Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ , ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-০৮-২০১৯

গান্ধী পরিবারের ‘বিশেষ নিরাপত্তা’ তুলে নেওয়া হলো

গান্ধী পরিবারের ‘বিশেষ নিরাপত্তা’ তুলে নেওয়া হলো

নয়াদিল্লী, ০৮ নভেম্বর - ভারতের বিশেষ নিরাপত্তা দলের (এসপিজি) সুরক্ষায় আর থাকছে না গান্ধী পরিবার। তাদের থেকে এসপিজি সুবিধা তুলে নেওয়ার সিন্ধান্ত নিয়েছে নরেন্দ্র মোদি সরকার।

আজ শুক্রবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এবং তার দুই সন্তান রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এখন থেকে সাধারণ মানের ‘জেড প্লাস’ ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পাবেন।  তবে এ বিষয়ে এখনো কিছু জানে না গান্ধী পরিবারের সদস্যরা।

সম্প্রতি নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক পর্যালোচনা শেষে গান্ধী পরিবারের ওপর থেকে বিশেষ নিরাপত্তা তুলে নেওয়ার হয়। তিন হাজার সদস্য বিশিষ্ট অভিজাত এ নিরাপত্তা বাহিনীটি এখন থেকে শুধু দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিরাপত্তা দেবে। আর গান্ধী পরিবার পাবে জেড প্লাস নিরাপত্তা। কেন্দ্রীয় সংরক্ষিত পুলিশে দল (সিআরপিএফ) নিয়োজিত থাকবে গান্ধী পরিবারের নিরাপত্তার দায়িত্বে।

এর আগে চলতি বছরের আগস্টে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের নিরাপত্তার দায়িত্ব থেকেও এসপিজি’কে সরিয়ে নেওয়া হয়। আর  সিদ্ধান্তটি এমন সময় নেওয়া হলো যখন কি না কংগ্রেস নেতারা গান্ধী পরিবারের নিরাপত্তার মান কমিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করে আসছে সরকারের বিরুদ্ধে।  এমন অভিযোগে গান্ধী পরিবারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর না করে বরং এসপিজি তুলে নেওয়ার বিষয়টির রাজনৈতিক হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, নিজের বডিগার্ডদের হাতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী নিহত হওয়ার পরের বছর অর্থ্যাৎ ১৯৮৫ সাল থেকেই প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারদের নিরাপত্তা প্রদানে বিশেষ বাহিনী এসপিজি গড়ে তোলা হয়। প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন এবং পরবর্তী ১০ বছর এ সুবিধা পাওয়ার বিধান রাখা হয়। এরপর সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর মৃত্যুর পর থেকেই এসপিজি’র নিরাপত্তা পেয়ে আসছে গান্ধী পরিবার।  

পরবর্তীতে ২০০৩ সালে বিজেপি’র অটল বিহারি বাজপেয়ী’র বিজেপি সরকার আইনটি সংশোধন করে ১০ বছরের পরিবর্তে এক বছরের বিধান চালু করে। তবে পরিস্থিতি সাপেক্ষে কেন্দ্রীয় সরকার চাইলে এক বছরের বেশি সময়ও এ সুবিধা বহাল রাখার বিধান রাখা হয়।

সুত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ০৮ নভেম্বর

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে