Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ৩১ মে, ২০২০ , ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-১০-২০২০

বুড়িমারী স্থলবন্দরে দায়সারাভাবে চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

মো: আজিনুর রহমান


বুড়িমারী স্থলবন্দরে দায়সারাভাবে চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

লালমনিরহাট, ১০ মার্চ- লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরে করোনাভাইরাস শনাক্তে মেডিকেল টিম জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া হ্যান্ড থার্মাল ডিজিটাল স্ক্যানার দিয়ে যাত্রী ও যান চালকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা চলছে দায়সারাভাবে। বন্দরের জিরো পয়েন্টের প্রবেশ মুখে রাস্তার পাশে বসে গাড়ী চালকদের চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষা। মঙ্গলবার (১০ মার্চ) সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ২টা ও দুপুর ২ টা থেকে সন্ধ্য ৬ টা পর্যন্ত ২ সিফট অনুযায়ী চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাজ। জানা গেছে, এ স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন বাংলাদেশ, ভারত, ভূটান নেপাল থেকে গড়ে পাঁচ শতাধিক পাসপোর্টধারী যাত্রী ও প্রায় ৬ শতাধিক পণ্যবাহী গাড়ির চালক চলাচল করে থাকে। শুধুমাত্র জ্বর মাপা হ্যান্ড থার্মাল স্ক্যানার যন্ত্র ছাড়া মেডিক্যাল টিমের কাছে তেমন কিছু নেই।

ভারত থেকে পাসর্পোটধারী যাত্রী বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ভারতীয় অভিবাসন চৌকিতে কোনো চিকিৎসক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেনা। ফলে বাংলাদেশি অংশে সঠিকভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা না হলে ভারত থেকে আসা পাসর্পোটধারী যাত্রীর মাধ্যমে “করোনাভাইরাস” বাংলাদেশে প্রবেশ করার আশঙ্কা রয়েছে। ভারত থেকে আসা পাসর্পোটধারী যাত্রী শেরপুর জেলার গোবীন্দ চন্দ্র সাহা জানান, ‘ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ভারতীয় ইমিগ্রেশনে কোন স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়নি। বাংলাদেশ ইমিগ্রেশনে কর্তব্যরত চিকিৎসক জিজ্ঞেস করে কোথায় থেকে এসেছেন, জ্বর ছিল কিনা এবং তাপমাত্রাও মেপে দেখেছে।

সরেজমিনে মঙ্গলবার (১০ মার্চ) বুড়িমারী স্থলবন্দরের আর্ন্তজাতিক অভিবাসন (আইসিপি) এলাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দুটি মেডিকেল টিমের একটি কাস্টমস্ কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে পাসর্পোটধারী যাত্রীদের ও অন্যটি জিরোপয়েন্ট সড়ক হয়ে প্রবেশ মুখে রাস্তার পাশে চালকদের হ্যান্ড থার্মাল ডিজিটাল স্ক্যানার দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা নির্ণয় করতে দেখা যায়। এ সময় পাসর্পোটধারী যাত্রী ও চালকদের প্রত্যেককে শরীরে জ্বর, মাথা ব্যথা, ঠান্ডা কাঁশি, শরীর ব্যথা অনুভবসহ কোনো ধরণের উপসর্গ রয়েছে কিনা জিজ্ঞেস করা ছাড়াও কোথা থেকে এসেছেন কোথায় থাকেন সে বিষয়েও তথ্য সংগ্রহ করে তালিকা করা হচ্ছে।

পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ- সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো. রাসেল আহম্মেদ বলেন, ‘পাসর্পোটধারী যাত্রী ও চালকদের করোনাভাইরাস সংক্রমন বিষয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে তাপমাত্রা মাপা হচ্ছে। যদি কারো মধ্যে করোনাভাইরাসের উপসর্গ পাওয়া যায় তাহলে তাকে বিশেষ সতর্কতার সাথে উপজেলা বা জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পযর্বেক্ষণে রাখা হবে। এরপর ভাইরাস শনাক্ত করতে প্রয়োজনে ঢাকায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইডিসিআর) পাঠানো হবে। তবে গতকাল পর্যন্ত এ ধরণের কাউকে পাওয়া যায়নি।’

সূত্র : বিডি২৪লাইভ
এম এন  / ১০ মার্চ

লালমনিরহাট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে