Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০ , ২১ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৪-২০২০

ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে যোগ দিলেন স্বয়ং ট্রাম্পের মেয়ে

ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে যোগ দিলেন স্বয়ং ট্রাম্পের মেয়ে

ওয়াশিংটন, ৪ জুন- পুলিশের হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ও সাবেক বাস্কেট বল তারকা জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড ঘিরে বিক্ষোভের আগুনে জ্বলছে পুরো যুক্তরাষ্ট্র। গত সাতদিন ধরে চলা আন্দোলনে নতুন মাত্রা যোগ করলেন খোদ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কন্যা টিফনি ট্রাম্প। জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে সরব হলেন ট্রাম্পের ছোট মেয়ে। নিষ্ঠুর ওই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে চলা ব্যাপক বিক্ষোভকে সমর্থন জানালেন তিনি।

হোয়াইট হাউসের বাইরে বিক্ষোভকারীদের ওপরে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ছোঁড়ার পরেই নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় বিক্ষোভকারীদের সমর্থনে পোস্ট দেন টিফনি ট্রাম্প। জানা গেছে, বিক্ষোভে ক্ষতি হওয়া একটি চার্চ দেখতে যান ট্রাম্প, সে সময়ই তাঁর নিরাপত্তারক্ষীরা অকারণে বিক্ষোভকারীদের দিকে কাদানে গ্যাস ছোঁড়ে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই টিফনি ট্রাম্পকে জানিয়েছেন, তিনি যেন তাঁর বাবা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এই বিক্ষোভের কারণ ব্যাখ্যা করেন এবং বিক্ষোভ দমনে ট্রাম্পের নেওয়া পদক্ষেপ যে ভুল সে বিষয়টি জানান।

সাম্প্রতিক সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে একটি হ্যাশট্যাগ #ব্ল্যাকআউট_টুয়েসডে, এটি আসলে জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ব্যবহার করা হচ্ছে। এই বিক্ষোভকে সমর্থন করে একটি কালো পর্দার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হচ্ছে। টিফনি ট্রাম্প (২৬) সেখানে ক্যাপশন দিয়েছেন, 'একা আমরা খুব ছোট কিছু অর্জন করতে পারি, একসঙ্গে আমরা অনেক কিছু অর্জন করতে পারি।- হেলেন কিলার'। একইসঙ্গে টিফনির ওই পোস্টে হ্যাশট্যাগ হিসেবে দেওয়া ছিল, #blackoutTuesday ও #justiceforgeorgefloyd।

সম্প্রতি, কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ও সাবেক বাস্কেট বল তারকা জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যাকাণ্ড ঘিরে সহিংস বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে। ‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না’ -এমন শ্লোগানকে ধারণ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় সব শহরে ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলন। আন্দোলনের ঢেউ যুক্তরাষ্ট্রের বাইরেও ছড়িয়েছে।

এই বিক্ষোভের ঘটনা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সংকটে ফেলেছে। তিনি বিক্ষোভ দমনে শক্তি প্রয়োগের হুমকি দিয়েছেন। এমনকি প্রতিবাদীদের ঠান্ডা করতে সেনা নামানোর হুমকি দিয়েছেন। বিক্ষোভের প্রতিবাদে ট্রাম্পের এমন শক্তি প্রয়োগের হুমকিকে মার্কিন গণতন্ত্রের জন্য বড় ধাক্কা বলে মনে করছে সচেতন মহল। এমনকি এ ঘটনায় নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পেন্টাগওন। এভাবে শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে বিশেষ করে সেনা নামিয়ে বিক্ষোভ দমনের বিষয়ে পেন্টাগন উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

সূত্র- এনডিটিভি

আর/০৮:১৪/৪ জুন

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে