Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৯-২০২০

বাবাকে সুস্থ করতে ভাবির শরীরে ননদের ১০১ কোপ!

বাবাকে সুস্থ করতে ভাবির শরীরে ননদের ১০১ কোপ!

লক্ষ্নৌ, ০৯ জানুয়ারী - প্রদীপের নিচে থাকা অন্ধকারের মতোই ভারতে রয়েছে অনেক ধরনের কুসংস্কার। একদিকে যখন দেশটির মহাকাশ গবেষণা সংস্থা সূর্যে অভিযান করার পরিকল্পনা নিচ্ছে, তখনো অনেক মানুষের মন থেকে দূর হয়নি অন্ধকার।

এই কুসংস্কারের কারণেই একান্ত প্রিয়জনকে নির্মমভাবে কষ্ট দিচ্ছেন অনেকে। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের বরেলি জেলার গাঙ্গহোরা গ্রামে।

ওই গ্রামে নিজের বাবাকে সুস্থ করতে ভাবির শরীরে ১০১টি কোপ মারার অভিযোগ উঠেছে ননদের বিরুদ্ধে। বর্তমানে গুরুতর জখম ওই নারী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ভুক্তভোগীর ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আট বছর আগে গাঙ্গহোরা গ্রামের বাসিন্দা রেনুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল সঞ্জীব নামের এক যুবকের। এমনিতে তাদের সংসারে কোনো অশান্তি ছিল না। কিন্তু কিছুদিন আগে সঞ্জীবের বাবা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপরই তাকে সুস্থ করার জন্য তন্ত্রসাধনা করতে শুরু করেন সঞ্জীবের বোন মণি।

এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার রাতে রেনুকে একটি ঘরে আটকে রেখে তার শরীরে ছুরি চালান মণি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন স্বামী মুলি ও এক ভাই রাজু। রেনুর হাত ও পা বেঁধে তার মুখসহ সারা শরীরে ১০১টি কোপ মেরে ক্ষতচিহ্ন তৈরি করেন মণি। ঘটনার সময় যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকলেও রেনুকে মুক্তি দেননি তারা।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, নির্যাতনের কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান রেনু। কিন্তু কিছু দূর যাওয়ার পর রাস্তার ওপর পরে যান তিনি। ওই সময়ে সেখানে টহল দিচ্ছিলেন স্থানীয় থানার একজন পুলিশ কনস্টেবল। রাস্তার ওপর রক্তাক্ত অবস্থায় ওই নারীকে পড়ে থাকতে দেখে তাকে উদ্ধার করে কাছের একটি হাসপাতালে নিয়ে যান তিনি। পরে ভুক্তভোগী নারীর স্বজনরা খবর পেয়ে হাসপাতালে যান।

এ বিষয়ে বারাদারি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নরেশ ত্যাগী বলেন, ‘আক্রান্ত রেনু বর্তমানে হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি আছেন। মুখসহ তার সারা শরীরে ৩০০টি সেলাই পড়েছে। ভুক্তভোগীর ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।’

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘মূল অভিযুক্ত মণি গ্রেপ্তার হলেও বাকি দুজন পলাতক আছে। তাদের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। রেনু একটু সুস্থ হলে তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে।’

সুত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ০৯ জানুয়ারী

অপরাধ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে