Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই, ২০২০ , ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-১৪-২০২০

উপবৃত্তির জমানো টাকা দিয়ে ২০০ মানুষকে খাবার দিল অষ্টম শ্রেণির সিনথিয়া

উপবৃত্তির জমানো টাকা দিয়ে ২০০ মানুষকে খাবার দিল অষ্টম শ্রেণির সিনথিয়া

নেত্রকোনা, ১৫ এপ্রিল- করোনা ভাইরাস পরি'স্থিতিতে নেত্রকোনা সদর উপজেলার কর্মহীন ২০০ শ্রমজীবী মানুষের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সিনথিয়া। নিজের উপবৃত্তির জমানো টাকা দিয়ে উপজেলার সিংহের বাংলা ইউনিয়নের কান্দুলিয়া গ্রামের খেটে খাওয়াদের মাঝে আলু ডাল তেল লবণসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে ওই শিশু শিক্ষার্থী।

স্থানীয়রা জানায়, নেত্রকোনা সদর উপজেলার কান্দুলিয়া গ্রামের জুয়েল ভাণ্ডারীর কন্যা সিনথিয়া আক্তার। সে স্থানীয় উচ্চবিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ছে। আশপাশের খেটে খাওয়া মানুষের অভাব অন'টন দেখে তার বাবা জুয়েল ভাণ্ডারীকে বলেন, মানুষের জন্য কিছু করার। বাবা-মায়ের দেয়া জমানো টাকাসহ স্কুলের উপবৃত্তির জমানো টাকায় বাবাকে নিয়ে চাল ডালসহ কিছু ত্রাণসামগ্রী ক্রয় করেন। 

স্থানীয় ২০০ জন হ'তদরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষের তালিকা করে তাদের কাছে তা পৌঁছে দেয় সিনথিয়া। ওই গ্রামের আয়েশা খাতুন (৭০) নামে একজন বৃদ্ধা জানান, এমন সময়ে এ ত্রাণ পেয়ে খুবই খুশি। ছোট্ট শিশু যদি ২০০ জনকে ত্রাণ দিতে পারে তাহলে সমাজের বিত্তবানরা কী করে? জনপ্রতিনিধিরা কোথায় আছে।

স্কুলছাত্রী সিনথিয়ার বাবা জুয়েল ভাণ্ডারী বলেন, মেয়ের আবদার করে কিছু টাকা দিতে। এই টাকা দিয়ে সে এমন কাজ করবে ভাবিনি। মানুষ মানুষের জন্য। আর দেশের এমন সময়ে মেয়ের উছিলায় মানুষের জন্য কিছু করতে পেরে আল্লাহর নিকট অনেক শুকরিয়া জানাই। মেয়ের জমানো উপবৃত্তির টাকার সঙ্গে তিনি নিজের হাত থেকে আরও কিছু টাকা যোগ করে ২০০ মানুষের জন্য এ আয়োজন করেন।

কৃষ্ণ গোবিন্দ উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সিনথিয়া আক্তার জানায়, শুধু দেশের নয়, সারা বিশ্বের পরি'স্থিতি এখন ভ'য়াবহ। এ সময় মানুষ খাবারসহ নানারকম দুর্ভো'গে পড়েছে। দেশের সব বিত্তবান মানুষকে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধও করেন শিক্ষার্থী সিনথিয়া।

এ বিষয়ে নেত্রকোনার সংরক্ষিত আসনের এমপি হাবিবা রহমান খান শেফালী জানান, সিনথিয়ার কাছ থেকে আমাদের শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। প্রায় সব শিক্ষার্থীই উপবৃত্তির টাকা দিয়ে নিজের জামা কাপড় কিংবা খাতা-কলম কিনতে খরচ করে। সে নিজের জমানো টাকা দিয়ে যে কাজটা করেছে তার কাছ থেকে সবার শিক্ষা নেয়া উচিত।

তিনি বলেন, এই ছোট্ট বাচ্চা একটা মেয়ে যে দৃষ্টা'ন্ত স্থাপন করলো তা দেখে সমাজের বিত্তবানরা উদ্বু'দ্ধ হোক। ভালো থাকুক সিনথিয়া। তার মতোই নতুন প্রজন্মরা এমন আরও ভালো কাজে এগিয়ে আসুক। ওদের হাতেই আসুক ভবিষ্যতের নেতৃত্ব।

সূত্র: বার্তা২৪.কম

আর/০৮:১৪/১৪ এপ্রিল

নেত্রকোনা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে