Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-০৬-২০১৯

পাঁচ বছরে ১৫ হাজার শতাংশ সম্পত্তি বেড়েছে অমিত পুত্র জয়ের!‌

পাঁচ বছরে ১৫ হাজার শতাংশ সম্পত্তি বেড়েছে অমিত পুত্র জয়ের!‌

নয়া দিল্লী, ৬ নভেম্বর- ২০১৪ সালে স্লোগানটা ছিল সবকা সাথ সবকা বিকাশ। ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল স্লোগানটি। কেন্দ্রের ক্ষমতায় এসেছিলেন নরেন্দ্র মোদি–নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। আর তাঁর সেনাপতি ছিল বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তবে সবার বিকাশ হল না। বিকাশ হল কতিপয় কিছু মানুষের। তার মধ্যে অবশ্য ছিলেন অমিত শাহের ছেলে জয় শাহ। যাঁর সংস্থা কুসুম ফিনসার্ভ এলএলপি ২০১৪ সালে বার্ষিক আয় ছিল ৭৯.‌৬০ লাখ টাকা। আর ২০১৯ সালে পৌঁছতেই বেড়ে দাঁড়াল ১১৯.‌৬১ কোটি টাকা।

এই বিপুল পরিমাণ আর্থিক বৃদ্ধির পেছনে ক্ষমতা রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। এমনকী বিকাশ যে তাঁর হয়েছে তা একবাক্য মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। দেশের কর্পোরেট মন্ত্রক সূত্রে খবর, এলএলপি একটি বিকল্প কর্পোরেট বিষয়ক বাণিজ্যিক সংস্থা যারা পার্টনারশিপে ব্যবসা করে এবং নানা সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে সমাজে। এই সংস্থা প্রত্যেক বছর ৩০ অক্টোবর আয়–ব্যয়ের খতিয়ান দাখিল করে থাকে। যাদের ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হতে পারে।
 
কেন এই জরিমানা?‌ জানা গিয়েছে, এই কুসুম ফিনসার্ভ এলএলপি ২০১৭–২০১৮ অর্থবর্ষের আয়–ব্যয়ের খতিয়ান দাখিল করেনি। এমনকী চূড়ান্ত সময়সীমাও অতিক্রম করে যাওয়ার পরও তা দাখিল করা হয়নি। যখন কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল আয়কর দেওয়া এবং আর্থিক খতিয়ান দাখিল করা সব সংস্থার ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক। আর ২০১৭–১৮ আর্থিক বছরে আর্থিক বৃদ্ধি এই সংস্থার বেশ বেড়ে গিয়েছিল। এই নিয়েই কংগ্রেস প্রশ্ন তুলে দিলে নড়েচড়ে বসে মন্ত্রক। ‌‌

আর/০৮:১৪/০৬ নভেম্বর

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে