Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (12 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-০৪-২০১৯

পোশাক খাতের ডিজিটাল মজুরিতে বিকাশের ভূমিকা প্রশংসনীয়

পোশাক খাতের ডিজিটাল মজুরিতে বিকাশের ভূমিকা প্রশংসনীয়

ঢাকা, ০৫ নভেম্বর- বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতের শ্রমিকদের ডিজিটাল পদ্ধতিতে মজুরি বিতরণ এবং নারীর ক্ষমতায়নে এর প্রভাবের প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশে পরিদর্শনে আসা বিশ্বব্যাংক গ্রুপের নির্বাহী পরিচালকরা।

সোমবার সাভারের আশুলিয়ায় নিউএজ গ্রুপের কারখানা পরিদর্শনে এসে প্রতিনিধিদল বিকাশে বেতন প্রদানে তৈরি পোশাককর্মীদের জীবনযাত্রার পরিবর্তন এবং কারখানাগুলোর উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির খোঁজ-খবর নেন। তারা কর্মীদের কাজের পরিবেশ, অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে কর্মীদের জন্য বিকাশের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিগুলো ঘুরে দেখেন এবং মতবিনিময় করেন। বিকাশ ও নিউএজ গ্রুপের কর্মকতাদের সঙ্গেও নানান গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কথা বলেন তারা।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে বিশ্বব্যাংকের কার্যক্রমগুলো কেমন চলছে, নিম্নমধ্যম আয়ের দেশের শক্তিশালী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির চ্যালেঞ্জগুলো কী, ইত্যাদি বিষয়ে ধারণা নিতেই বিশ্বব্যাংকের নির্বাহী পরিচালকরা বাংলাদেশে এসেছেন। তারই অংশ হিসেবে বিশ্বব্যাংক গ্রুপের অন্তর্গত ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশনের অংশীদার বিকাশ ও নিউএজ গ্রুপের মতো তাদের বিভিন্ন অংশীদ্বারদের সঙ্গেও মতবিনিময় করেছেন প্রতিনিধিদল।

বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর সামগ্রিক পেমেন্ট ডিজিটাইজেশনের ওপর আলোকপাত করে বলেন, আর্থিক সেবাগ্রহণে এখনও দেশে লিঙ্গবৈষম্য রয়েছে এবং বিকাশের মতো সেবাগুলো এই বৈষম্য দূর করতে ভূমিকা রাখছে। সংখ্যাগরিষ্ঠ নারীশ্রমিক নির্ভর তৈরি পোশাক খাতে ডিজিটাল বেতন বিতরণ নারীদের আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

বিশ্বব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর প্যাট্রিজিও প্যাগানো বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতে আমরা ব্যাপক পরিবর্তন দেখেছি। আগে কারখানাগুলো নগদ টাকা বা ব্যাংকের মাধ্যমে বেতন বিতরণ করত- যা ঝামেলাপূর্ণ এবং সময়সাপেক্ষ ছিল। ডিজিটাল পদ্ধতিতে বেতন বিতরণ কর্মী এবং মালিকপক্ষ উভয়ের জন্য লাভজনক। বৃহত্তম ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল সমৃদ্ধ বিকাশে বেতন প্রদান করে কারখানাগুলো আরও গতিশীল, উৎপাদনক্ষম এবং কর্মীবান্ধব হয়ে উঠছে।

নিউএজ গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্প নিয়ে কথা বলেন এবং বেতন ডিজিটাইজেশনের ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, এই পদ্ধতিতে শ্রমিকদের সুবিধার সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনিক ব্যয় কমে, আন্তর্জাতিক ক্রেতারা আকৃষ্ট হয় এবং কারখানার উৎপাদনও বৃদ্ধি পায়। তিনি আইএফসি ও বিকাশকে ধন্যবাদ জানান।

বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদল পর্যবেক্ষণ করেন, বেতনগ্রহণে কর্মীরা বিকাশকে সবচেয়ে সুবিধাজনক অপশন মনে করছেন। বিকাশে বেতন পাওয়া এবং সরাসরি বাড়িতে টাকা পাঠানোর সুযোগ তাদের জীবন সহজ করেছে। অন্য বিকাশ অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো ছাড়াও মোবাইলফোন রিচার্জ, দোকানে পণ্য কিনে পেমেন্ট, বিদ্যুৎবিল পরিশোধের মতো কাজেও তারা বিকাশ ব্যবহার করছেন।

বর্তমানে ২৮০টি তৈরি পোশাক কারখানার প্রায় তিন লাখ ৫০ হাজার পোশাককর্মী বিকাশে বেতন পাচ্ছেন।

সূত্র : জাগো নিউজ২৪
এন কে / ০৫ নভেম্বর

ব্যবসা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে