Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০ , ২৭ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-২০-২০২০

‘কোনো বিশ্বযুদ্ধ পারেনি, করোনাও পারবে না ফুটবলকে বদলে দিতে’

‘কোনো বিশ্বযুদ্ধ পারেনি, করোনাও পারবে না ফুটবলকে বদলে দিতে’

জার্মান বুন্দেসলিগা মাঠে ফিরেছে। তবে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে। খেলোয়াড়দেরও মানতে হচ্ছে অনেক নিয়ম এবং স্বাস্থ্যবিধি। খেলা মাঠে ফেরার পরও শঙ্কা থেকে যাচ্ছে। কারণ, মাঠে তো আর খেলোয়াড়রা সামাজিক দুরত্ব মানতে পারছেন না। এমনকি কোনো কোনো ম্যাচে দেখা গেছে, গোলের পর কোনো কোনো ফুটবলার পরস্পর আলিঙ্গনও করছেন।

ইতালি, স্পেন এবং ইংল্যান্ডে ফুটবল ফিরে আসার পর্যায়ে রয়েছে। এই তিনটি বড় দেশে ফুটবল ফিরে আসার অর্থ অনেক ঝুঁকে বেড়ে যাওয়া। কারণ, করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেশগুলোর প্রথম ৫টির মধ্যে রয়েছে তারা।

যে কারণে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়ে ফুটবল আর আগের মত থাকবে না। পরিবর্তন হতে বাধ্য। বিশেষ করে, দর্শকরা যখন গ্যালারিতে আসতে পারবে না, তখন তো পরিবর্তন হবেই।

কিন্তু ইউরোপিয়ান ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা উয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার সেফেরিন মনে করেন, করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়ে ফুটবলের কোনো পরিবর্তন হবে না। ফুটবল সমর্থকদের আশাবাদী করে তুলে তিনি জানিয়েছেন, অচীরেই তারা মাঠে আসার সুযোগ পাবেন। শুধু তাই নয়, তার মতে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পারেনি, এমনক প্রথম বিশ্বযুদ্ধও পারেনি ফুটবলকে পরিবর্তন করতে। করোনাভাইরাসও পারবে না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খেলা মাঠে গড়ালেও দর্শকদের গ্যালারিতে আসতে অন্তত আরও এক বছর সময় লাগবে। কিছুদিন আগেই ফরোয়ার্ডেড হেলথকেয়ারের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নাতে ফ্যাবিনি বলে দিয়েছিলেন, ‘ফুটবলের ভক্ত-সমর্থকদের এই বছর আর মাঠে আসার সুযোগ দেয়া যাবে না। মনে হয়, ২০২১ সালের আগে তারা সে সুযোগ পাচ্ছে না।’

ইংল্যান্ডের দ্য গার্ডিয়ানকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সেফেরিন বলেন, ‘খুব কঠিন একটা পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছি আমরা। তবে এই অবস্থা এখন ধীরে ধীরে কেটে যাচ্ছে এবং আমরা আগের চেয়েও বেশি সতর্ক। আমরা ভাইরাস সম্পর্কে এখন সবাই জানি। ব্যক্তিগতভাবে আমি খুব আশাবাদী। আমাদেরকে ভাইরাসের তৃতীয়, চতুর্থ কিংবা পঞ্চম ঢেউয়ের অপেক্ষায় থাকতে হতে পারে। সুতরাং, এর রহস্য উদঘাটন আমার কাজ নয়। মানুষকে তো একদিন মরতেই হবে। তাহলে, কেন আজ আমরা এতটা ভীত? আমি এমন মনে করি না।’

সেফেরিন এরপর বলেন, ‘আমরা সব সময়ই প্রস্তুত। একই সঙ্গে কর্তৃপক্ষের দেয়া নির্দেশিকাগুলো সব মানারও চেষ্টা করছি। তবে আমি নিশ্চিত, আগের সেই ফুটবল আবারও ভালোভাবে ফিরে আসবে এবং সেটা খুব দ্রুতই।’

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/২১ মে

ফুটবল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে