Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০১৯ , ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.2/5 (39 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২৭-২০১১

সাক্ষাৎকার : সব দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি-দেবজ্যোতি মিশ্র

সাক্ষাৎকার : সব দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি-দেবজ্যোতি মিশ্র
২৯ ডিসেম্বর বিকেলে ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রবীন্দ্রনাথের গান করবেন এক হাজার শিল্পী। সুরের ধারা আয়োজিত ‘সহস্র কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথের গান’ শিরোনামে এই অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করবেন ভারতের প্রখ্যাত সুরকার ও সংগীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্র। গত রোববার তিনি ঢাকায় এসেছেন। সারা দিন ব্যস্ত ছিলেন মহড়া নিয়ে। ওই সন্ধ্যায় কথা হয় তাঁর সঙ্গে।

আপনি ‘সহস্র কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথের গান’ আয়োজনের মহড়া পরিচালনা করছেন। কেমন মনে হচ্ছে?
এক হাজার শিল্পী ১২টি গান করবেন। সবকটি গানের ট্র্যাক আমিই তৈরি করেছি। এগুলো আগেই পাঠিয়ে দিয়েছিলাম। রোববার মহড়ার দায়িত্ব নেওয়ার পর আমি অবাক হয়েছি—দেখি হিমাদ্রি শেখর তালুকদার চমৎকারভাবে সবাইকে তৈরি করেছেন। গানগুলো প্রথাগতভাবে তোলানো নয়, গানের সঙ্গে শিল্পীদের একটা প্রাণের সম্পর্ক অনুভব করলাম। সব দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি।
এক মঞ্চে এক হাজার শিল্পী গান করবেন। এ ধরনের বড় আয়োজন এর আগে কখনো পরিচালনা করেছেন?
আমি কিন্তু বিভিন্ন দেশে এ ধরনের আয়োজন দেখেছি, নিজেও পরিচালনা করেছি। এর আগে প্রাগে যে কাজ করেছি, সেখানে ৩৫০ জন অংশ নিয়েছিলেন। ওটা ছিল ওয়েস্টার্ন কয়ার। ওটার আলাদা একটা ভাষা এবং রূপ আছে। কিন্তু ঢাকায় এ কাজটি করতে এসে মনে হচ্ছে, এখানে আবেগ আর ব্যাকরণের এক চমৎকার মেলবন্ধন তৈরি হয়েছে। ব্যাকরণ যেন কাঁধে চেপে না বসে, আমি কিন্তু সব সময় সেদিকে খেয়াল রেখেছি। স্বরলিপির কিছু কাঠিন্য থাকে, আবার স্বরলিপি কিন্তু মূল গান নয়—গানের একটা রূপের নির্দেশ।
রবীন্দ্রনাথের সবগুলো গান এবার বাংলাদেশের শিল্পীদের দিয়ে সুরের ধারা ডিভিডিতে ধারণ করিয়েছে।
এটা কিন্তু অনেক বড় এবং খুব কঠিন একটা কাজ। আর্থিক একটা ব্যাপার তো আছেই, তার ওপর রবীন্দ্রনাথের অনেক গানের কথান্তর এবং সুরান্তর রয়েছে। শুনেছি এগুলো সবই এখানে রাখা হচ্ছে। বুঝতে পারছি, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার ওপর দিয়ে কী যাচ্ছে! তিনি তো দীর্ঘদিন রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে পড়ে আছেন। এই শ্রুতি গীতবিতান তাঁকে আজীবন বাঁচিয়ে রাখবে।
আপনাকে বাংলাদেশের শ্রোতারা চেনেন এনামুল করিম নির্ঝরের ‘আহা!’ ছবির মধ্য দিয়ে।
নির্ঝর এবং আমি খুবই ঘনিষ্ঠ। মজার ব্যাপার হলো, এ ছবির কাজের জন্য আমার তেমন কোনো প্রস্তুতি ছিল না। এক দিন হঠাৎ বসে একসঙ্গে ছবিটির অনেকগুলো কাজ করে ফেললাম। তখন ভাবতে পারিনি, গানগুলো সবাই এতটা পছন্দ করবেন। এরপর নির্ঝরের আরেকটা ছবির কাজ করছি। নাম নমুনা।
আপনি তো কলকাতা এবং মুম্বাইয়ে ছবির খুব ব্যস্ত সুরকার ও সংগীত পরিচালক। আপনার এ সময়ের কাজগুলো নিয়ে কিছু বলুন।
ইদানীং আমি কাজ করেছি অটোগ্রাফ, ইতি মৃণালিনী, শুকনো লঙ্কা এবং মেমোরিজ ইন মার্চ ছবিতে। ঋতুপর্ণ ঘোষের সঙ্গে সর্বশেষ করেছি চিত্রাঙ্গদা ছবির কাজ। মহাভারতের চিত্রাঙ্গদাকে এখানে এ সময়ের মতো করে উপস্থাপন করা হয়েছে। মহাভারত নিয়ে জার্মান পরিচালক ফ্লোরিয়েন অ্যালেনবার্গার তৈরি করছেন শ্যাডোজ ইন টাইম। ছবিতে অভিনয় করছেন ইউরোপিয়ান শিল্পীরা। সে এক বিশাল কর্মযজ্ঞ। আমি এই ছবির সংগীতের কাজ করব লন্ডনে।
রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে আর কিছু করেছেন?
রবীন্দ্রনাথ যখন জার্মানি গিয়েছিলেন, তখন তাঁর কাছে চলচ্চিত্রের একটি স্ক্রিপ্ট চাওয়া হয়েছিল। তিনি এক রাতে সেই চলচ্চিত্রের স্ক্রিপ্টের বদলে লিখেছিলেন ইংরেজিতে ১০টা কবিতা। ‘দ্য চাইল্ড’ নামের সেই কবিতাগুলো নিয়ে তনুশ্রী শঙ্কর একটা নৃত্যনাট্য তৈরি করেছেন। পাঠ করেছেন ভিক্টর ব্যানার্জি। আমি করেছি পুরো সংগীত তৈরির কাজ। এখানে রবীন্দ্রনাথের কোনো সুর ব্যবহার করিনি। অন্য রকম একটা কাজ। বাংলাদেশের দর্শকদের এটা দেখানো উচিত। জানেন, এই দেশের সঙ্গে আছে আমার নাড়ির সম্পর্ক।
সেটা কী রকম?
আমার বাবা আর চাচারা ছিলেন মাতুয়াইল স্টেটসের মালিক। তাঁরা বহু বছর আগে এখানেই থাকতেন। মা বিক্রমপুরের মেয়ে। বাবা নেই, মায়ের যথেষ্ট বয়স হয়েছে। তাঁর খুব শখ, বাবার ভিটা দেখার। জানি না পারব কি না।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে