Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৬-২০২০

ভোটার তালিকার আদৌ প্রয়োজন আছে কি না, প্রশ্ন বিএনপির

ভোটার তালিকার আদৌ প্রয়োজন আছে কি না, প্রশ্ন বিএনপির

ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি- ভোটার তালিকার আদৌ কোনো প্রয়োজন আছে কি না এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা। সংসদে ভোটার তালিকা হালনাগাদ আইন পাসের আগে বিলের ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে বিএনপির সংসদ সদস্যরা এ প্রশ্ন তোলেন। এমন প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, 'ওনারা (বিএনপি) এক কোটি ২৩ লাখ ভুয়া ভোটারের তালিকা করেছিলেন'।

রোববার (২৬ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে ভোটার তালিকা (সংশোধন) বিল-২০২০ পাসের আগে এর বিরোধিতা করে এ প্রশ্ন তোলেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা।

এ সময় সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, 'ভোটার তালিকা হালনাগাদের প্রয়োজন তখন হয়, যখন মানুষ ভোট দিতে পারে। যে দেশে দিনের ভোট রাতে হয়, যে দেশে মৃত মানুষেরা কবর থেকে উঠে এসে ভোট দেয়, যে দেশে দলীয় ক্যাডাররা খুশির ঠেলায় ভোট দিতে লাইনে দাঁড়ায়, সেই দেশে ভোটার তালিকা থাকা বা না থাকাতে কী আসে যায়? ক্ষমতাসীনের আস্থাভাজন ছাড়া যেহেতু প্রায় কেউই ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে পারে না, সেহেতু ভোটার তালিকায় তাদের নাম নির্ভুলভাবে আসলেই চলে।'

তিনি বলেন, 'জনগণের করের টাকা বাঁচাতে মানুষ যাতে ভোটাধিকার প্রয়োগের অলীক স্বপ্নে আশাহত না হয় এ প্রেক্ষাপটে হালনাগাদ দূরে থাকুক। তালিকা আদৌ প্রয়োজন আছে কি না, সে বিষয়ে জনমত যাচাই করা হোক।'

বিএনপির এমপি হারুনুর রশীদ তার বক্তব্যে বলেন, 'ভোটার তালিকার প্রয়োজনটা কী? আমার ভোট আমি দেব, যাকে খুশি তাকে দেব, এর জন্যই তো ভোটার তালিকা প্রণয়ন করা হয়। হালনাগাদ করে আমাদের কী হবে? যদি নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দিতে না পারে, ভোটাররা যদি ভোট দিতে যেতে না পারে তাহলে ভোটার তালিকা করে কী হবে? জনমত যাচাই-বাছাই করার প্রয়োজন আছে?'

তিনি বলেন, 'নির্বাচন কমিশন যে সমস্ত আইন, বিধি-বিধান করছে, এগুলো কি মানছি? সরকারি দলের সদস্যরা যেভাবে চাচ্ছেন, সেভাবেই নির্বাচন করা হবে, সেভাবেই নির্বাচনী কার্যক্রম চলবে। ঢাকা সিটি করপোরেশনে রীতিমতো যুদ্ধ হচ্ছে। প্রার্থীদের মধ্যে যুদ্ধ হচ্ছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, প্রশাসন নীরব। কেউ কোনো কাজ করছে না। আইন প্রণয়ন বাদ দেন, দেশ যেভাবে ফ্রি স্টাইলে চলছে এভাবে একদলীয়ভাবে দেশ চালান। কোনো আইন প্রণয়নের প্রয়োজন নেই।'

বিএনপির সংসদ সদস্যদের প্রশ্নের কড়া জবাব দিলেন আইনমন্ত্রী-

বিএনপির সংসদ সদস্যদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেন, 'বিরোধী দলীয় সদস্য যা বলেছেন, আমি কিন্তু আশ্চর্য হইনি। ওনাদের তো ভোট করার অভ্যাস নেই। ওনারা ভোটারবিহীন নির্বাচন করেন। ওনারা তো অ্যানালগ, ডিজিটাল না। আমরা জনস্বার্থ রক্ষায় আইন করছি।'

তিনি বলেন, 'ওনারা করলেন ১ কোটি ২৩ লাখ ভুয়া ভোটার। ওনারা তো এই কথা বলবেন। ওনারা ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ভোটার ছাড়া নির্বাচন করলেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ক্ষমতায় বসালেন। সংসদের ওই আসনে বসালেন। এই হচ্ছে ওনাদের নিয়ম-কানুন।'

আইনমন্ত্রী বলেন, 'আমরা জনগণের কথা বলি। জনস্বার্থ দেখি। আইনটা ১৯৮২ সাল থেকে শুরু হয়েছে, এই আইনটা ২০০০ সালে অর্ডিন্যান্সের মাধ্যমে আসছে। আমরা আইন প্রণয়ন করছি। ওনারা তো দেখেন না, সারা বছরই ভোটার তালিকা কার্যক্রম হচ্ছে। ভাঙা রেকর্ডের মতো পুরনো কথা বলেন। ওনারা তো অ্যানালগ, ডিজিটাল না। আমরা জনস্বার্থ রক্ষায় আইন করছি।'

এদিকে, ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার সময়সীমা ৩০ থেকে ৬০ দিন করে ভোটার তালিকা (সংশোধন) আইন-২০২০’ নামে বিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/২৬ জানুয়ারি

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে