Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ৭ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৫-২০২০

খাগড়াছড়ির রামগড়ে ব্রিজ নির্মাণে অনিয়ম, দুর্ভোগে গ্রামবাসী

খাগড়াছড়ির রামগড়ে ব্রিজ নির্মাণে অনিয়ম, দুর্ভোগে গ্রামবাসী

খাগড়াছড়ি, ৫ জুন- খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলার ১ নম্বর রামগড় ইউনিয়নের খাগড়াবিল বাজারের পাশে লালছড়ি সংযোগ সড়কে ২০১৮ ও ২০১৯ অর্থবছরের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অধীনে গ্রামীণ রাস্তা ১৫ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ব্রিজ নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নকশা বহির্ভুত নিন্মমানের নির্মাণসামগ্রী ব্যবহারসহ নির্ধারিত ২ মাসে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও দীর্ঘ ৯ মাসেও ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছে কয়েকটি গ্রামের কৃষক, মৌসুমী ফলবাগান মালিক-ব্যবসায়ী ও হাজার হাজার গ্রামবাসী।

এদিকে, গ্রামবাসীর সুবিধার্থে খালে বাধ দিয়ে অস্থায়ীভাবে বিকল্প সড়ক নির্মাণ করা হলেও তা টেকসই ছিল না। ব্রিজ নির্মাণে বিলম্বিত হওয়ায় পাহাড়ি ঢলে বাধ ভেঙে গেলেও পুনরায় নির্মাণ না করায় দুর্ভোগে পড়েছেন  গ্রামবাসী।

ব্রিজ নির্মাণ কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান খাগড়াছড়ির রানজনী এন্টারপ্রাইজের প্রোপাইটর বিকেন দেওয়ানের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি। তবে সাব-ঠিকাদার ইলিয়াছ মুন্সি বলেন, সঠিক সময়ে নির্মাণ শ্রমিক না পাওয়ায় বিলম্বিত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. মনসুর আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কাজটি দ্রুত শেষ করতে বারবার ঠিকাদারকে বলা হচ্ছে। তবে অনিয়নের ব্যাপারে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপণা অধিদপ্তরের অর্থায়নে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় গ্রামীণ রাস্তায় সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পে গত অর্থবছরে প্রায় ৩৭ লাখ টাকা ব্যয়ে রামগড় ইউনিয়নে ৩টি ব্রিজ নির্মাণ কাজের টেন্ডার আহবান করা হয়। এর মধ্যে খাগড়াবিল-লালছড়ি একটি। লটারির মাধ্যমে খাগড়াছড়ির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রানজনী এন্টারপ্রাইজ ব্রিজ নির্মাণের কার্যাদেশ পায়। কিন্তু কাজটি পাওয়ার পর ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্রিজ নির্মাণে বিলম্ব, নকশা বহির্ভুত ব্রিজ নির্মাণ, পুরাতন ব্রিজ অক্ষত রেখেই তার ওপর নতুন ব্রিজ নির্মাণ, নিম্নমানের রড, বালু, পাথরের ব্যবহারসহ বিকল্প ব্রিজ নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ ওঠে।

স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেন, শুরুতেই ঠিকাদারের লোকজন নির্ধারিত সময়ের প্রায় ২ মাস পর নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে জনগুরুত্বপূর্ণ এ ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন। তাদের বাধা প্রদান করা সত্ত্বেও রহস্যজনক কারণে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে ঠিকাদার প্রতিমাসে হঠাৎ কয়েকদিন পরপর তার মর্জিমত নির্মাণ কাজ করে আবার উধাও হয়ে যান। এলাকাবাসীর অভিযোগ গুরত্বপূর্ণ কৃষি নির্ভর এলাকায়  সময়মত ব্রিজটি নির্মিত হলে গ্রামবাসীকে এ দুর্ভোগ পোহাতে হতো না। এ ব্যাপারে তারা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষে সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগ পেয়ে ব্রিজটির নির্মাণ পরিদর্শনে এসে নির্মাণে অনেক অনিয়মের সত্যতা দেখলাম। উপজেলার এমন একটি গুরত্বপূর্ণ ব্রিজে এত বড় অনিয়ম গ্রহণযোগ্য নয়। সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলবেন বলে তিনি জানান।

সূত্র: কালের কন্ঠ

আর/০৮:১৪/৫ জুন

খাগড়াছড়ি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে