Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-৩০-২০১৯

নৌযান ধর্মঘটে অচল খুলনা-মোংলা বন্দর

নৌযান ধর্মঘটে অচল খুলনা-মোংলা বন্দর

খুলনা, ৩০ নভেম্বর - দেশব্যাপী নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘটে খুলনাঞ্চলে নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে খুলনা ও মোংলা বন্দরে পণ্য ওঠানামার কাজও বন্ধ হয়ে গেছে। শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে ১১ দফা দাবি আদায়ের জন্য নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন এ ধর্মঘট শুরু করে। নৌপরিবহন ধর্মঘটের দোহাই দিয়ে বাজারে নিত্যপণ্যের দামও বেড়ে গেছে।

অনির্দিষ্টকালের এ ধর্মঘট শুরুর পর থেকে খুলনার বিআইডব্লিউটিএ’র ৪, ৫, ৬ ও ৭ নম্বর ঘাট এবং রুজভেল্ট জেটিতে অবস্থানরত কোনো জাহাজ ও কার্গো থেকে পণ্য খালাস হয়নি। এ ছাড়া খুলনা বিআইডব্লিউটিএ লঞ্চঘাট থেকে কোনো নৌযান চলাচল করেনি। মংলা বন্দর থেকে যশোরের নওয়াপাড়া বাণিজ্য কেন্দ্র পর্যন্ত কোথাও কোনো নৌযান চলেনি। ফলে এসব ঘাটে ছোট-বড় সহস্রাধিক নৌযান নোঙ্গর ফেলে পণ্য ওঠানামার জন্য অবস্থান করছে।

জানা গেছে, খুলনা ও যশোরের নওয়াপাড়ার কার্গো বার্জ থেকে পণ্য নেয়ার জন্য শত শত ট্রাক দাঁড়িয়ে থাকলেও নৌযান শ্রমিকরা কাজ না করায় শিল্প নগরী খুলনা ও মোংলা বন্দরে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। ধর্মঘটের ফলে মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য বন্দরের জেটিতে আনা নেয়া এবং বন্দর থেকে নদী পথে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

এদিকে নিত্যপণ্যের বাজারেও এ ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে। মালামাল আনা নেয়া হচ্ছে না এমন অজুহাত দেখিয়ে আলু, পেঁয়াজসহ অন্যান্য পণ্যের দাম কেজি প্রতি আরও ৫ থেকে ১০ টাকা বৃদ্ধি করেছেন ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন বলেন, কেন্দ্রের ডাকা এ ধর্মঘট খুলনা ও মোংলায় সর্বাত্মকভাবে পালিত হচ্ছে। নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘট শুরু হওয়ায় শিল্পনগরী খুলনা ও মোংলা বন্দরে অবস্থানরত সব ধরনের দেশি-বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্যবোঝাই-খালাস ও পরিবহন কাজ বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া খুলনা ও মোংলা বন্দরের সঙ্গে সারাদেশের নৌ যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, দাবি আদায়ের লক্ষ্যে শনিবার (৩০ নভেম্বর) সকালে খুলনার ঘাট এলাকায় মিছিল করেছেন শ্রমিকরা। দাবি না আদায় হওয়া পর্যন্ত এ ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে বলেও জানান এই শ্রমিক নেতা।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দিন বলেন, শনিবার সকাল ৮টার পর থেকে মংলা বন্দরের সকল প্রকার নৌশ্রমিকরা কাজ বন্ধ রেখেছেন। লাইটারেজ, কার্গো, বার্জ, অয়েল ট্যাঙ্কার, কোস্টার থেকে শুরু করে সব ধরনের জাহাজি নৌযানের শ্রমিকরা এক যোগে এ ধর্মঘট পালন করছেন। ফলে বন্দরে জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানামা এবং দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে নদী পথে চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সারাদেশে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন নৌযান শ্রমিকরা। ১১ দফা দাবি আদায়ে এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন তারা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শ্রমিকরা।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ৩০ নভেম্বর

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে