Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯ , ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 1.5/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-১৪-২০১১

মামলা বাতিলে খালেদার আবেদন খারিজ

মামলা বাতিলে খালেদার আবেদন খারিজ
ঢাকা, ১৪ ডিসেম্বর: খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা বাতিলের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে নিম্ন আদালতে এ মামলার কার্যক্রম চলতে আর কোনো বাধা নেই।
বুধবার প্রায় এক ঘণ্টা শুনানির পর বিকাল তিনটায় বিচারপতি খন্দকার মুসা খালেদ ও বিচারপতি এফ এইচ মুহাম্মদ নুরুল হুদা জায়গীরদারের যৌথ বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এর আগে মঙ্গলবার রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষ হয়।
রায়ের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ?আদালত খালেদা জিয়ার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দেয়া রুল খারিজ করে রায় দিয়েছেন। ফলে বিচারিক আদালতে এ মামলার কার্যক্রম চলতে বাধা নেই।?
রায়ের পর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষের আইনজীবী আনিসুল হক বলেন, ?জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা থেকে অব্যাহতির জন্য খালেদা জিয়া বাতিল আবেদন করেছিলেন। হাইকোর্ট তা খারিজ করে দিয়েছেন। তাই অবিলম্বে বিচারিক আদালতে এ মামলার কার্যক্রম শুরু হবে। আইন অনুসারে তাকে উপস্থিত হতে হবে।?
তিনি জানান, রুল জারির কারণে প্রায় দুই বছর বিচার কার্যক্রম স্থগিত ছিল।
আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন শুনানি করেনন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী আনিসুল হক ও খুরশীদ আলম খান।
২০০৮ সালের ৩ জুলাই খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ সাতজনের বিরুদ্ধে রমনা থানায় এ মামলাটি করে দুদক। অপর পাঁচ আসামি হলেন- জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের কর্মকর্তা মোমিনুর রহমান, কাজী সালিমুল হক, সারফুদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ আহমেদ ও গিয়াসউদ্দিন আহমেদ।
মামলা বাতিল চেয়ে খালেদা জিয়ার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৯ সালের ১৫ অক্টোবর হাইকোর্ট রুল জারি করেন। মামলাটি কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে। রুলটি চূড়ান্ত শুনানির জন্য বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ার উল হক ও বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে ছিল। এই আদালতে ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে আবেদন করলে ওই বেঞ্চই ৩০ নভেম্বর তা খারিজ করে দেয়। পরে এই আদেশের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া আপিল বিভাগে আবেদন করেন। গত মঙ্গলবার আপিল বিভাগ আবেদন নিষ্পত্তি করে বিচারপতি খন্দকার মুসা খালেদ ও বিচারপতি এফ এইচ মুহাম্মদ নুরুল হুদা জায়গীরদারের বেঞ্চে শুনানির আদেশ দেন।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে