Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০২০ , ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.2/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২০-২০২০

গাবতলীর পৌর মেয়র বিএনপি নেতা সাইফুল জেলহাজতে

গাবতলীর পৌর মেয়র বিএনপি নেতা সাইফুল জেলহাজতে

বগুড়া, ২০ জানুয়ারি- বগুড়ার গাবতলী পৌরসভার মেয়র ও পৌর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সচিব, প্রকৌশলী, সাবেক কাউন্সিলরসহ ৫ জনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

দুর্নীতির মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৪ সপ্তাহের জামিন শেষে সোমবার তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন।

আদালত শুধু এক নারী পৌর কাউন্সিলরের জামিন মঞ্জুর করেছেন। জেলা ও দায়রা জজ এবং সিনিয়র স্পেশাল জজ নরেশ চন্দ্র সরকার শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

হাজতে যাওয়া অন্যরা হলেন- পৌর সচিব শাহীন মাহমুদ, এলজিইডির উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবদুল মজিদ, পৌর প্রকৌশলী আমিনুর রহমান ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর সামসুল আলম।

জামিন পেয়েছেন সাবেক সংরক্ষিত কাউন্সিলর আফরোজা খাতুন।

দুদকের স্পেশাল পিপি আবুল কালাম আজাদ জানান, গত ২০১৫ সালে গাবতলী পৌরসভায় একটি উন্নয়ন কাজে ৮২ লাখ টাকার টেন্ডার হয়। আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে অখ্যাত পত্রিকায় টেন্ডার দেন ও নিম্নমানের কাজ করে বিপুল অংকের টাকা আত্মসাৎ করেন।

এ ব্যাপারে আতাউর রহমান নামে এক ঠিকাদার বগুড়ার স্পেশাল জজ আদালতে উল্লিখিত ৬ জন ও ফ্যাসিলিটিজ বিভাগের সাবেক প্রকৌশলী আবুল হাশেমের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলাটি দুদক বগুড়া সমন্বিত কার্যালয়ের কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা পরের বছর ৭ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আসামিদের মধ্যে প্রকৌশলী আবুল হাশেম গ্রেফতার হয়ে জেলে যাওয়ার পর হাইকোর্ট থেকে স্থায়ী জামিনে আছেন।

মেয়র সাইফুল ইসলাম, সচিব শাহীন মাহমুদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবদুল মজিদ, পৌর প্রকৌশলী আমিনুর রহমান, সাবেক পৌর কাউন্সিলর সামসুল আলম ও সাবেক সংরক্ষিত কাউন্সিলর আফরোজা খাতুন হাইকোর্ট থেকে ৪ সপ্তাহের জামিন লাভ করেন। তাদের নিম্ন আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

সোমবার ৬ আসমিকে বগুড়া সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে হাজির করে জামিন প্রার্থনা করা হয়। বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার শুনানি শেষে শুধু সাবেক সংরক্ষিত কাউন্সিলর আফরোজা খাতুনের জামিন মঞ্জুর ও অন্য ৫ জনকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সরকার পক্ষে পিপি আবদুল মতিন ও দুদকের পিপি আবুল কালাম আজাদ এবং আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম মন্টু ও অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলাম মামলা পরিচালনা করেন।

সূত্র: যুগান্তর

আর/০৮:১৪/২০ জানুয়ারি

বগুড়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে