Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ , ২৩ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-০৬-২০২০

খুলনায় ‘আল্লাহর দল’ এর আরও ২ সদস্য গ্রেফতার

খুলনায় ‘আল্লাহর দল’ এর আরও ২ সদস্য গ্রেফতার

খুলনা, ০৬ ফেব্রুয়ারি- খুলনা মহানগরীর ফুলবাড়ি গেট এলাকা থেকে বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত সোয়া ১টার দিকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন ‘আল্লাহর দল’ এর দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। র‌্যাব-৬ এই অভিযান পরিচালনা করেছে। এ নিয়ে গত ৯ মাসে খুলনায় ‘আল্লাহর দল’ এর ১২ সদস্যকে গ্রেফতার করা হলো। র‌্যাব-৬ এর পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ নুরুস সালেহীন ইউসুফ এসব তথ্য জানান।

গ্রেফতার দুজন হলো— যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কায়েমকোলার মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে আল-মামুন (৩৪) এবং আবুল হোসেন মণ্ডলের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৫)।

র‌্যাব কর্মকর্তা নুরুস সালেহীন ইউসুফ জানান, র‌্যাব-৬, খুলনার একটি বিশেষ দল গোপন খবরে জানতে পারে, খানজাহান আলী থানার ফুলবাড়ি গেট এলাকায় ‘আল্লার দল’ এর দুজন সক্রিয় সদস্য অবস্থান করছে। ওই খবরের ভিত্তিতে বুধবার দিনগত রাত সোয়া ১টার দিকে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে ‘আল্লাহর দল’ এর ওই দুই সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন, দুটি সিমকার্ড, একটি মেমোরিকার্ড ও নগদ ১১০ টাকা জব্দ করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে তারা এই সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে সদস্য নির্বাচন, বিভিন্ন উৎস থেকে অর্থ সংগ্রহ এবং কর্মীদের বায়াত গ্রহণ করানোর মাধ্যমে দলীয় শক্তি বৃদ্ধির কাজে তারা নিয়োজিত রয়েছে। তারা সংগঠনকে শক্তিশালী করতে দলীয় মিটিং, উগ্রবাদী বই বিতরণ, অর্থ প্রদান ও আদায়, সংগঠনে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য দাওয়াত প্রদানসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে আসছে।

উদ্ধার মোবাইল ফোন ও টাকাআল-মামুন জানায়, সে ২০১১ সালের শেষের দিকে মুকুল নামের এক ব্যক্তির (২৯/১২/২০১৯ তারিখে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার) মাধ্যমে ইব্রাহিম আহম্মেদ হিরুর কাছে বায়াত গ্রহণ করে আল্লাহর দলের সদস্য হিসেবে যোগ দেয়। সদস্য হওয়ার পর থেকেই সে তার ওষুধের দোকানের পাশাপাশি বিভিন্ন জনকে দাওয়াত দিয়ে আসছে। ওষুধের দোকানেই সংগঠনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপ-আলোচনা করতো সে। সংগঠনের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা গ্রেফতার হওয়ায় বর্তমানে সংগঠনের অন্য নেতাদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ এবং দেখা করে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে আল-মামুন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রফিকুল ইসলাম জানায়, সে ২০০৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের দিকে মুকুল নামের ওই ব্যক্তির দাওয়াতের মাধ্যমে ইব্রাহিম আহম্মেদ হিরুর কাছে বায়াত গ্রহণ করে সদস্য পদে ‘আল্লাহর দল’- এ যোগ দেন। সংগঠনের সদস্য হওয়ার পর থেকেই ব্যবসার পাশাপাশি বিভিন্ন জনকে দাওয়াত দিয়ে আসছে সে। সে সংগঠনের বিভিন্ন কাজের জন্য মুকুলের কাছে টাকা দিতো।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩ মে খুলনা সদর থানার পূর্ব-বানিয়া খামার এলাকায় ‘আল্লার দল’ এর তিন জন সক্রিয় সদস্য, ৩০ ডিসেম্বর মহানগরীর লবণচরা থানার খোলাবাড়িয়া এলাকা থেকে পাঁচ জন সক্রিয় সদস্য এবং গত ১২ জানুয়ারি খুলনা সদর থানার রেল স্টেশন এলাকা থেকে একই সংগঠনের দুজন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৬।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
এন কে / ০৬ ফেব্রুয়ারি

খুলনা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে