Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০ , ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-৩১-২০২০

করোনা মোকাবিলায় জাপানে জরুরী অবস্থার ঘোষণা আসছে!

করোনা মোকাবিলায় জাপানে জরুরী অবস্থার ঘোষণা আসছে!

টোকিও, ০১ এপ্রিল - জাপানের রাজধানী টোকিওতে করোনাভাইরাস আক্রান্তের নিশ্চিত সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। টোকিও কর্মকর্তারা বলেছেন যে মঙ্গলবার সেখানে ৭৮ টি নতুন করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ নিয়ে  টোকিওতে মোট সংক্রমণের সংখ্যা ৫০০ এরও বেশি হয়ে গেছে।

গত মঙ্গলবার করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য টোকিওর গভর্নর কৈকে ইউরিকো প্রধানমন্ত্রী আবে শিনজোর সাথে সাক্ষাত করেন। কৌইক বলেন যে, তিনি আবেকে টোকিওকে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য একটি রেফারেন্স হিসাবে ব্যবহার করতে চান।

কোয়াইক বলেছেন, "টোকিও এখন করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিস্ফোরকরত মত বৃদ্ধির দ্বারপ্রান্তে। আমরা এ জাতীয় পরিস্থিতি রোধ করার চেষ্টা করছি এবং সমাজের বিভিন্ন স্তরে আরও ছড়িয়ে পড়া রোধ করার চেষ্টা করছি। এখনি রাষ্ট্রের সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার।" পুরো জাপানে ২,১০০ এরও বেশি নিশ্চিত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষ রয়েছে  যার মধ্যে বিলাস-তরী ডায়মন্ড প্রিন্সেস ক্রুজ শিপ থেকে ৭১২ টি সংক্রমণ এর অন্তর্ভুক্ত নয়। ক্রুজ জাহাজের ১১ জনসহ মোট ৭৭ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। কর্মকর্তাদের মধ্যে অন্যতম প্রধান উদ্বেগ হ`ল ক্লাস্টার ইনফেকশনের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস।

এর মধ্যে একটি ঘটনা হচ্ছে তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ১৪ ই মার্চ ইউরোপ থেকে জাপানে ফিরে এলে তাঁদের মধ্যে করোনাভাইরাসের ইতিবাচক ফল পাওয়া যায়। তারা সম্ভবত ১০ টি প্রিফেকচার জুড়ে ৩০ জনের বেশি লোকের মধ্যে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া নিশ্চিত করেছে যারা বিভিন্ন সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন এবং বসন্তের ছুটিতে তাঁরা তাঁদের বিভিন্ন শহর শহরে ভ্রমণ করেছেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগে বৃহৎ সংস্থাগুলিকে তাদের কর্মীদের দূর থেকে কাজ করতে উত্সাহিত করতে বাধ্য করছে  যাতে তারা রাশ আওয়ারের ভ্রমণ এড়াতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রী আবে বলেছেন যে তিনি চান মন্ত্রীপরিষদের মন্ত্রীরা বদলে যাওয়া বর্তমান পরিস্থিতিগুলির সাথে খাপ খাইয়ে দেওয়ার জন্য সংস্থাগুলির কাজ আরও সহজ করার জন্য নীতিমালাগুলি সহজ করার বিষয়ে বিবেচনা করুন।

আবে বলেছিলেন, "আমরা কর্মসংস্থান, পারিবারিক অর্থ ও ব্যবসা রক্ষা করব এবং চাহিদা বাড়িয়ে দেব। আমরা আরও বেশি ডিজিটালাইজেশনের মতো সামাজিক সংস্কার প্রচারের জন্য যে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছি তা ব্যবহার করতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।"

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের একটি সিদ্ধান্তে জানান হয় যে, জাপান যুক্তরাষ্ট্র, চীন, যুক্তরাজ্যকে জাপানে প্রবেশ নিষেধাজ্ঞার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করবে। করোনাভাইরাস মহামারীটি ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে জাপান অতিরিক্ত ৪৯ টি দেশ ও অঞ্চল থেকে বিদেশী নাগরিকদের উপর প্রবেশ নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা করে।
গত মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোতেগি তোশিমিতসু এই পরিকল্পনা প্রকাশ করেন। অতিরিক্ত ক্ষেত্রগুলির মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং সমস্ত চীন এবং দক্ষিণ কোরিয়া পাশাপাশি ব্রিটেন এবং গ্রিস অন্তর্ভুক্ত থাকবে। এছাড়া বেশিরভাগ ইউরোপের দেশ এই নিষেধাজ্ঞা তালিকায় থাকবে।

পরে সংশোধিত তালিকায় আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকা এবং মধ্য প্রাচ্যের অংশগুলি সহ মোট ৭৩ টি দেশ এবং অঞ্চলকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। যার মধ্যে বাংলাদেশের নাম নেই।

নিষেধাজ্ঞার তালিকায় থাকা ৭৩ টি দেশ থেকে জাপানে ফিরে আসার পর ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে।

মোতেগি আরও বলেছিলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইউরোপের ৯ টি দেশ ও অঞ্চলগুলির জন্য পর্যায়ের সতর্কতা বাড়িয়ে ৩য় স্তরে উন্নীত করেছে এবং জাপানি নাগরিকদের তাদের ভ্রমণ এড়াতে অনুরোধ করেছে।
৩য় স্থান নির্ধারিত স্তর ব্যতীত সকল দেশ এবং অঞ্চলগুলির জন্য সতর্কতাগুলি ২য় স্তরে উন্নীত করা ছিল। জাপানি  নাগরিকদের এই ধরনের জায়গায় কোনও অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ করার বিরুদ্ধে সতর্ক করা হয়।

সূত্র : বাংলা ইনস্টার
এন এইচ, ০১ এপ্রিল

এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে