Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১১-২০২০

শহর জুড়ে মোদীকে বিরোধীদের ‘স্পেশ্যাল’ অভ্যর্থনা, উত্তাল হতে পারে কলকাতা

শহর জুড়ে মোদীকে বিরোধীদের ‘স্পেশ্যাল’ অভ্যর্থনা, উত্তাল হতে পারে কলকাতা

কলকাতা, ১১ জানুয়ারি- আজ শনিবার শহরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী। বিকেল সাড়ে তিনটে থেকে রবিবার দুপুর একটা পর্যন্ত ঠাসা তাঁর কর্মসূচী। তবে বেশীরভাগ অনুষ্ঠানই পোর্ট ট্রাস্টের তরফে। কোনও রাজনৈতিক প্রচার নয়, সম্পূর্ণ সরকারী অনুষ্ঠানে শহরে পা রাখছেন তিনি।

এর মধ্যে যেমন তিনি যাবেন মিলেনিয়াম পার্কে, তেমনই যাবেন পোর্ট ট্রাস্টের ১৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে। আবার রাজভবনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের সম্ভাবনাও রয়েছে। আজ দিনভর মোদীকে ঘিরে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে বামপন্থী দল এবং কিছু রাজনৈতিক ট্যাগ বিহীন সংগঠনও। এঁরা সবাই মোদীকেকে বিশেষভাবে স্বাগত জানাবেন। আর এই বিশেষ অনুষ্ঠানের জন্যই আজ শহর উত্তাল হতে পারে।

প্রধানমন্ত্রীর ২১ ঘন্টার বঙ্গ সফর, মাত্র একুশ ঘণ্টা। এইটুকু সময়েও নমোকে শান্তিতে থাকতে দেবে না বলে ঠিক করে নিয়েছে মোদী বিরোধীরা। রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক সংগঠনগুলি। তারা জোর কদমে নিয়েছে প্রস্তুতি। মোদীকে ধিক্কার জানাবার জন্য তারা সকাল থেকেই প্রস্তুত। মোদী আজ যেখানেই যাবেন আজ তাদের দেখা পাবেন। প্রতিবাদীরা কোথাও যেন বলতে চাইছেন , নমোর সরকার যেমন সাধারণ মানুষকে শান্তিতে থাকতে দিচ্ছে না তেমনই এই শহরে পা রেখে তিনিও এই শহরের নাগরিকদের থেকে ছাড় পাবেন না। শান্তিতে তিনি ঘণ্টা বাজিয়ে চলে যাবেন এটা তারা হতে দেবেন না।

ইতিমধ্যেই এমন চারটি প্রতিবাদী অনুষ্ঠানের খবর এসে পৌঁছেছে। বিমানবন্দর থেকেই তাকে ‘স্পেস্যালভাবে’ স্বাগত জানানো হবে। দুপুর ১.৩০ মিনিটে এনআরসি-এনপিআর বিরোধী সংগঠন এয়ারপোর্টে ভিআইপি মোড়ে জমায়েত করবে। ওই পথ দিয়ে মোদী যাওয়া পর্যন্ত দেওয়া হবে ‘গো ব্যাক মোদী’ স্লোগান। কালো পতাকা দেখানোর সম্ভাবনাও রয়েছে। ভিআইপি কৈখালী মোড়ে দুপুর তিনটের সময়তেও একই কর্মসূচী নিয়েছে মোদী বিরোধীরা। ধর্মতলার ওয়াই চ্যবালেও হবে বিক্ষোভ প্রদর্শন।

ডিওয়াইএফআই’য়ের তরফে লেনিন মূর্তির কাছে জমায়েত হবে। দুপুর তিনটে থেকে সেই জমায়ের চলবে। কারণ প্রধানমন্ত্রী মোদীকে ধর্মতলা চত্বরে আজ আসতেই হবে পোর্ট ট্রাস্টের অনুষ্ঠানের জন্য। ধর্মতলা থেকে প্রতিবাদের আওয়াজ যাতে তাঁর কানে পৌঁছে যায় সেই ব্যবস্থা করে রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকারের নীতি বিরোধী প্রতিবাদী সংগঠনগুলি। ডিওয়াইএফআই’এর অনুষ্ঠানটি মূলত জেএনইউ সংক্রান্ত।

পাশাপাশি এনআরসি , এনপিআর , ক্যা নিয়েও বিকেল বেলায় আরও একটি মোদী বিরোধী কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে। ১২ তারিখেও তাঁর দিল্লির বিমানে ওঠা পর্যন্ত বিভিন্ন কর্মসূচি রয়েছে। সবমিলিউএ যতক্ষণ নরেন্দ্র মোদী শহরে থাকবেন ততক্ষন শহর সরগরম থাকবে।

এন কে / ১১ জানুয়ারি

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে