Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০ , ১৮ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-২১-২০২০

ভারতে দুই স্বর্ণখনির সন্ধান, মজুত ৩৩৫০ টন

ভারতে দুই স্বর্ণখনির সন্ধান, মজুত ৩৩৫০ টন

লখনউ, ২১ ফেব্রুয়ারি- ভারতের উত্তর প্রদেশে দুটি স্বর্ণখনির সন্ধান পেয়েছে ভূতত্ত্ববিদরা। উত্তর প্রদেশের মাওবাদী উপদ্রুত সোনভদ্র জেলায় খনি দুটিতে ৩ হাজার ৩৫০ টন স্বর্ণ মজুত রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। স্বর্ণখনির এলাকা নির্ধারিত সাত সদস্যের একটি টিম গঠন করেছে প্রদেশটির খনি বিভাগ। ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দুই দশক ধরে অনুসন্ধান চালানোর পর জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া এবং উত্তরপ্রদেশ সরকারের ভূতত্ত্ব ও খনি দফতর এ খনির সন্ধান পেয়েছে।

ভূতত্ত্ববিদরা বলছেন, খনি দুটিতে প্রায় ৩ হাজার ৩৫০ টন সোনা মজুত রয়েছে, যা ভারতের বর্তমান মজুতের প্রায় পাঁচগুণ। বর্তমানে ভারতে ৬২৬ টন সোনা মজুত রয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআইকে খনি কর্মকর্তা কেকে রাই বলেছেন, খনি দুটি থেকে সোনা উত্তোলনের জন্য কোম্পানিকে লিজ দেয়ার কথা ভাবছে সরকার। এজন্য জরিপের কাজ চলমান রয়েছে। তিনি আরও বলেন, সোনভদ্র জেলার সোনাপাহাড়ি এবং হারদি এলাকায় খনি দুটির সন্ধান পাওয়া গেছে। জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (জিএসআই) জানিয়েছে, সোনাপাহাড়ি খনিতে ২ হাজার ৭০০ টন এবং হারদি এলাকায় ৬৫০ টন সোনা মজুত রয়েছে।

খনির এলাকা নির্ধারণ ও মজুতের সঠিক অবস্থান জানতে (জিও-ট্যাগিং) ইতোমধ্যে সাত সদস্যের একটি টিম গঠন করেছে উত্তর প্রদেশের খনি দফতর। টিম বৃহস্পতিবার ওই এলাকা পরিদর্শন করেছে।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, ‘ভূতাত্ত্বিক অবস্থানগত কারণে সোনভ্রদ খনিতে সোনা উত্তোলন সহজ হবে। খনি উত্তোলনের দায়িত্ব দিতে সরকার খুব শিগগিরই নিলাম ডাকার প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছে। এছাড়া আরও যেসব প্রক্রিয়া আছে তা সম্পন্ন করা হবে।’

ভারতীয় পাক্ষিক ম্যাগাজিন বিজনেস টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোনা বাদেও ওই এলাকায় ইউরেনিয়ামের মতো খুবই মূল্যবান খনিজ পাওয়া যায় কি না তা নিয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন সরকারি কর্মকর্তারা। কারণ উত্তর প্রদেশের বুন্দেলখন্দ ও ভিদ্যান জেলায় সোনা, হীরা, প্লাটিনাম, চুনাপাথর, গ্রানাইট, কোয়ার্টস ও চীনামাটির মতো মূল্যবান খনিজ প্রচুর পরমাণে আছে।

সোনভদ্র জেলায় স্বর্ণ অনুসন্ধানের কাজ শুরু হয় ১৯৯২-৯৩ সালে। তবে ব্রিটিশরাই প্রথম এই জেলায় স্বর্ণের মজুত অনুসন্ধানের বিষয়ে উদ্যোগ নেয় বলে জানা যায়।

জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়াতে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন ড. পৃথিবী মিশ্র। তিনি ২০১১ সালে অবসর নেন। ওই সময় তিনি বলেছিলেন, ‘উত্তর প্রদেশের সোনভদ্র জেলায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ, ১৮ মিটার পুরু এবং ১৫ মিটার প্রস্থ স্বর্ণের শিলা পাওয়া গেছে।’

বিশ্বব্যাপী স্বর্ণ জরিপকারী স্বতন্ত্র সংস্থা ওয়ার্ল্ড গোল্ড কাউন্সিলের (ডব্লিউজিসি) তথ্যমতে, বর্তমানে ভারতে মজুতকৃত স্বর্ণের পরিমাণ ৬২৬ টন। সে হিসাবে দুই খনির মজুত দিয়ে দেশটিতে মোট স্বর্ণের মজুত দাঁড়াবে ৩ হাজার ৯৭৬ টন।

বর্তমানে স্বর্ণ মজুতের দিক দিয়ে বিশ্বে প্রথম স্থানে রয়েছে ৮ হাজার ১৩৩ টন। এর পরেই রয়েছে জার্মানির, ৩ হাজার ৩৬৬ টন।

এছাড়া ইতালির ২ হাজার ৪৫১, ফ্রান্সে ২ হাজার ৪৩৬, রাশিয়ায় ২ হাজার ২৪১, চীনে ১ হাজার ৯৪৮, সুইজারল্যান্ডে ১ হাজার ৪০ এবং জাপানে ৭৬৫ টন স্বর্ণ মজুত রয়েছে।

আর/০৮:১৪/২১ ফেব্রুয়ারি

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে