Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০ , ১৪ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-১০-২০২০

ধর্ষণের ভিডিও ধারণ, বান্ধবীর মামলায় রাবি শিক্ষার্থী রিমান্ডে

ধর্ষণের ভিডিও ধারণ, বান্ধবীর মামলায় রাবি শিক্ষার্থী রিমান্ডে

রাজশাহী, ১০ ফেব্রুয়ারি- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক ছাত্রীকে মেসে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের ঘটনা ঘটেছে। পরে তা ইন্টারনেটে তা ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে তারই বন্ধু অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাহফুজুর রহমান সারদ। 

পুলিশ এ ঘটনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাহফুজুর রহমান সারদকে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রাজশাহী মহানগর মুখ্য হাকিম আদালত-৫ এর বিচারক সেলিম রেজা শুনানি শেষে তার দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মতিহার থানার ওসি এসএম মাসুদ পারভেজ জানান, ধর্ষণ ও তার ভিডিও ধারণের ঘটনার মামলায় সাভারের মাহবুবুর রহমানের পুত্র মাহফুজুর রহমানের তিনদিনের রিমান্ড চেয়ে রোববার আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। সোমবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। সোমবার বিকেলে তাকে থানা হেফাজতে এনে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে মতিহার থানার (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ জানান, গত ২৪ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮ টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাহফুজুর রহমান সারদ (২২) তার বান্ধবি একই বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক ছাত্রীকে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে কাজলা সাঁকপাড়া এলাকায় তার মেসে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে জোর করে ধর্ষণ করে। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তার বন্ধু নগরীর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্র প্লাবন সরকার, রাফসান, জয়, জীবন এবং বিশালকে দিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করানো হয়। ধর্ষণের পরে ওই ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে মাহফুজুর রহমান সারদ। তার দাবি করা টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়া হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। ওইদিন গভীর রাতে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ছেড়ে দেয়া হয়। পরে ওই ছাত্রী ধর্ষণের বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানান।

গত ২৭ জানুয়ারি দুপুরে ধর্ষণের শিকার রাবির ওই ছাত্রী তার বাবা ও মাকে নিয়ে মতিহার থানায় একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়ের করার পরেই মতিহার থানা পুলিশের একটি টিম অভিযান চালিয়ে ধর্ষক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র এবং সাভার এলাকার মাহবুবুর রহমানের ছেলে মাহফুজুর রহমান সারদ (২২) ও তার দুই বন্ধু প্লাবন তালুকদার (২১) এবং রাজশাহীর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্র রাফসানকে (২২) গ্রেফতার করে। 

গ্রেফতারের পরে তাদের কাছে থেকে ধর্ষণের ভিডিওসহ মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার সাথে জড়িত ধর্ষক মাহফুজুর রহমানের দুই বন্ধু মতিহার থানার কাজলা এলাকার জীবন (২৫) ও জয়কে (২২) গ্রেফতার করা হয়। মামলার ছয় আসামীর মধ্যে পাঁচজনকেই পুলিশ গ্রেফতার করলেও অপর আসামী বিশাল পলাতক রয়েছে।

এদিকে মেসটির মালিক হাসান আলী জানান, তিন মাস আগে ওই ছাত্রদের বাড়ি ভাড়া দিয়েছিলেন। তারা মেস হিসেবে বাড়ীটি নিলেও একমাস পরে তাদের আচরণ দেখে সুবিধাজনক মনে হয়নি। তখন তিনি মেস ছেড়ে দিতে বলেছিলেন। কিন্তু তারা অনুরোধ করে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত থাকতে চায়। এর মধ্যেই এমন ঘটনার খবর পান তিনি।

সূত্র : সমকাল
এন কে / ১০ ফেব্রুয়ারি

রাজশাহী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে