Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ , ১৯ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-২৪-২০২০

‘ক্ষমতাসীনরা দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাচ্ছে’

‘ক্ষমতাসীনরা দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাচ্ছে’

সিলেট, ২৪ ফেব্রুয়ারি- ভাত ও ভোটের নিশ্চয়তার জন্য ‘গদি বদলের’ সঙ্গে সঙ্গে ‘ব্যবস্থা বদলের’ লড়াইকেও জোরদার করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

দেশব্যাপী কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সিপিবি সিলেট বিভাগীয় সমন্বয় কমিটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, আমরা বাংলাদেশকে স্বৈরাচারের হাত থেকে রক্ষার আন্দোলনে অবতীর্ণ হচ্ছি। তাই কর্মসূচি নিয়ে জনগণের সামনে এসেছি। আমরা একদিন পাকিস্তান সরকারের হাত থেকে দেশ রক্ষা করতে সংগ্রামে নেমেছিলাম, আপনারাও নেমেছিলেন জান বাজি রেখে। পাকিস্তানি সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে সর্বাত্মক প্রতিরোধ গড়ে তুলে সবাই মিলে দেশকে মুক্ত করেছি। কিন্তু আজকের দেশ কি ১৭ কোটি মানুষের জন্য মুক্ত? না, সবার জন্য মুক্ত হয়নি।

তিনি আরও বলেন, দেশ আজ দুই ভাগে বিভক্ত। একদিকে এক শতাংশ লুটেরা ধনিকগোষ্ঠী, অন্যদিকে ৯৯ শতাংশ শ্রমিক-কৃষক-মেহনতি মানুষ। আমাদের সংগ্রাম হচ্ছে ৯৯ ভাগ মানুষকে দেশের ৯৯ শতাংশ সম্পদের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার। কিছু সংখ্যক লোক ৯৯ ভাগ মানুষের সম্পদ লুটেপুটে খাবে, সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলবে, এটা মেনে নেব না। সাধারণ মানুষ শোষিত হচ্ছে, বৈষম্যের শিকার হচ্ছে প্রতিনিয়ত। দেশের আইন-কানুন, সুযোগ-সুবিধা সবকিছুই গরিবদের বিরুদ্ধে। প্রশ্ন করি, গরিব-মেহনতি মানুষরা কি সব সময় অধিকার বঞ্চিতই থাকবে?

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ক্ষমতাসীনরা এখন একত্রিত হয়েছে লুটপাটে। বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছে। ক্ষমতাসীনরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তির সঙ্গে হাত মিলিয়ে দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িকতার বীজ বুনছে।

‘গণতন্ত্রহীনতা ও লুটপাট রুখো। গদি-নীতি-ব্যবস্থা বদলাও। স্বদেশ বাঁচাও।’ স্লোগান নিয়ে সিলেট নগরের কিন ব্রিজ মোড়ে অনুষ্ঠিত এ জনসভায় সভাপতিত্ব করেন সিলেট বিভাগীয় সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমন। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সিপিবির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কমরেড শাহ আলম, প্রেসিডিয়াম সদস্য অনিরুদ্ধ দাস অঞ্জন, আব্দুল্লাহ কাফি রতন, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক জলি তালুকদার।

আরও বক্তব্য দেন সিপিবি সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি চিত্ত রঞ্জন তালুকদার, মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি মকবুল হোসেন, হবিগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান, সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি হাবিবুল ইসলাম খোকা, সিপিবি ঢাকা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল হক রুবেল। জনসভা পরিচালনা করেন সিপিবি মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড নিলিমেশ ঘোষ বলু ও ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক নাবিল এইচ।

জনসভার শুরুতে উদীচী ও সাংস্কৃতিক ইউনিয়নের স্থা্নীয় শিল্পীরা গণসঙ্গীত পরিবেশন করেন। জনসভা শেষে সিপিবির নেতাকর্মীরা একটি মিছিল বের করেন। মিছিলটি সুরমা পয়েন্ট, কোর্ট পয়েন্ট, জিন্দাবাজার, চৌহাট্টা হয়ে আম্বরখানা পয়েন্টে ঘুরে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/২৪ ফেব্রুয়ারি

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে