Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২০ , ৯ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.3/5 (146 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-১৮-২০১১

মালয়েশিয়ায় বিজয় দিবস উদযাপন

মোহাম্মদ আলী রেজা


মালয়েশিয়ায় বিজয় দিবস উদযাপন
১৬ ডিসেন্বর। মহান বিজয় দিবস। গতকাল সকাল ৮টা ৩০ মিনিট মালয়েশিয়ায় আব¯হান রত বাংলাদেশ হাইকমিশন নির্মীত শহীদ মিনারে ফুলের ঢালি প্রদান ও জাতীয় পতকা উওলোনের মাধ্যমে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়।    ৩০ লাখ শহীদের রক্ত ও  ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে যে বিজয় পতাকা পেয়েছে বাঙালি জাতি। মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশ হাইকমিশনার  মান্যবর  এ কে এম আতিকুর রহমান বাংলাদেশ জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে -জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। আরও উপস্থিত ছিলেন হাইকমিশনের কর্মকর্তা কর্মচারী এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, সেচ্ছা সেবক দল, তারেক রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্ত্তন সংগ্রাম পরিষদ, মালয়েশিয়া শাখার নেতা কর্মী ও আওয়ামী লীগ নেতা কর্মী, সাংবাদিক সহ আনেক বাংলাদেশী প্রবাসী। আজ ১৬ ডিসেন্বর। মহান বিজয় দিবস। এ দেশের ইতিহাসে এক গৌরব ও অহস্কারের দিন। ১৯৭১ সালের এ দিনে বিশ্বের মানচিএে জন্ম হয় স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। এ বছর আমরা দীর্ঘ রক্তখয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত বিজয়ের ৪০ বছর উদযাপন  করছি। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ৭১-এর এ দিনে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে ( সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) আত্মসমর্পণ করে। ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষে বাঙালি জাতি স্বাধীনতা সংগ্রমে বিজয় অর্জন করে। সেদিন জাতি নির্ভয়ে গেয়ে উঠেছিল বিজয়ের অবিনাশী গান। জাতি আজ শ্রদ্ধাবনতচিত্তে স্মরণ করছে পরাধীনতার শৃঙ্খল মুক্তির সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়া শহীদদের। আজ থেকে ৪০ বছর আগে ১৯৭১ সালের এইদিনে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী বাঙালির দেশপ্রেম শৌর্যবীর্যের কাছে পরাজয় মেনে নিতে বাধ্য হয়েছিল। ১৬ ডিসেন্বর বিকেল ৪টা ৩১ মিনিটে ঢাকার ততকালীন রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান  সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) আতœসমর্পণ্ অনুষ্ঠানে মুক্তি আর মিএবাহিনীর সামনে অস্ত্র ফেলে দিয়ে হানাদাররা অবনত মস্তকে দাড়ায়। একই বছর ২৬ মার্চ বিজয় অর্জনের লখ্যকে সামনে রেখে অতুতোভয় বাঙালি জাতি যে যুদ্ধ শুরু করে তার সমাপ্তি হয় ৩০ লাখ শহীদেও রক্ত ও ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে এক আনন্দ-বেদনার সম্মিলনে। বাঙালি মুক্তি যুদ্ধ বা স্বাধীনতা অর্জনের ইতিহাস শুধু একাত্তরেই সীমাবদ্ধ নয়। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে স্ফুরিত জাতীয় জেতনার পথ ধরে ধারাবাহিক সংগ্রামে ১৯৬৯ সালে ঘটে গণতন্ত্র ও জাতীয় অধিকার আদায়ের গণঅভ্যুখান। ১৯৭০ সালের নির্বাচনের ফলাফলে ততকালীন পাকিস্তানে বাঙালির আতœনিয়ন্ত্রণের আকাঙ্খার বিস্ফোরণ ঘটে। কিন্তু সেই নির্বাচনে বিজয়ী আওয়ামী লীগকে সরকার গঠনের সুযোগ না দিয়ে পাকিস্তানি শাসকরা বাঙালিকে রক্ত¯্রােতে ভাসিয়ে দিতে চায়। শুরু করে গণহত্যা। সশস্ত্র প্রতিরোধের পথ ধরে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ এবং বিজয় অর্জন ছিল ইতিহাসের অনিবার্য পরিণতি। মালয়েশিয়া প্রবাসী ও বিভিন্ন অংঙ্গ সংগঠন নিয়ে আলোনার মাধ্যমে  ১৬ ডিসেন্বর বিজয় দিবস দিনটি পালিত হয় ।

মালয়েশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে