Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২৭-২০১১

অনুপস্থিত অ্যাডহক ডাক্তারদের বহিষ্কার

অনুপস্থিত অ্যাডহক ডাক্তারদের বহিষ্কার
ঢাকা, ২৫ ডিসেম্বর: গ্রামে নিয়োগ পাওয়া অ্যাডহক (অস্থায়ী ভিত্তিতে) ডাক্তারদের যারা গ্রামে অবস্থান করছেন না তাদের বহিষ্কারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার রাতে গণভবনে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। এসময় স্বাচিপ সভাপতি স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আফম রুহুল হক সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
 
জানা যায়, নিয়োগ পাওয়ার এক বছরের মাথায় গ্রাম ছেড়ে শহরের হাসপাতালে চলে এসেছেন অ্যাডহক ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া বেশির ভাগ চিকিৎসক। তাদের কেউ কেউ এখন ঢাকায়, আবার অনেকে যোগদানের দিন থেকে অনুপস্থিত।

অভিযোগ আছে, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ), সরকার-সমর্থিত চিকিৎসক সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে এমপিরাও এসব চিকিৎসককে ফিরিয়ে আনতে তদবির করছেন।

জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে গত বছরের জুলাই ও এ বছরের এপ্রিলে দুই দফায় চার হাজার ১৩৩ জনকে অ্যাডহক ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হয়। চিকিৎসকদের পদায়ন করা হয় নিজ জেলা কিংবা আশপাশের উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে।
 
ইউনিয়ন পর্যায়ে নিয়োগ পাওয়া এসব চিকিৎসকের বড় অংশ থাকছেন উপজেলা ও জেলায়। তবে তারা বেতন-ভাতা তুলছেন ইউনিয়ন থেকে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সম্প্রতি এমন ১৩ জনকে সরকারি মেডিকেল কলেজে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে।
 
প্রধানমন্ত্রী বলেন, “স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতি আমার নির্দেশ থাকবে যারা গ্রামে থাকছেন না কিন্তু বেতন ভাতা তুলছেন তাদেরকে বহিষ্কার করুন। নতুন অনেক ছেলেমেয়ে আছে যারা চাকরি চায়।  তিনি বলেন, এমন আচরণ মেনে নেয়া যায় না।”

সূত্রগুলো বলছে, চিকিৎসকদের বদলি নিয়ন্ত্রণ করছেন আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক বদিউজ্জামান ভূঁইয়া (ডাবলু), স্বাচিপের মহাসচিব এম ইকবাল আর্সলান, বিএমএর মহাসচিব শারফুদ্দিন আহমেদ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এই নেতাদের প্রতিনিধি হিসেবে উপ-কর্মসূচি ব্যবস্থাপক ও চিকিৎসা কর্মকর্তা পদের কয়েকজন কাজ করছেন।
 
দেশে ২৪ হাজার চিকিৎসকের প্রয়োজন, আছেন ১৬ হাজার। সে কারণে অনেক চিকিৎসককে প্রেষণে আনতে হচ্ছে।
 
যোগদানের দিন থেকে অনুপস্থিত
ঠাকুরগাঁয় ৪৩ জন অ্যাডহক চিকিৎসকের মধ্যে ১০ জন যোগদানের পর থেকে অনুপস্থিত। শেরপুরে অনুপস্থিত আছেন তিনজন, কুমিল্লায় একজন ও নোয়াখালীতে ছয়জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খন্দকার মো. সিফায়েতউল্লাহ বলেন, প্রান্তিক মেডিকেল কলেজগুলোয় কয়েকজন চিকিৎসককে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নতুন মেডিকেল কলেজগুলোর মধ্যে শুধু যশোরে সাতজনকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। এর বাইরে একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে, দুজনকে ময়মনসিংহে, দুজনকে বগুড়ায়, রংপুর ও দিনাজপুরে একজন করে শিক্ষক পদায়ন করা হয়েছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে