Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৩-২০২০

থার্টি ফার্স্ট রাতের ভয়াল বর্ণনা দিলেন তরুণী

থার্টি ফার্স্ট রাতের ভয়াল বর্ণনা দিলেন তরুণী

নতুন বছরকে আমন্ত্রণ জানাতে প্রতিবছর ‘থার্টি ফার্স্ট নাইট’ উপলক্ষে উৎসব চলে গোটা বিশ্বে। বছরকে ঘিরে আনন্দে মেতে ওঠে ছোট-বড় সব বয়সের মানুষ। কিন্তু সেই আনন্দের মাঝেই রাতের অন্ধকারই কাল হয়ে নামে কারও কারও জীবনে। যেমনটি ঘটেছিল ফরাসি তরুণী মেলোডি ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে। আনন্দের রাতেই জীবনের গল্পটা পাল্টে ধূসর হয়ে গিয়েছিল তার।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম কলকাতা টোয়েন্টিফোর’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর বন্ধুদের সঙ্গে হইহই করতে করতে মেলোডির চোখের সামনে নেমে এসেছিল আচমকা অন্ধকার। অজ্ঞান হওয়ার আগে পানীয় খাচ্ছিলেন, কেবলমাত্র এটুকুই মনে করতে পারেন তিনি। জ্ঞান ফেরার পর তিনি নিজেকে আবিষ্কার করেছিলেন তার মায়ের গাড়িতে। আর দেখেছিলেন আশপাশে স্থানীয় অনেক পুলিশ।

সিসিটিভি ও পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছিল, ওই তরুণী ওবি ফরগিভ নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে থার্টি ফার্স্ট নাইটে আনন্দ করতে একটি পার্কে গিয়েছিলেন। পরে ফরেনসিক পরীক্ষাতে প্রমাণিত হয়েছিল, ওই তরুণীকে কোমল পানীয় সঙ্গে নেশাজাতীয় ওষুধ খাওয়ানোর পর তাকে ধর্ষণ করা হয়।

যদিও ওই তরুণী জানান, একজন নির্যাতিতা হিসেবে নয়, এই ভয়ঙ্কর ঘটনা ভুলে নতুনভাবে শুরু করতে চান। মানসিকভাবে ওই তরুণী কতটা দৃঢ় তা তিনি প্রমাণ করেছেন এই মন্তব্যের মাধ্যমে। মেলোডিকে ধর্ষণের দায়ে ২০১৯ সালের জুন মাসে অভিযুক্ত ওবি ফরগিভকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

ওই তরুণীর মায়ের ভাষ্যমতে, ২০১৮ সালের ক্রিসমাস ও বর্ষবরণ উপলক্ষে ওই তরুণী এবং তার মা প্যারিসে গিয়েছিলেন। ওই তরুণী জানিয়েছিলেন, তিনি প্যারিসের আইফেল টাওয়ার এবং ল্যুভর মিউজিয়াম দেখতে চেয়েছিলেন।

মেলোডি জানান, ঘটনার আগে তিনি তার মাকে মেসেজ করে জানিয়েছিলেন, কোথায় যাচ্ছিলেন তিনি। এরপর নির্দিষ্ট জায়গায় পৌঁছে তিনি ভদকা এবং কোক খেয়েছিলেন। ওই জায়গাতে ছিল তখন আনন্দের মৌসুম। তারপরে এক বন্ধু তাকে অন্য একটি পানীয় খেতে দিয়েছিলেন। আর সেটুকুই তার মনে আছে বলে জানিয়েছেন।

ভোর ৫টার দিকে মেলোডির যখন জ্ঞান ফিরেছিল তখন মেলোডি নিজেকে দেখেছিলেন তার মায়ের গাড়িতে। তার গায়ে একটি ব্ল্যাঙ্কেট জড়ানো রয়েছে। তার ব্যাগ ফোন পাওয়া যায়নি। তিনি জানিয়েছিলেন, তাকে সেই সময়ে আগলে রেখেছিলেন তার মা। তিনি তার পরনের পোশাক তদন্তকারী পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। এরপর তদন্ত করে পুলিশ অপরাধীকে আদালতের মাধ্যমে শাস্তি দেয়।

সুত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ০৩ জানুয়ারী

অপরাধ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে