বাংলাদেশের জন্য নয়, পানিগ্রাম বিশ্বের জন্য অনুপ্রেরণাকারী একটা প্রকল্প হিসেবে গড়ে উঠবে।

পানিগ্রাম রিসোর্ট সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিনা বোথেকহপ জানান, পানিগ্রাম একটি সমাজ ও পরিবেশ টেকসই কারুকার্য খচিত রিসোর্ট সেন্টার হবে। এতে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক এতিহ্য, ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য কাজ করছে। বাংলাদেশের এতিহ্য ও সংস্কৃতিককে সাজিয়ে রাখার জন্য নকশা তৈরি করা হয়েছে। পানিগ্রামের বর্তমান মালিকানার ৮০ শতাংশ বাংলাদেশি ও বাকি ২০ শতাংশ বিদেশি। একই সাথে দেশীয় মালামাল দিয়ে রিসোর্ট সেন্টার নির্মাণ করা হচ্ছে। নির্মাণ কাজেও দেশীয় শ্রমিকদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। রিসোর্ট নির্মাণ কাজে যশোর, ঝিনাইদহ ও কুষ্টিয়া জেলার শ্রমিকরা কাজ করছেন। ইতোমধ্যে ৫০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

বর্তমানে হোটেল নির্মাণ কাজে যশোর জেলার ৮৯ শতাংশ ও পার্শ্ববর্তী জেলার ১০ শতাংশ শ্রমিক কাজ করছেন। এই কাজে পণ্য সরবারহকারীদের ৮০ শতাংশ যশোরের বাসিন্দা। তিনি আরও জানান, পাঁচ তারকা হোটেলে আন্তর্জাতিক মানের সুযোগ সুবিধা থাকবে।এ রিসোর্ট সেন্টারে ৩৬টি বাংলো, ৮৫ আসনের রেস্টুরেন্ট, ২০ আসনের জুস বার, ১৯ হাজার বর্গ ফুটের স্পা ও কুশল কেন্দ্র, ২ হাজার ফুটের সুইমিং পুল, ভিতরে ও বাইরে ব্যায়ামাগার, ঐতিহ্য সুরক্ষা কেন্দ্র, থিয়েটার, বাচ্চাদের খেলার স্থান ও বাগান থাকবে। এই রিসোর্ট সেন্টারে আগত অতিথিরা দেশীয় সংস্কৃতির খাবার, ভ্রমণ, খেলাধুলার সুযোগ পাবে।

পানিগ্রাম রিসোর্ট সেন্টারেরর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিনা বোথেকহপ বলেন, বাঙালি ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে পানিগ্রাম কাজ করছে। ঐতিহ্য তুলে ধরায় আমাদের মূল্য লক্ষ্য। ধর্মীয় মূল্যবোধ বিরোধী কোনো কর্মকাণ্ড আমরা করছি না। পানিগ্রাম রিসোর্ট সংক্রান্ত আরো তথ্যের জন্য http://www.panigram.com/ ভিজিট করুন।

পর্যটন

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে