Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-২১-২০১৯

ইডেন টেস্টে মোস্তাফিজ না আল আমিন, নাকি দু’জনই?

ইডেন টেস্টে মোস্তাফিজ না আল আমিন, নাকি দু’জনই?

কলকাতা, ২১ নভেম্বর - ইন্দোরের হালকা ঘাসের উইকেটে আগুন ঝরিয়েছিলেন ভারতীয় পেসাররা। মোহাম্মদ শামি, উমেষ যাদব এবং ইশান্ত শর্মা। এই তিন পেসারকে সামলাতেই গলদঘর্ম হতে হয়েছিল বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। বিপরীতে বাংলাদেশ দলে পেসার ছিলেন কেবল দু’জন। এবাদত হোসেন এবং আবু জায়েদ রাহী।

ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে কিছুটা হলেও সমীহ আদায় করতে পেরেছিলেন রাহী। কিন্তু এবাদত হোসেনকে বলতে গেলে হেরে-খেলেই সামলেছেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল, আজিঙ্কা রাহানেরা।

ইডেন গার্ডেন্সে দিবা-রাত্রির টেস্টে গোলাপি বলেও পেসাররা ঝড় তুলবেন ২২ গজে। ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি তো ইতিমধ্যে বলেই দিয়েছেন, গতি এবং বলের নিয়ন্ত্রণের ওপরই নজর তার।

এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ দলে গুঞ্জন, অতিরিক্ত পেসার খেলানো হতে পারে। দুই পেসারের পরিবর্তে খেলানো হবে তিন পেসার। সে ক্ষেত্রে স্পিনার তাইজুল ইসলামের ওপরই কোপটা পড়তে পারে। অতিরিক্ত একজন পেসার খেলানো হলে তাইজুলকেই বাদ দিতে হবে টিম ম্যানেজমেন্টকে।

শুধু তাইজুলই নয়, বাদ পড়ার গুঞ্জন রয়েছে পেসার এবাদত হোসেনেরও। ইন্দোরে লম্বা সময় ধরে বোলিং করে যাওয়ার পরও খুব বেশি প্রভাব বিস্তার করতে না পারার কারণে, ইডেনে গোলাপি বলের টেস্টে তার ব্যাপারে নতুন করে চিন্তা-ভাবনা করছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট।

ভারতীয় মিডিয়ার খবর, ইডেনের ২২ গজে রয়েছে ঘাসের আভা। তবে দিন কয়েক আগেও আউটফিল্ডের সঙ্গে আলাদা করা যাচ্ছিল না উইকেটকে। গতকাল বুধবার সকালে উইকেট অতটা সবুজ দেখাচ্ছিল না। ভারতীয় ক্রিকেটমহলে একটা ভাবনা ঘুরে বেড়াচ্ছে যে, দ্রুত খেলা শেষ হয়ে যাক, তা একেবারেই চাইছে না ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই এবং পশ্চিম বঙ্গের সিএবি।

এ কারণেই ঘাস যতটা সম্ভব ছেঁটে ফেলার চেষ্টা করা হচ্ছে। গোলাপি টি-শার্ট পরা ইডেনের কিউরেটর সুজন মুখোপাধ্যায় কলকাতার বলেন, ‘রোলার চলছে। রোদের তাপও যথেষ্ট। এই দুই কারণেই উইকেটের ঘাসকে বাদামি দেখাচ্ছে। এবার খেলা কতদিন চলবে, তা নির্ভর করছে ক্রিকেটারদের উপরই।’

উইকেটের যে অবস্থা শোনা যাচ্ছে, তাতে বাঁ-হাতি মোস্তাফিজ এবং ডান-হাতি আল-আমিন হোসেন- এই দুই পেসারের মধ্যে একজনে খেলানোর সম্ভাবনা বেশি। যদিও দ্বিতীয়জনকেই দৌড়ে এগিয়ে রাখা হচ্ছে। তবে, এবাদত হোসেনকে বাদ দিলে ইডেনে হয়তো মোস্তাফিজ এবং আল-আমিন, এই দু’জনকেই একসঙ্গে খেলানো হতে পারে।

এর কারণ হচ্ছে, নেটে মোস্তাফিজের কিছু দুরন্ত ডেলিভারি। বুধবার মুস্তাফিজুর রহমানের দুরন্ত কিছু ডেলিভারি বাংলাদেশ শিবিরে এখন আশার আলো ফোটাচ্ছে।

ছন্দে না থাকায় প্রথম টেস্টে মোস্তাফিজকে খেলানো হয়নি; কিন্তু ইডেনের গতিময় পিচ ও গোলাপি বল তার প্রত্যাবর্তনের মঞ্চ হতে পারে। গঙ্গার দিক থেকে আসা হাওয়া ও ঘাসে ভরা উইকেটের সাহায্য যদি এ ম্যাচেও তিনি তুলতে না পারেন, তাহলে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে তার ভবিষ্যৎ পুরোপুরি অনিশ্চিত হয়ে যাবে।

মোস্তাফিজুরের সঙ্গেই নেটে ভয়ঙ্কর দেখা গেছে আল আমিন হোসেনকে। অধিনায়ক মুমিনুল হক তার বিরুদ্ধে একাধিকবার পরাস্ত হন নেটে। সমস্যায় পড়েছেন মুশফিকুর রহীমও। বাংলাদেশ দলের একটি সূত্র জানিয়েছেন, মোস্তাফিজের সঙ্গে আল আমিনকেও খেলানো হতে পারে ইডেনে। তৃতীয় পেসার হবেন হয়তো আবু জায়েদ রাহী।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ২১ নভেম্বর

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে