Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০ , ১৬ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-১৮-২০২০

হাবিপ্রবির শিক্ষিকাকে অশ্লীল গালিগাজ করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মোঃ রাসেল ইসলাম


হাবিপ্রবির শিক্ষিকাকে অশ্লীল গালিগাজ করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

দিনাজপুর, ১৮ ফেব্রুয়ারি- দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য ও ডীন প্রফেসর ড. ফাহিমা খানমকে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় গালিগালাজ করার প্রতিবাদে এক গাড়ী চালকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ এবং পোস্ট গ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের শিক্ষক, কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রিজেন্ট বোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম। সেই রিজেন্ট বোর্ডের সম্মানিত সদস্য,মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদের সভাপতি এবং পোস্ট গ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. ফাহিমা খানমকে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় গালিগালাজ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি চালক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। গাড়ি চালক মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের এধরণের ধৃষ্টতা এটাই নতুন নয়। এর পূবে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী এই কর্মচারী শিক্ষক ফোরামের একটি সভায় পূর্বানুমতি ব্যতীত প্রবেশ করে প্রশাসনের সহায়তাকারী শিক্ষকদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে লাঞ্চিত করেন। এছাড়াও ঐ কর্মচারীর নেতৃত্বে ৩/৪ জন উশৃঙ্খল কর্মচারী বিভিন্ন সময়ে প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকবৃন্দকে কুরুচিপূর্ণভাবে ব্যঙ্গ করে থাকেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরিও করেন উক্ত শিক্ষকগণ। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রশাসনিক দায়িত্বে থাকা শিক্ষক-কর্মকর্তাদের সামনে পেলেই কটুক্তি করে গালিগালাজ করা তার নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। তার এ ধরণের কর্মকান্ডের জন্য সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোশাররফ হোসেন মিঞাঁ ও প্রফেসর ড.এম. আফজাল হোসেনের সময় ওই কর্মচারীকে ওএসডি করে রাখেন। সদ্য সাবেক উপাচার্যের সময় সে অনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে অবৈধ কয়েকটি ইনক্রিমেন্ট গ্রহণ করে। সম্প্রতি রিজেন্ট বোর্ড তা বাতিল করে দেয়। গাড়ি চালক মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে তার সাবেক স্ত্রী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছিল। একটি বিশেষ মহলের আস্কারা পেয়ে সে দিন দিন আরও ভয়ংকর হয়ে উঠছে।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডাঃ ফজলুল হক বলেন,বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন নারী প্রফেসর এভাবে অপমানিত হবেন তা কল্পনা করাও কঠিন। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। অন্যথায়আমরা আরো কঠোর অবস্থানে যেতে বাধ্য হব।

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধেবিশ্বাসী গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদের কার্যানর্বাহী কমিটির সদস্য প্রফেসর ড.ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. তারিকুল ইসলাম,সাংগঠনিক সম্পাদক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ, কার্যকরী সদস্য, প্রফেসর ড. খালেদ হোসেন প্রমুখ।

এ ব্যাপরে জানতে চাইলে গাড়ী চালক ও প্রগতিশীল কর্মচারি পরিষদের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন,আমি ম্যাডাম কেন কাউকে কোন গালাগালি করিনি। বরং সোমবার সকাল ১১ টার সময় উপাচার্য পন্থি কিছু ছাত্র আমাকে প্রফেসর ড. ফাহিমা খানমকে কি বলেছি এ নিয়ে লাঞ্চিত করে। পরে হাবিপ্রবি অনাচার নিপিড়ন বিরোধী মঞ্চের শিক্ষকরা এসে আমাকে রক্ষা করে। আমরাও বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ ও মানবন্ধন করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ
এন কে / ১৮ ফেব্রুয়ারি

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে