Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০ , ১৫ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-০৭-২০২০

সিলেটে মুখোমুখি তাবলিগের দুই পক্ষ, কঠোর অবস্থানে পুলিশ

সিলেটে মুখোমুখি তাবলিগের দুই পক্ষ, কঠোর অবস্থানে পুলিশ

সিলেট, ০৭ ফেব্রুয়ারি - তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থানের কারণে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। সাদপন্থীরা দোয়া মাহফিলের জন্য মৌখিক অনুমতি নিয়ে জেলা ইজতেমা করার পাঁয়তারা করলে তা প্রতিহত করার ঘোষণা দেন জুবায়ের অনুসারীরা। এতে তৈরি হয় দ্বন্দ্ব। দেখা দেয় তীব্র উত্তেজনা। যে কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রায় দুই প্লাটুন পুলিশ মোতায়েন করেছে সিলেট মহানগর পুলিশ।

দক্ষিণ সুরমা এলাকায় ইজতেমা মাঠের আশপাশ, চন্ডিপুলসহ নগরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। ইজতেমা মাঠের পাশে উপস্থিত আছেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার পরিতোষ ঘোষ, উপ-কমিশনার (ডিসি দক্ষিণ) সুহেল রেজা, উপ-কমিশনার (ডিসি উত্তর) আজবাহার আলী শেখ, কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম মিঞা, দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খায়রুল ফজল।

এর আগে শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে দুই পক্ষের উত্তেজনা থামাতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আলোচনায় বসা হলেও কোনো সমাধান হয়নি বলে জানিয়েছেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা পুলিশের একজন কর্মকর্তা।

দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল বলেন, সকালে খোজারখলায় মার্কাজ মসজিদে দুই পক্ষকে নিয়ে আলোচনায় বসা হলে কোনো সমাধান আসেনি। তবে এখন আপাতত সমাধানের পথে। যারা দোয়ার জন্য অনুমতি নিয়েছিলেন তারা ইজতেমার মাঠে রান্নাবান্না করে খাওয়া-দাওয়া করছেন। আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজসহ স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় এখন একটি পর্যায় এসেছে।

তিনি বলেন, ইজতেমা মূলত তিনদিন হয়। কিন্তু তারা দোয়ার জন্য মাত্র একদিনের অনুমতি নিয়েছিল। এ অবস্থায় অপর পক্ষ ইজতেমা ভেবে তা প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েন। তবে এখন আলোচনার মাধ্যমে একটা সমাধান এসেছে। মাঠে অবস্থানকারী সাদপন্থীদের সন্ধ্যার মধ্যে চলে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তবে মাঠে অবস্থান করা তাবলিগ জামাতের একজন মুরব্বি নাম প্রকাশ না করে জানান, তারা এশার নামাজ শেষ করে মোনাজাতের পর মাঠ ছেড়ে দেবেন।

এর আগে বেলা ১১টার দিকে সাদবিরোধীরা দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল পয়েন্টে একত্রিত হয়ে স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় সাদপন্থীরা বদিকোনা থেকে অর্ধশতাধিক মোটরসাইকেলযোগে মিছিল নিয়ে বের হলে পুলিশ তাদের ব্যারিকেড দিয়ে আটকায়। এতে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। পুলিশ তাৎক্ষণিক উপস্থিত হয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করে।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ০৭ ফেব্রুয়ারি

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে