Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০১৯ , ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (31 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২৭-২০১১

১৭টি দেশের শিল্পীদের নিয়ে ‘রবীন্দ্র উৎসব : সুরের ধারা’

রবাব রসাঁ/ অনন্যা আশরাফ


১৭টি দেশের শিল্পীদের নিয়ে ‘রবীন্দ্র উৎসব : সুরের ধারা’
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সার্ধশততম জন্মবর্ষ উদযাপিত বছরজুড়ে হচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতে।  বাংলাদেশের রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা কেন্দ্র সুরের ধারা নানা আয়োজনের মাধ্যমে সার্ধশততম জন্মবর্ষে কবিগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করছে।

সার্ধশত জন্মবর্ষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতবিতানের ২২২২টি গান ডিভিডিতে ধারণ করা হয়েছে সুরের ধারার উদ্যোগে। একই সঙ্গে আছে গীতিনাট্য ও নৃত্যনাট্য- মায়ার খেলা, শ্যামা, চণ্ডালিকা, চিত্রাঙ্গদা, বাল্মীকি প্রতিভা ও কালমৃগয়া। সবকটি গান, গীতিনাট্য ও নৃত্যনাট্যে কণ্ঠ দিয়েছেন শুধু বাংলাদেশের শিল্পীরা। আরো থাকছে রবীন্দ্রসংগীতের প্রয়াত শতাধিক বরেণ্য শিল্পীর গান। গানগুলো সংগ্রহ করা হয়েছে বাংলাদেশ বেতারের ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিসসহ বিভিন্ন মাধ্যম থেকে। ২২টি ডিভিডির এই পুরো আয়োজনের নাম ‘শ্রুতি গীতবিতান’।

এ উপলক্ষে গত ২৬ ডিসেম্বর সোমবার বিকালে রাজধানীর বেঙ্গল ক্যাফেতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- রবীন্দ্র উৎসব: সুরের ধারার সভাপতি ড. আনিসুজ্জামান, চেয়ারম্যান ও অধ্যক্ষ রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এবং আহবায়ক শফি আহমেদ। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, কণ্ঠশিল্পী লিলি ইসলামসহ সংস্কৃতি অঙ্গনের বরেণ্যজনেরা।

সংবাদ  সম্মেলনে জানানো হয়, চলতি বছরের ১১ মে থেকে শুরু হয় হয় ‘শ্রুতি গীতবিতান’ রেকর্ডিংয়ের কাজ। প্রথমদিকের গানগুলোর সংগীতায়োজনে আছেন বাংলাদেশের সুজেয় শ্যাম ও দৌলতুর রহমান, কলকাতার অমিত বন্দ্যোপাধ্যায়, রানা দত্ত, পুলক সরকার, রামকৃষ্ণ পাল, বুদ্ধদেব গাঙ্গুলি, সুব্রত মুখার্জি, শুভায়ু সেন মজুমদার ও তপন দেব। রবীন্দ্রসংগীতের সঙ্গে যুক্ত প্রায় সব শিল্পীর গান থাকছে ‘শ্রুতি গীতবিতান’ অ্যালবামে।

‘শ্রুতি গীতবিতান’ প্রসঙ্গে রেজওয়ানা চৌধুরী বলেন, এটি রবীন্দ্রসংগীতের পূর্ণাঙ্গ একটি আর্কাইভ হবে বলে আমরা আশা করছি। সাধারণ শ্রোতাদের পাশাপাশি যারা রবীন্দ্রসংগীত শিখতে চান, তারাও এই আর্কাইভ থেকে যথেষ্ট সহযোগিতা পাবেন। আমাদের বিশ্বাস, এটি শুদ্ধ রবীন্দ্রসংগীত চর্চার ক্ষেত্রে এটি অনন্য ভূমিকা রাখবে।


সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেওয়া হয়, ‘শ্রুতি গীতবিতান’ মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৯ ডিসেম্বর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। মোড়ক উন্মোচন করবেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। বিশাল ক্যানভাসের এই কাজটি বরণ করে নেওয়ার উদ্দেশ্যে আয়োজন করা হয়েছে ‘রবীন্দ্র উৎসব: সুরের ধারা’ শিরোনামে তিন দিনের উৎসব। ২৯ ডিসেম্বর বিকেলে উৎসব উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২৯ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠেয় তিন দিনের এই উৎসবে অংশ নিতে আসছেন বিভিন্ন দেশের সংগীতশিল্পী, বাদ্যযন্ত্রশিল্পী, রবীন্দ্রগবেষকসহ আরও অনেকে। উৎসবের বড় অংশ জুড়ে থাকছেন বাংলাদেশের শিল্পীদের পরিবেশনা। সুরের ধারার আয়োজনে এ উৎসবে পাশ্চাত্যের যন্ত্রানুষঙ্গে রবীন্দ্রনাথের গান পরিবেশন করবে গান্ধর্বলোক অর্কেস্ট্রা। ১৭টি দেশ থেকে এ দলের ৩৫ জন সদস্য এরই মধ্যে ঢাকায় এসেছেন। তাদের সঙ্গে আছেন মঞ্চ ব্যবস্থাপক ও শব্দ প্রকৌশলী। এ দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সুইজারল্যান্ডের পাঞ্চজন্য বুরি।


বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে উৎসবের প্রথম দিন ২৯ ডিসেম্বর বিকেলে শ্রুতি গীতবিতান- অ্যালবামের মোড়ক উন্মোচনে এবং উৎসবের উদ্বোধন উপলক্ষে একই মঞ্চে এক হাজার শিল্পী রবীন্দ্রসংগীত পরিবেশন করবেন। ঢাকাসহ সারা দেশ থেকে এসেছেন এই শিল্পীরা। ‘সহস্র কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথের গান’ শিরোনামের এক ঘণ্টার এই অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন ভারতের প্রখ্যাত সুরকার ও সংগীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্র।

রবীন্দ্র-উৎসবে নানা আয়োজনের সঙ্গে ৩০ ও ৩১ ডিসেম্বর থাকছে সেমিনার। সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন কবি শঙ্খ ঘোষ, রবীন্দ্রভারতীর উপাচার্য করুণাসিন্ধু দাশ এবং বিশ্বভারতীর উপাচার্য সুশান্ত দত্ত গুপ্ত। সেমিনারে বিষয়ভিত্তিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন শফি আহমেদ (রবীন্দ্রনাটক), বিশ্বজিৎ ঘোষ (রবীন্দ্রনাথের ছোটগল্প), রামকুমার মুখোপাধ্যায় (রবীন্দ্রনাথের উপন্যাস), আতিউর রহমান (রবীন্দ্রনাথের উন্নয়ন ভাবনা), স্বপন মজুমদার (রবীন্দ্রনাথের শিক্ষাচিন্তা), অমিয় দেব (রবীন্দ্রনাথের কবিতা), আল্পনা রায় (রবীন্দ্রনাথের গান), সোমেন বন্দ্যোপাধ্যায় (রবীন্দ্রনাথের সাহিত্য ও চিত্রকলার সম্পর্ক), কেতকী কুশারি ডাইসন ও সুশোভন অধিকারী (রবীন্দ্রনাথের চিত্রকলা)। রবীন্দ্রবিষয়ক এই সেমিনারগুলো অনুষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রের সেমিনার হলে।

তিন দিনের এই উৎসবে আরও থাকছে রবীন্দ্রনাথের গান, গীতিনাট্য, নৃত্যনাট্য, রবীন্দ্রনাথের গল্পভিত্তিক চলচ্চিত্র ও রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে তৈরি চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী এবং বইয়ের প্রদর্শনী। এই আয়োজনগুলো হবে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রের হল অব ফেম ও মিল্কিওয়েতে। সুরের ধারার এই পুরো আয়োজনের সঙ্গে আছে প্রথম আলো ও চ্যানেল আই। স্পন্সর হিসেবে থাকছে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, ওরিয়ন গ্রুপ, বি ক্যাশ,  সিঙ্গার বাংলাদেশ, সামিট গ্র“প, ব্রাক ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এইচএসবিসি, ব্যাংক এশিয়া, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি থাকছে শুধু আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য। তবে উৎসবের অন্য সব অনুষ্ঠান থাকবে সবার জন্য উন্মুক্ত। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করবে চ্যানেল আই।

বলিউড

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে