Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০ , ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.6/5 (8 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-২৫-২০২০

করোনা দুর্যোগে অসহায়দের জন্য কাজ করছে ‘গ্রীন পটুয়াখালী’

করোনা দুর্যোগে অসহায়দের জন্য কাজ করছে ‘গ্রীন পটুয়াখালী’

পটুয়াখালী, ২৫ মে - প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের আতঙ্ক সর্বত্র।অদৃশ্য এ ভাইরাসের কারণে মানুষ আজ ঘরবন্দি। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ১৯ এপ্রিল পটুয়াখালী জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। এতে ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে জেলার অনেক মানুষ। কর্মহীন ও অসহায় এসব মানুষগুলোকে সরকার ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে সাহায্য করা হচ্ছে। অনেকে সাহায্য করছেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে। পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মের অনেকেই ফেসবুক ভিত্তিক বিভিন্ন সংগঠন নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন। তেমনি একটি সংগঠন ‘গ্রীন পটুয়াখালী’।

গত এপ্রিল থেকে পটুয়াখালীতে করোনা দুর্যোগকালীন সময় ও ঈদকে ঘিরে শহরের পাঁচশত দরিদ্র মানুষের মাঝে ঈদ উপহার দিয়েছে সংগঠনটি।

২০১০ সালে পটুয়াখালীর প্রথম ফেসবুক ভিত্তিক সামাজিক সংগঠন ‘গ্রীন পটুয়াখালী’ চালু করেন আরিফুর রহমান সোহাগ। তিনি প্রতিষ্ঠাতা এডমিন। এরপর থেকে জেলার বিভিন্ন বাসিন্দা ও প্রবাসীসহ এখন পর্যন্ত মোট ৫ হাজার সদস্য রয়েছে ‘গ্রীন পটুয়াখালী’।

শুরু থেকে প্রতিবছর তারা সদস্যদের সহযোগিতায় জেলার দরিদ্র মানুষের জন্য খাদ্যসামগ্রী ‘ঈদ উপহার’, শিশুদের ঈদ পোশাক, শীতবস্ত্র এবং মানবিক সহযোগিতা (বিরল রোগ ও ক্যান্সার) প্রদান করছে ‘গ্রীন পটুয়াখালী’।

এছাড়াও পটুয়াখালীতে সড়কের বেহাল অবস্থা, লঞ্চ রোটেশন আন্দোলনসহ নানা অসঙ্গতি তুলে ধরাই সংগঠনটির মূল কাজ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রবাসী বলেন, নিজ দেশ ও জেলা থেকে অনেক দূরে থাকি।শহরটাকে অনেক মিস করি। আমার শহর ভালো থাকলে আমরা দূরে বসে ভালো থাকি। ‘গ্রীন পটুয়াখালী’ আমাদের ভালো থাকার সব তথ্য দেয়।

‘গ্রীন পটুয়াখালী’র বিষয়ে আবদুল করিম মৃধা কলেজের একজন প্রভাষক বলেন, আমার মেয়ে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত হবার পরে এ সংগঠন থেকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছিল। ওই সময় তাদের দেয়া টাকা আমার মেয়ের চিকিৎসায় বেশ কাজে লেগেছিল। বর্তমানে আমার মেয়ে সুস্থ।

শহরের বাধঘাট আবাসনের বাসিন্দা রফিক মৃধা বলেন, ফার্নিচার মিস্ত্রির কাজ করি। বর্তমানে দোকান বন্ধ।কাজ নাই। হাতে টাকাও নাই।স্যার (‘গ্রীন পটুয়াখালী’র এডমিন আরিফুর রহমান সোহাগ) ঈদ উপহার দিয়েছে।

ভিক্ষুক রহিমা বেগম বলেন, আগে রাস্তায় মানুষ আছিলো, অনেকে টাকা দিতো। বর্তমানে রাস্তায় মানুষ নাই, টাকাও নাই। ঘরে বুড়া (স্বামী) অসুস্থ। খাবারও নাই। এসব শুনে স্যার আমারেও ঈদ উপহার দিছে।

সুশীল সমাজের প্রতিনিধি সৈয়দ কিশোর বলেন, দেশকে এগিয়ে নেয়া শুধু সরকারের কাজ না, এটা সবার কাজ। আমরা ভালো কাজ করলে দেশ এগিয়ে যাবে। ফেসবুকভিত্তিক সংগঠন ‘গ্রীন পটুয়াখালী’ যেসব কাজ করছে তা প্রশংসার দাবি রাখে।

‘গ্রীন পটুয়াখালী’র প্রতিষ্ঠাতা এডমিন আরিফুর রহমান সোহাগ বলেন,সামাজিক অসঙ্গতি, উন্নয়ন, জেলার জন্য ভালো দিকগুলো সকলের সামনে তুলে ধরতে এ সংগঠন প্রতিষ্ঠা করা হয়। পটুয়াখালী আমাদের শহর। এ শহর সুন্দর করতে প্রশাসন, যারা জনপ্রতিনিধি রয়েছে তারা যেন ঠিকভাবে কাজ করে সেই জিনিসগুলো তুলে ধরাই আমাদের কাজ।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ২৫ মে

পটুয়াখালী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে