Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই, ২০২০ , ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-০৫-২০২০

একাধিক মন্ত্রীর সাথে ছবি মেহেদীর, অভিযোগ পাঁচ হাজার মানুষ পাচারের 

একাধিক মন্ত্রীর সাথে ছবি মেহেদীর, অভিযোগ পাঁচ হাজার মানুষ পাচারের 

মেহেরপুর, ০৫ মার্চ- মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার মহাজনপুর ইউনিয়নের যতারপুর গ্রামের মোস্তাকিন আহমেদ টুলুর বড় ছেলে মেহেদী হাসান বিশ্বাস ওরফে বিজন বিশ্বাস। ব্রুনেইয়ে প্রায় পাঁচ হাজার নিরীহ মানুষকে পাচারের অভিযোগ উঠেছে মেহেদীর বিরুদ্ধে। সম্প্রতি তার তিন সহযোগীকে গ্রেপ্তারের পর এ বিষয়ে আলোচনার ঝড় ওঠে সারা দেশে। ব্রুনেই আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন মেহেদী।

মেহেদী হাসানের মেজো ভাই এলাকায় চাষাবাদ দেখাশোনা করেন এবং ছোট ভাই রাজধানীতে লেখাপড়া করেন। বাবা আমদানি-রপ্তানির ব্যবসা করতেন। তিনি বর্তমানে প্যারালিসিসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন।

মেহেদীর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, তার বাড়িতে কিছুদিন আগে একটি দ্বিতল ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এ ছাড়া গ্রামে একটি ডেইরি ফার্ম তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। বাড়ির মূল গেটে বাইরে থেকে তালা লাগানো থাকায় ভেতরে যাওয়া সম্ভব হয়নি। বাড়িতে কেউ আছে কি না তাও জানা যায়নি। তবে মেহেদী মানবপাচারকারীদের হোতা—এ বিষয়ে গ্রামবাসী বা তার আত্মীয়-স্বজনরা কিছুই জানে না। মেহেদী হাসানকে ভালো ছেলে হিসেবেই জানে এলাকাবাসী। এ ছাড়া তাদের পূর্বপুরুষরাও প্রভাবশালী ও সম্পদশালী। মেহেদীর দাদা মাদার আলী বিশ্বাস তিনবারের ইউপি চেয়ারম্যান। তার বড় চাচা মওলা বক্স বেবীও তিনবারের ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। মেহেদীর পরিবারের সবাই বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকলেও বর্তমানে তারা আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেন বলে দাবি মেহেদীর চাচা বিল্লাল হোসেন কটার।

বিল্লাল হোসেন কটা জানান, তাদের এক ভাই মাসুদ রানা ওরফে এনামুল দীর্ঘদিন ধরে ব্রুনেইয়ে থাকতেন। মেহেদীর বাবা প্যারালিসিসে আক্রান্ত হওয়ায় মানবিকতা দেখিয়ে এনামুল মেহেদীকে ব্রুনেইয়ে নিয়ে যান ২০১২-১৩ সালের দিকে। এর কিছুদিন পর এনামুল দেশে ফিরে আসেন। মেহেদী মানবপাচারকারী কি না—এ বিষয়ে তারা কিছু জানেন না বলে দাবি করেন বিল্লাল। তবে পরে তিনি মেহেদীর পক্ষে প্রতিবেদন করতে সুপারিশ করেন।

মেহেদীর প্রতিবেশী জালাল উদ্দিন বলেন, ‘আমরা এলাকায় তাকে ভালো ছেলে হিসেবে জানি। তারা বুনিয়াদি মানুষ। তবে বিদেশে কোনো অন্যায়-অপকর্ম করে কি না জানি না।’

আরেক প্রতিবেশী শফিকুল ইসলাম রাহিন বলেন, ‘কিছুদিন ধরে শুনছি মেহেদী কি একটা ঝামেলায় পড়েছে। দূতাবাস নাকি তার পাসপোর্ট আটকে দিয়েছে।’

এদিকে মেহেদী হাসান ওরফে বিজন বিশ্বাসের ফেসবুক আইডি রয়েছে বিজন বিশ্বাস (Bizon Bisswas) নামে। এই আইডির প্রোফাইল পিকচারে একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর সঙ্গে মেহেদীর ছবি রয়েছে। বিভিন্ন সময়ে ওই মন্ত্রীর সঙ্গে ছবিও রয়েছে তার। সম্প্রতি মন্ত্রী মেহেরপুর এলে মেহেদীকে তার সঙ্গে দেখা গেছে বিভিন্ন ছবিতে। এ ছাড়া কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গে তার ছবি দেখা গেছে।

মেহেদী হাসানের মোবাইল ফোন নম্বরে যোগাযোগ করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

সূত্র: পূর্বপশ্চিমবিডি

আর/০৮:১৪/০৫ মার্চ

মেহেরপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে