Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২৬ মে, ২০১৯ , ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (36 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২০-২০১১

রবীন্দ্রনাথের ১৫০তম সার্ধশতবর্ষ উদযাপন করলো উদীচী যুক্তরাষ্ট্র

হাকিকুল ইসলাম খোকন


রবীন্দ্রনাথের ১৫০তম সার্ধশতবর্ষ উদযাপন করলো উদীচী যুক্তরাষ্ট্র
প্রবাসে বাংলা ভাষা কৃষ্টি-সংস্কৃতি বিকাশের ধারাবাহিক কর্মকা-ে রবীন্দ্র সার্ধশতবর্ষ উপলক্ষে এবারে উদীচী যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ নিবেদন ছিল কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সর্বশ্রেষ্ঠ গীতিনৃত্যনাট্য চিত্রাঙ্গদা। খবর বাপসনিঊজ.
বছরের শুরুতেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫০তম সার্ধশতবর্ষ ভারত-বাংলাদেশ যৌথভাবে উদ্যাপনের সিদ্ধান্ত ও উদ্যোগ গ্রহণ করে। পাশাপাশি দু’দেশের বিভিন্ন প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক সামাজিক সংগঠন বছরব্যাপী নানা কর্মসূচী গ্রহণ করে। এসব কর্মসূচী ও অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট রবীন্দ্রবিশেষজ্ঞ ও সুনামখ্যাত শিল্পীরা অংশগ্রহণ করেন। শুধু ভারত-বাংলাদেশেই নয় বিশ্বব্যাপী বাংলা ভাষার এ স্রষ্টার অমর কীর্তি তুলে ধরার আয়োজন চলে। তারই অংশ হিসেবে উদীচী সার্ধশতবর্ষটি বিশেষ গুরুত্ব ও মর্যাদায় উদ্যাপনের কর্মসচী গ্রহণ করে। লক্ষ্যণীয় ব্যাপার হলো এই প্রবাসে রবীন্দ্রনাথের সার্ধশতবর্ষ সম্ভবত কেবলমাত্র উদীচীই পালন করলো। আর কোন উদ্যোগ লক্ষ্য করা যায়নি। সম্ভবত এটাও সত্য উদীচী তাদের সীমিত সীমাবদ্ধতার মধ্যও প্রতিবছর রবীন্দ্র-নজরুল-সুকান্ত জন্মজয়ন্তী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে আসছে। উল্লেখযোগ্য যে, এবার বাংলাদেশের স্বাধীনতার চল্লিশতম পূর্তি দিবসটিও উদীচী গভীর শ্রদ্ধা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মননার মাধ্যমে পালন করেছে।
        রবীন্দ্র সার্ধশতবর্ষ অনুষ্ঠান বিশেষ মর্যাদায় তুলে ধরতে বিশেষ আলোচনা এবং গীতিনৃত্যনাট্য চিত্রাঙ্গদা নিবেদনের কর্মসূচী গ্রহণ করা হয় এবং বছরের শুরু থেকেই রিহার্সেল চলতে থাকে। উদীচীর সাধারণ সম্পাদক, উদীচী স্কুল অব পারফর্মিং আর্টস-এর অধ্যক্ষ এবং একাধারে গীতিকার, সুরকার, বংশীবাদক, গায়ক ও সংগঠক জীবন বিশ্বাস উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী ও স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সমন্বয়ে গড়ে তুলেন কর্মসূচীপর্ব। দীর্ঘ এক বছরের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় তারই পরিচালনায় গত রবিবার ১৮ই ডিসেম্বর এর বাস্তব মঞ্চায়ন হয় এষ্টরিয়ার পিএস-২৩৪এ। হলভর্তি দর্শক শ্রোতা দৃষ্টিনন্দিত অনুষ্ঠানটি দেখে উদীচীকে অভিনন্দিত করেন আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে। অনেকে মন্তব্য করতে শোনা যায় ’অভূতপূর্ব এ অনুষ্ঠানটি দীর্ঘদিন অন্তরে রেখাপাত করে যাবে’।
       চিত্রাঙ্গদা গীতিনৃত্যনাট্যের আলোকে নীল আকাশে মেঘের আভা ও প্রাকৃতিক দৃশ্যপটে মঞ্চ সজ্জার দায়িত্ব অর্পন করা হয় বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা চিত্রকর আকা আ, কা, বাবুলের ওপর। মঞ্চের পেছনে বিশেষভাবে বেষ্টনী করে শিল্পীদের বসার স্থান করা হয়। মঞ্চসজ্জার প্রাকৃতিক দৃশ্য পেছনে পুরো মঞ্চে লম্বা লাইনে বসা শিল্পীরা তারই মাঝে নৃত্যশিল্পীদের উপস্থাপন দৃশ্যপট ছিল একান্তই অভূতপূর্ব।
       শুরুতেই উদীচীর সম্মানিত সভাপতি ড.মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আনুষ্ঠানিকভাবে অনুষ্ঠানের সূচনা ঘোষণা করেন। তারপর উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী মমবাতি হাতে পরিবেশন করেন আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে গানটি। তারপর পরিবেশিত হয় সত্যজিত রায়ের পরিচালনায় রচিত রবীন্দ্রনাথের ডকুমেন্টারী। উদীচীর পক্ষ থেকে বিশ্ব বরেণ্য এই মহামানবের ওপর একটি লিখিত শ্রদ্ধাঞ্জলি পাঠ করেন সাবিনা হাই উর্বি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রবীণ অধ্যাপক আলী আনোয়ার রবীন্দ্রনাথ ও আধুনিকতা এবং রবীন্দ্রনাথের শ্রেষ্ট রচনা গীতিনৃত্যনাট্য চিত্রঙ্গদার বিষদ ব্যাখ্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মহাভারতের একটি পৌরাণিক কাহিনীর আধুনিক রূপান্তর ঘটিয়েছেন চিত্রাঙ্গদা গীতিনৃত্যনাট্যে। বিশিষ্ট লেখক হাসান ফেরদৌস রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে এদেশীয় শ্রোতা দর্শকদের উদ্দেশ্যে ইংরেজীতে বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। তারপর জীবন বিশ্বাসের পরিচালনা ও উপস্থাপনায় শুরু হয় গীতিনৃত্যনাট্য চিত্রাঙ্গদা। এক নাগাড়ে দীর্ঘ এক ঘন্টার বেশি সময় পিনপতন নীরবতায় দর্শক শ্রোতারা অবলোকন করেন অনুষ্ঠানটি। মাঝে মধ্যে অবলোকনের গভীরে নীবিড়ভাবে মগ্ন হওয়া থেকে হঠাৎ স্বাভাবিকতা ফিরে পেতে দেখা গেছে অনেককে। সংগীতে ছিলেন শফি চৌধুরী, জীবন বিশ্বাস, জয়ন্তী ভট্টাচার্য, সাবিনা হাই উর্বি। সুরাইয়া আলম লাকী, অনমিকা মজুমদার, ফারুক ফয়সল, কৃষ্ণা সরকার, সুতপা ম-ল, কণিকা ধর, সৌরেন দাশ, নাজমুল কাউয়ূম নিয়াজ, সুলেখা পাল, মুক্তা ধর, বৃষ্টি দত্ত। নৃত্যে-অনুপ দাশ, অন্তরা সাহা, ময়ুরী ভট্টাচর্য্য, অন্তা রায়, উদিতা তন্বী, মৃদুলা আলম, মার্জিয়া স্মৃতি, নাঈমা খানম, আদিবা রহমান, নাযিফা তাবাস্সুম, দীপ্ত রায়, অনির্বাণ রায়, শোভন বালা।
বিভিন্ন ভূমিকায় অংশগ্রহণকারী শিল্পীবৃন্দ- নৃত্যঃ অনুপ দাশ, সংগীতঃ শফি চৌধুরী, পাঠাভিনয়ঃ ফারুক ফয়সল। চিত্রাঙ্গদাঃ নৃত্য-অন্তরা সাহা, অন্তা রায়, সংগীতঃ জয়ন্তী ভট্টচার্য, অনামিকা মজুমদার, কণিকা ধর, পাঠাভিনয়ঃ সাবিনা হাই উর্বি। মদন ঃ নৃত্য-উদিতা তন্বী, সংগীত ঃ জীবন বিশ্বাস। সখীগনঃ ময়ূরী ভট্টচার্য্য, উদিতা তন্বী, মৃদুলা আলম, নাঈমা খানম, আদিবা রহমান, নাযিফা তাবাস্সুম, মর্জিয়া স্মৃতি। গ্রামবাসীঃ দীপ্ত রায়, অনির্বাণ রায়, শোভন বালা। নৃত্য পরিচালনা এবং অর্জুনের ভূমিকায় অভিনয়ঃ অনুপ দাশ, সংগীত পরিচালনা, পরিকল্পনা এবং মদনের কণ্ঠঃ জীবন বিশ্বাস।
মঞ্চ সহযোগিতায় ঃ তুষার রায়, মাসুদুল ইমাম, জেবু চৌধুরী, নাজমুল কাউয়ূম নিয়াজ, গোপন সাহা। পোষাক পরিকল্পনাঃ জেবু চৌধুরী, সাবিনা হাই উর্বি ও অনুপ দাশ। তবলায়ঃ তপন মোদক, মন্দিরায়ঃ শহীদউদ্দীন, কী-বোর্ডে-কামরুল আলম জুয়েল, সাউ- এবং আলোক প্রক্ষেপনঃ লিটন। ব্যবস্থাপনায় সুব্রত বিশ্বাস। ব্যবস্থাপনা সহযোগিতায়ঃ ডাঃ আমর আশরাফ, শফি চৌধুরী, মিজান রহমান, মীরা রহমান, ডাঃ সামিনা আশরাফ, অঞ্জনা সাহা।
 এ উপলক্ষ্যে রবীন্দ্রনাথের বিভিন্ন দিক নিয়ে বিশিষ্টজনের লেখা সম্বলিত একটি আকর্ষণীয় স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়। এটির প্রচ্ছদ একেছেন জীবন বিশ্বাস এবং সম্পাদনা করেছেন উদীচীর সিনিয়র সহসভাপতি সুব্রত বিশ্বাস। সংকলনটির সম্পাদকীয়টি ছিল এরূপ-’
         ‘১৫০ বছর আগে ১২৬৮ বঙ্গাব্দের এই দিনে কলকাতায় জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে জন্মেছিলেন বাঙালীর আত্মিক মুক্তি ও সার্বিক স্বনির্ভরতার প্রবক্তা, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের উৎকর্ষের মূল নায়ক কাব্যগীতির শ্রেষ্ঠ স্রষ্টা, দ্রষ্টা ও ঋষি কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। যাঁর লেখা দর্শন, চিন্তা চেতনা বহুমাত্রিক আলোকচ্ছটায়, ঔজ্জ্বল্য মহিমায় বাঙালী জতিসত্তা হয়েছে মহিমান্বিত ও গৌরবান্বিত। সেই কবিরই ১৫০তম জয়ন্তী আজ বিশ্ব জুড়ে বাঙালি উদ্যাপন করছে হৃদয় উৎসারিত আবেগ ও শ্রদ্ধায়। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায় দিবসটি পালিত হচ্ছে বিশেষ মর্যাদায়।
      বাঙালীর এই কবি এমন এক সময় জন্মেছিলেন যখন রাষ্ট্র ছিল পরাধীন, চিন্তা ছিল প্রথাগত ও অনগ্রসর, বাংলাভাষা ছিল অপরিণত। তিনিই একাধারে এই ভাষা ও সাহিত্যকে বিশ্বমানে উন্নীত করার পাশাপাশি জাতির চিন্তা জগতে আধুনিকতার উন্মেষ ঘটিয়েছেন। বাঙালীর মানস গঠনে পালন করেছেন অগ্রদূতের ভূমিকা। সত্য, সুন্দর, ন্যায় ও কল্যাণের পথে বাঙালী মননকে বিশ্বমানে উন্নীত করে জাতিকে চিরকৃতজ্ঞতাবোধে আবদ্ধ করে গেছেন। রবীন্দ্রনাথের তথ্য প্রমাণ একথাই বলে, শিল্পসাহিত্য ক্ষেত্রে তাঁর মতো বহুমাত্রিক বিশ্ব সংস্কৃতি অঙ্গনে দ্বিতীয়টি দেখা যায় না। সেক্সপিয়র, গ্যেটে, তলস্তয় এসব বিশ্বখ্যাত প্রতিভাবানদের কেউই রবীন্দ্রনাথের মতো বহুমাত্রিক স্রষ্টা ছিলেন না। রবীন্দ্রনাথ কবিতা, গান, নাটক, গল্প-উপন্যাস, দর্শন এবং সমাজ রাজনীতির বিশ্লেষণে বহুদিকে প্রসারিত। এমনকি চিত্রশিল্পেও বাদ পড়েননি। সেকারণে তিনি বিশ্ব পরিসরে ব্যতিক্রমী প্রতিভা। ১৫০তম জন্মদিনে উদীচী যুক্তরাষ্ট্র তাই কৃতজ্ঞচিত্তে জানায় জাতির পক্ষ থেকে গভীর শ্রদ্ধা।  

যূক্তরাষ্ট্র

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে