Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৫-২০২০

আজহারীকে ‘ইসলামবিরোধী’ আখ্যা দিয়ে প্রতিরোধের ডাক

আজহারীকে ‘ইসলামবিরোধী’ আখ্যা দিয়ে প্রতিরোধের ডাক

সিলেট, ১৫ জানুয়ারি - সিলেটের কানাইঘাটে দেশের আলোচিত ইসলামি বক্তা মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীর একটি ওয়াজ মাহফিলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা বিরাজ করছে। মাহফিলের পক্ষে-বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন উপজেলার আলিয়া ও কওমিপন্থী আলেম-ওলামা এবং আওয়ামী লীগ নেতারা।

জানা গেছে, আগামী ২০ জানুয়ারি কানাইঘাটের মুকিগঞ্জ বাজার জামেয়া মাঠে তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে আসার কথা রয়েছে মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীর। ওই মাহফিলের আয়োজন করেছে মুকিগঞ্জ ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদ। এ সংগঠনটি আলিয়া মাদরাসাপন্থী যুবক ও শিক্ষার্থীদের।

এদিকে আজহারীকে ওইদিন কানাইঘাটে আসতে দেয়া হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন কানাইঘাট দারুল উলুম কওমি মাদরাসার অনুসারী আলেম-ওলামা, ছাত্র ও আওয়ামী লীগ নেতারা।

তারা মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীকে ইসলামবিরোধী বক্তব্য প্রদানকারী আখ্যা দিয়ে কানাইঘাটে তাকে প্রতিরোধ করতে মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে কানাইঘাট দারুল উলুম কওমি মাদরাসায় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মাদরাসার মুহতামিম আল্লামা মুহাম্মদ বিন ইদ্রিস লক্ষ্মীপুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন শায়খুল হাদিস আল্লামা আলিমুদ্দীন শায়খে দুর্লভপুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, সহ-সভাপতি জামাল উদ্দীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ শাকির, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি কে এইচ আব্দুল্লাহ, আল্লামা শামসুদ্দীন দুর্লভপুরী, মাওলানা গোলাম ওয়াহিদ, মাওলানা আজমত উল্লাহ, মাওলানা ক্বারী হারুনুর রশীদ চতুলীসহ আরও অনেকে।

এ বিষয়ে বুধবার (১৫ জানুয়ারি) কানাইঘাট দারুল উলুম কওমি মাদরাসা শিক্ষক ক্বারি হারুনুর রশীদ চতুলী জানান, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইসলামবিরোধী বক্তব্য প্রদানকারী ড. মিজানুর রহমান আজহারীকে আল্লামা মুশাহিদ বায়মপুরী (রহ.) পূণ্যস্মৃতি বিজড়িত কানাইঘাট উপজেলার মুকিগঞ্জে আসতে দেয়া হবে না। কানাইঘাটের সর্বস্তরের তৌহিদি জনতাকে সঙ্গে নিয়ে আজহারীকে প্রতিরোধ করতে প্রয়োজনে মুকিগঞ্জের উদ্দেশ্যে লংমার্চের ডাক দেয়া হবে।

এদিকে মিজানুর রহমান আজহারীকে প্রতিরোধের লক্ষ্যে আগামীকাল ১৬ জানুয়ারি দুপুর ২টায় কানাইঘাট পূর্ব বাজারে ইমান আকিদা সংরক্ষণ কমিটি ও তৌহিদি জনতার উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ ও গণমিছিলের ডাক দিয়ে মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে কানাইঘাটের বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হয়েছে। পরে এক সভা থেকে কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ একটি প্রতিনিধি দল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খান ও থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দোহার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মিজানুর রহমান আজহারী যাতে কানাইঘাটে না আসতে পারেন সে ব্যাপারে প্রশাসনিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ বারিউল করিম বলেন, ইসলামিক বক্তা ড. মিজানুর রহমান আজহারীর ব্যাপারে কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগ ও দারুল উলুম কওমি মাদরাসার নেতৃবৃন্দ আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এনিয়ে ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।

কানাইঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দোহা জানান, বিষয়টি নিয়ে তিনি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেছেন। বিষয়টি পুলিশ পর্যবেক্ষণ করছে বলেও তিনি জানান।

জানা গেছে, মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীর আগামী ২০ জানুয়ারি কানাইঘাটের মুকিগঞ্জে ও জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্তে তাফসির মাহফিলে আগমন নিয়ে আলেম উলামাদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে।

সার্বিক বিষয়ে জানতে মুন্সীগঞ্জ ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, ২০ জানুয়ারি তাদের পূর্বনির্ধারিত তাফসির মাহফিল মুকিগঞ্জ বাজার সংলগ্ন জামেয়া মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে তাফসির পেশ করবেন মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী। আমরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি এবং বিষয়টি প্রশাসনিকভাবে জানানো হয়েছে।

তাদের দাবি- আজহারীর মাহফিলে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল, আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও মন্ত্রী-এমপিরা উপস্থিত থাকবেন। আজহারী ধর্মীয় ও রাষ্ট্রবিরোধী তাফসির করেন না বলেও জানান তারা।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ১৫ জানুয়ারি

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে