Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০ , ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-১৮-২০২০

কৃষকের মিষ্টি লাউ কিনে দরিদ্রদের দিলেন আওয়ামী লীগ নেতা

কৃষকের মিষ্টি লাউ কিনে দরিদ্রদের দিলেন আওয়ামী লীগ নেতা

জামালপুর, ১৮ মে- জামালপুর সদরের সবজিচাষি হাফেজ মো. হুমায়ন কবীরের সাত একর জমির দুই হাজার মিষ্টি লাউ ৪০ হাজার টাকায় একাই কিনে দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করেছেন জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী।

গতকাল রবিবার বিকেলে জামালপুর সিংহজানী খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গণে মিষ্টি লাউয়ের মূল্য পরিশোধ এবং অসহায় দরিদ্রদের মাঝে মিষ্টিলাউ বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী। পরে জামালপুর সদরের ইউএনও ফরিদা ইয়াছমিনের তত্ত্বাবধানে স্থানীয় ট্রাক শ্রমিক, খাদ্যগুদামের কুলিসহ জামালপুর পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের দরিদ্রদের মাঝে মিষ্টিলাউগুলো বিতরণ করা হয়।

এ সময় জামালপুর সিংহজানী খাদ্য গুদামের সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান খান, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. সুরুজ্জামান, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আওলাদ হোসেন খসরু প্রমুখ মিষ্টিলাউ বিতরণে অংশ নেন।

কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবির তার ক্ষেতের দুই হাজার মিষ্টি লাউ বিক্রি করতে পারায় খুব খুশি হয়েছেন। তিনি বলেন, মিষ্টি লাউ দ্রুত বিক্রি করতে না পারলে ক্ষেতেই নষ্ট হয়ে যাবে। ইউএনও ম্যাডামের সাথে কথা বলার পর উনিই আমার লাউগুলো বিক্রির ব্যবস্থা করে দিলেন। লাউ ক্রেতা আওয়ামী লীগনেতা ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরীর প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এ প্রসঙ্গে জামালপুর সদরের ইউএনও ফরিদা ইয়াছমিন বলেন, ‘করোনাভাইরাসের প্রভাবে অনেক কৃষকই ন্যায্যমূল্যে তাদের সবজি বিক্রি করতে পারছেন না। তেমনই একজন কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবির তার সমস্যার কথা জানিয়ে আমার সাথে যোগাযোগ করেন। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী ওই কৃষকের ক্ষেতের দুই হাজার মিষ্টিলাউ কিনে দরিদ্রদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনকে দেন। পরে সেই মিষ্টি লাউগুলো দরিদ্রদের মাঝে বিলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে উৎপাদিত কৃষিপণ্যের বাজারমূল্য নিশ্চিত করতেই কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবিরের কাছ থেকে দুই হাজার মিষ্টি লাউ কিনে উপজেলা প্রশাসনকে দিয়েছি। সদরের ইউএনও ত্রাণ সহায়তা হিসেবে মিষ্টি লাউগুলো দরিদ্রদের মাঝে বিলিয়ে দিয়েছেন। কৃষক বাঁচাতে কৃষকের কাছ থেকে সবজি কিনে বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ
এম এন  / ১৮ মে

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে