Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৯ , ৩১ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (32 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-১৬-২০১১

বিজয়ের ৪০ বছর

বিজয়ের ৪০ বছর
আজ মহান বিজয়ের ৪০ বছর পূর্তি। জাতি আজ কৃতজ্ঞ, সশ্রদ্ধ বেদনায় স্মরণ করছে দেশের পরাধীনতার গ্লানি মোচনে প্রাণ উত্সর্গ করা বীর সন্তানদের। সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে নেমেছে মানুষের ঢল। ফুলে ফুলে ভরে উঠছে স্মৃতিসৌধের বেদি।
আজ ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ছয়টায় সাভারে স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে একাত্তরের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছে। স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য জড়ো হয়েছেন বিভিন্ন বয়সের নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ। মেতেছেন বিজয় উত্সবে।
আজ সরকারি ছুটির দিন। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। রাজধানীসহ দেশের বড় শহরগুলোর প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপ সাজানো হয়েছে জাতীয় পতাকায়। হাসপাতাল, কারাগার, এতিমখানাগুলোতে উন্নত মানের খাবার পরিবেশন করা হবে। বিজয় দিবস উপলক্ষে সংবাদপত্রগুলো বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে এবং বেতার ও টিভি চ্যানেলগুলো সম্প্রচার করছে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা।
পাকিস্তানি হানাদারেরা একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতে ঘুমন্ত নিরীহ-নিরস্ত্র বাঙালির ওপর অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে মানব ইতিহাসের জঘন্যতম গণহত্যায় মেতে ওঠে। দেশমাতৃকার বীর সন্তানেরা সামান্য অস্ত্র ও বুকভরা সাহস নিয়ে পৃথিবীর দুর্ধর্ষ বাহিনীটির হামলা ঠেকাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন মুক্তিযুদ্ধে। মার্চ থেকে ডিসেম্বর—নয় মাসের সংগ্রামে পৃথিবীর মানচিত্রে নতুন করে আঁকা হলো একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্রের সীমারেখা। বাঙালির রক্তস্নাত মাতৃভূমি ‘বাংলাদেশ’।


রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

সেই দিন

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার তৎকালীন রেসকোর্স (পরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ময়দানে বাংলাদেশের মুক্তিবাহিনী ও যুদ্ধে সক্রিয় সহায়তাকারী ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় সেনা কমান্ডের যৌথ নেতৃত্বের কাছে আত্মসমর্পণ করেন যুদ্ধে পাকিস্তানকে নেতৃত্ব দেওয়া লেফটেন্যান্ট জেনারেল আমীর আব্দুলাহ খান নিয়াজী।

এর মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত বিজয় পেয়ে বিশ্ব মানচিত্রে নতুন রাষ্ট্র হিসেবে যুক্ত হয় বাংলাদেশ।

’৭১ এর ২৫ মার্চ পাকিস্তানী সেনাবাহিনী বাংলাদেশের নিরস্ত্র জনগণের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

এর আগেই ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে তার ঐতিহাসিক ভাষণে ‘যার যা কিছু আছে, তা নিয়েই স্বাধীনতার জন্য প্রস্তুত’ থাকার আহ্বান জানান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ২৫ মার্চ তিনি পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন।

নানা কর্মসূচি

দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকালে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে কুচকাওয়াজ হবে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, বিএনসিসি, বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও ভিডিপি, কোস্টগার্ড এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করবে।

প্রধানমন্ত্রী কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করবেন।

রীতি অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি সালাম গ্রহণ করে থাকেন। তবে স্বাস্থ্যগত কারণে তিনি এবার কুচকাওয়াজে উপস্থিত থাকতে পারছেন না।

কুচকাওয়াজে থাকবে বিমান বাহিনীর ফ্লাইপাস্ট, উড়ন্ত হেলিকপ্টার থেকে রজ্জু বেয়ে অবতরণ, প্যারাস্যুট জাম্প ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম সম্পর্কে যান্ত্রিক বহর প্রদর্শনী।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের স্বাধীনতা স্তম্ভে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে আলোচনা, পোস্টার প্রদর্শনী ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, প্রধান বিরোধী দল বিএনপি ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল দিবসটি উপলক্ষে পৃথক কর্মসূচি দিয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়েছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে