Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ , ১৩ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-০৩-২০১৯

ফিলিপাইনে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় কামমুরির আঘাত

ফিলিপাইনে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় কামমুরির আঘাত

ম্যানিলা, ০৩ ডিসেম্বর - দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ফিলিপাইনে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় কামমুরি আঘাত হেনেছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মধ্যরাতে দেশটির লুজন দ্বীপে ঘূর্ণিঝড়টি আছড়ে পড়ে। তবে প্রাথমিকভাবে ঘূর্ণিঝড় কামমুরির আঘাতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা বলছে, ঘূর্ণিঝড় কামমুরির আঘাত হানার আগেই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশের উপকূলীয় ও পার্বত্য অঞ্চলে বন্যা-ভূমিধসের আশঙ্কায় দুই লাখের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দেশটির প্রধান বিমানবন্দর বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শক্তিশালী এই ঘূর্ণিঝড়কে স্থানীয় ভাষায় টিসয় নামকরণ করা হয়েছে।

ম্যানিলা থেকে আলজাজিরার ফিলিপাইন প্রতিনিধি আলিনদোগান বলেন, স্থানীয় বিমানবন্দর বন্ধ রয়েছে। তবে প্রত্যন্ত ও উপকূলীয় গ্রামীণ অঞ্চলে কী ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে; তা এখনও জানা যায়নি।

দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা বলছে, কর্তৃপক্ষ ৩৫ টি প্রদেশে ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কবার্তা বৃদ্ধি করায় এক ডজনেরও বেশি প্রদেশ থেকে ২ লাখের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তবে মধ্যরাতে লুজন দ্বীপে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় কামমুরি।

ভারী বর্ষণ, বাতাসের তীব্র গতি, ভূমি ধস ও ঝড়ের আশঙ্কা নিয়ে ৪ মাত্রার এই ঘূর্ণিঝড় যেসব এলাকায় আঘাত হানতে পারে; সেসব এলাকার মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার পরামর্শ এবং সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুরের দিকে রাজধানী ম্যানিলা অতিক্রম করতে পারে এই ঝড়। দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, শক্তিশালী এ ঝড়ের তাণ্ডবের আশঙ্কায় সকাল ১১টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত ম্যানিলার নিনয় অ্যাকুইনের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বন্ধ থাকবে। ইতোমধ্যে এই বিমানবন্দর থেকে কয়েক ডজন আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের উড্ডয়ন ও অবতরণ বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়া আক্রান্ত প্রদেশের স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ফিলিপাইনের উপকূলরক্ষী বাহিনী দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সমুদ্র এলাকায় যান চলাচল নিষিদ্ধ করেছে।

প্রত্যেক বছর গড়ে প্রায় ২০টি ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে ফিলিপাইনে। বিশ্বের সবচেয়ে দুর্যোগপ্রবণ দেশগুলোর অন্যতম ফিলিপাইন। ১০কোটির বেশি মানুষের এই দ্বীপ দেশ প্রশান্ত মহাসাগরের 'রিং অফ ফায়ারে' অবস্থিত। ভূমিকম্পপ্রবণ এই অঞ্চলে ভূমিকম্প এবং আগ্নেয়গিরির উদগীরণ খুবই সাধারণ।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ০৩ ডিসেম্বর

এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে