Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ , ১০ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-১০-২০১৯

‘যতদিন বাঁচব ততদিনই আ’লীগের সভাপতি থাকব’

‘যতদিন বাঁচব ততদিনই আ’লীগের সভাপতি থাকব’

রাজশাহী, ১১ ডিসেম্বর- আমি যতদিন বেঁচে থাকব, ততদিনই আওয়ামী লীগের সভাপতি থাকব, আমাকে কেউ সরাতে পারবে না। নেত্রী (শেখ হাসিনা) আমাকে বলে দিয়েছেন, আপনি যতদিন ইচ্ছা সভাপতি থাকবেন।

দলের কাউন্সিল অনুষ্ঠান প্রশ্নে মঙ্গলবার জেলা কমিটির সভায় এভাবেই নিজের পদ না ছাড়ার ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মঈনুদ্দীন মণ্ডল। এ নিয়ে সভায় তুমুল হৈ হট্টগোল হয়। ফলে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভাটি শেষ। একপর্যায়ে সভাপতির বাড়ির কাজের লোক আলাউদ্দিন প্রতিপক্ষের হাতে প্রহৃত হন।

দলীয় নেতাকর্মীরা জানান, মঙ্গলবার দুপুরে শহরের ওয়ালটন মোড়ের দলীয় কার্যালয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের এক সভা শুরু হয়। সভায় নেতাকর্মীরা ৭ ডিসেম্বরের কাউন্সিল না হওয়ার জন্য জেলা সভাপতি মঈনুদ্দীন মণ্ডল ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদকে দায়ী করেন।

নেতাকর্মীরা সভায় অভিযোগ করেন, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ইচ্ছাকৃতভাবে কাউন্সিল করছেন না।

সভায় সাধারণ সম্পাদক জানান, জেলার ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা, পৌর কমিটি না হওয়ায় কাউন্সিল অনুষ্ঠানে বিলম্ব হচ্ছে।

এ সময় জেলা কমিটির সহ-সভাপতি রুহুল আমিন বলেন, দেশের যে সব জেলায় কাউন্সিল হচ্ছে সেগুলোর কোথাও তৃণমূল কমিটি হয়নি। তাহলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কাউন্সিল কেন হবে না- প্রশ্ন রাখেন রুহুল আমিন।

রুহুল আমিনের বক্তব্যের পর সভাপতির বক্তব্যে মঈনুদ্দীন মণ্ডল বলেন, আমি যতদিন বাঁচব ততদিনই সভাপতি থাকব। নেত্রী আমাকে বলে দিয়েছেন। এ সময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা সভাপতির বক্তব্যের প্রতিবাদে ফেটে পড়েন। তারা বলেন, নেত্রী এমন কথা বলবেন না। আপনি মনগড়া কথা বলছেন। এ দিকে এ নিয়ে সভায় তুমুল হৈ হট্টগোল শুরু হয়। একপর্যায়ে নেতাকর্মীদের ধাওয়ায় সভাপতি মঈনুদ্দীন মণ্ডল ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দলবল নিয়ে দ্রুত সভাস্থল ত্যাগ করেন। শেষে সভাপতির কাজের লোক আলাউদ্দিন প্রতিপক্ষের হাতে প্রহৃত হন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহ-সভাপতি রুহুল আমিন বলেন, মঈনুদ্দীন মণ্ডল বলেছেন. তিনি যতদিন বাঁচবেন ততদিন সভাপতি থাকবেন। এর প্রতিবাদ করায় সভায় কিছুটা উত্তেজনা ছড়ায়। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তিন বছরের কমিটিতে পাঁচ বছর পার করেছেন। কাউন্সিল না করার প্রতিবাদ করেছেন নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মঈনুদ্দীন মণ্ডল বলেন, নেত্রীর সঙ্গে দেখা করলে নেত্রী যতদিন ইচ্ছা থাকতে বলেছেন। তৃণমূলের কমিটিগুলো করা হলে তখন জেলা কাউন্সিল করা হবে। তবে সভা শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

সূত্র: যুগান্তর

আর/০৮:১৪/১১ ডিসেম্বর

রাজশাহী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে