Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-২৮-২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী সেরা বিজ্ঞানী অচিন ভৌমিকের সাফল্যগাথা

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী সেরা বিজ্ঞানী অচিন ভৌমিকের সাফল্যগাথা

ওয়াশিংটন, ২৮ নভেম্বর- খুব কম বাংলাদেশী বিজ্ঞানী পৃথিবীর প্রতিযোগীতায় প্রথম হওয়ার সৌভাগ্য অর্জন করেন। তবে এবার সে কাজটি করে দেখালেন বাংলাদেশী এক বিজ্ঞানী। এ বছর অ্যাক্সেসিবিলিটি বিভাগের "একটি টকিং হিয়ারিং এইড"-এর অধীনে "সেরা উদ্ভাবন ২০১৯" হিসাবে প্রথম স্থান অধিকার করল বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ড. অচিন ভৌমিক।

টাইমসে প্রকাশিত এই সম্মাননাটি পৃথিবীর সব বড় বড় কোম্পানির সেরা ডিজাইনগুলোকে হারিয়ে প্রথম হয়।

"লিভিও" একটি সেন্সর এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে তৈরি যন্ত্র যা সঙ্গীত প্রবাহিত করে, স্মার্ট সহকারীর মতো মৌখিকভাবে প্রশ্নের উত্তর দেয়, কথোপকথনগুলো ভাষায় অনুবাদ করে, শারীরিক কার্যকলাপ পরিমাপ এবং অন্য ব্যক্তির সঙ্গে কত ঘন ঘন কথা বলে তা ট্র্যাক করে।

পড়াশোনায় বরাবরই ভালো অচিন ভৌমিক ১৯৯০ সালে রাজশাহী কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেন এবং রাজশাহী বোর্ডে "৬ষ্ঠ স্থান" অর্জন করেন। এরপর ভারতের কানপুরে "আইআইটি" থেকে শতভাগ বৃত্তিতে টেকনোলজিতে স্নাতক করেন তিনি। পরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামা রাজ্যের অবার্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেন অচিন ভৌমিক।

বিশ্বজয় করা বাংলাদেশী বিজ্ঞানী অচিন ভৌমিক এর সাফল্যগাথা
যুক্তরাষ্ট্রেই উচ্চতর পড়াশোনা সম্পন্ন করেন ড. অচিন ভৌমিক। কাজ শুরু করেন ইন্টেল কর্পোরেশনে। সেখানে তিনি প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে পার্সেপুচল কম্পিউটিং সংঘের সহ-সভাপতি এবং সাধারণ পরিচালক ছিলেন।

বর্তমানে স্টারকি হিয়ারিং টেকনোলজিসের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা এবং নির্বাহী সহ-সভাপতি, যাদের বিশ্বজুড়ে ১০০টিরও বেশি দেশে ক্রিয়াকলাপযুক্ত একটি বেসরকারিভাবে পরিচালিত মেডিকেল ডিভাইস ব্যবসা রয়েছে।

এই ভূমিকায় তিনি কোম্পানির প্রযুক্তি কৌশল, পণ্য বিকাশ এবং প্রকৌশল বিভাগের তদারকি করছেন এবং উন্নত সেন্সর এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির সাহায্যে চিকিৎসার ডিভাইসগুলোকে নতুন করে তৈরি করতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

স্টারকি যোগদানের আগে ড. ভৌমিক ইন্টেল কর্পোরেশনে পার্সেপুচল কম্পিউটিং সংঘের সহ-সভাপতি এবং সাধারণ পরিচালক ছিলেন।

সেখানে তিনি থ্রিডি সেন্সিং এবং ইন্টারেক্টিভ কম্পিউটিং, কম্পিউটার ভিশন এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, স্বায়ত্তশাসিত রোবট এবং ড্রোন এবং মগ্ন ভার্চুয়াল এবং মার্জড রিয়েলিটি ডিভাইসগুলির ক্ষেত্রে গবেষণা ও উন্নয়ন, প্রকৌশল, অপারেশন এবং ব্যবসায়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

এর আগে তিনি ২০১০ সাল প্রায় ৩০ বিলিয়ন ডলার বার্ষিক আয় নিয়ে ইন্টেলের বৃহত্তম ব্যবসায়িক ইউনিট পার্সোনাল কম্পিউটিং সংঘের চিফ অফ স্টাফ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

এছাড়াও সংযুক্ত অধ্যাপক এবং অতিথি প্রভাষক হিসাবে ড. ভৌমিক ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্বের সেরা ৫ম বিশ্ববিদ্যালয় বার্কলে, স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, কেন্ট স্টেট ইউনিভার্সিটির লিকুইড ক্রিস্টাল ইন্সটিটিউট, কিউং হি বিশ্ববিদ্যালয়, স্নাতক গবেষণার পরামর্শ দিয়েছেন এবং হিউম্যান-কম্পিউটার ইন্টারঅ্যাকশন এবং বোধগম্য কম্পিউটিং প্রযুক্তির ওপর কোর্স পড়ান।

ড. ভৌমিক রয়েছে নেতৃত্ব দেয়ার এক অনন্য দৃষ্টান্ত। তিনি তথ্য প্রদর্শনের সোসাইটির ফেলো নির্বাচিত হয়েছিলেন (এসআইডি)।

তিনি ইউসি বার্কলেতে ফুং ইন্সটিটিউট ফর ইঞ্জিনিয়ারিং লিডারশীপ, এসআইডির কার্যনির্বাহী বোর্ড এবং ওপেনসিভির পরিচালনা পর্ষদের পরামর্শদাতা বোর্ডের দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি বেশ কয়েকটি প্রযুক্তিগত স্টার্টআপ সংস্থার পরিচালনা পর্ষদে এবং দায়িত্ব পালন করেন। তিনি এশিয়া-প্যাসিফিক সিগন্যাল অ্যান্ড ইনফরমেশন প্রসেসিং অ্যাসোসিয়েশন থেকে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেস্টিস্টুইশড লিডার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন।

তাঁর দুটি বই এবং ৩৪টি ইস্যু করা পেটেন্ট সহ ২০০ টিরও বেশি প্রকাশনা রয়েছে।

সারাজীবন প্রচারবিমুখ এই মানুষটি প্রযুক্তির উন্নয়নে নীরবে অর্জন করে যাচ্ছেন এবং বাংলাদেশের সম্মান নিয়ে যাচ্ছেন উচ্চ শিখরে। এমন একজন বাংলাদেশীর অর্জন আমাদের জন্য গর্বের বিষয়।

আর/০৮:১৪/২৮ নভেম্বর

যূক্তরাষ্ট্র

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে