Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (6 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-২৬-২০১৯

রোজভ্যালি কাণ্ডে দময়ন্তী সেনকে সিবিআই তলব, কথা বলতে চেয়ে চিঠি

রোজভ্যালি কাণ্ডে দময়ন্তী সেনকে সিবিআই তলব, কথা বলতে চেয়ে চিঠি

কলকাতা, ২৬ অক্টোবর- রোজভ্যালি কাণ্ডে এবার সিবিআইয়ের নজরে দুঁদে  পুলিশ অফিসার দময়ন্তী সেন। তৎকালীন গোয়েন্দা প্রধানের সঙ্গে কথা বলতে চেয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে চিঠি দিল সিবিআই। সেসময় দময়ন্তী সেন রোজভ্যালি সংক্রান্ত অভিযোগের তদন্ত করে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সেবিকে রিপোর্ট জমা দিয়েছিলেন। সে কারণে সিবিআইয়ের জিজ্ঞাসাবাদে তালিকায় প্রথমের দিকেই নাম তাঁর নাম রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

২০১০ সালে কলকাতা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ দমন) পদে ছিলেন দময়ন্তী সেন। সেসময় রোজভ্যালি সংস্থা সম্পর্কে বেশ কিছু অভিযোগ তাঁর কাছে জমা পড়ে। আর্থিক দুর্নীতি সংক্রান্ত সেসব অভিযোগের তদন্ত করেন তিনি। এরপর নিজেই আর্থিক প্রতারণা নিয়ন্ত্রক সংস্থা সেবিকে তার রিপোর্ট জানিয়ে চিঠি লেখেন। তাঁর চিঠিকে গুরুত্ব দিয়েই রোজভ্যালি বেআইনিভাবে বাজার থেকে টাকা সংগ্রহ করছে, তা বুঝতে পেরে সংস্থাটির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সেবি। সূত্রের খবর, সেসময় দময়ন্তী সেনের তদন্ত রিপোর্ট বিস্তারিত জানতে চেয়েই তাঁকে ডেকে পাঠাচ্ছে সিবিআই। এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেলে, রোজভ্যালি কেলেঙ্কারি জট দ্রুত ছাড়ানো যাবে বলে মনে করছেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা।

পরবর্তী সময়ে কলকাতার পুলিশের এমন গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে রাজ্য পুলিশে বদলি হয়ে যান অন্যতম দুঁদে অফিসার দময়ন্তী সেন। মাস কয়েক আগে ফের ফিরেছেন কলকাতা পুলিশে। আপাতত তিনি কলকাতা পুলিশের অতিরিক্তি কমিশনার (৩)। তাই তাঁকে এবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিজি বীরেন্দ্রকে চিঠি পাঠানো হয়েছে সিবিআইয়ের তরফে। সূত্রের খবর, কোথায় গিয়ে তাঁরা দময়ন্তী সেনের সঙ্গে কথা বলতে পারেন, তাও জানতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু এ বিষয়ে আইপিএস অফিসার এখনও পর্যন্ত কোনও উত্তর দেননি বলেই খবর।

দময়ন্তী সেনের পাশাপাশি কলকাতা পুলিশে কর্মরত আরেক পদস্থ অফিসার ওয়াকার রাজাকেও তলব করেছে সিবিআই। তিনি জানিয়েছেন, তাঁকে ডিজি বীরেন্দ্রর মাধ্যমে ডেকে পাঠানো হয়েছে। ২০১২ সালে রাজা সিআইডি-র স্পেশ্যাল সুপার পদে ছিলেন। সেসময় রোজভ্যালি-সহ একাধিক বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠতে থাকায় নিয়মিত নজরদারি করত সিআইডি। নিয়মিত বৈঠক করতেন অফিসাররা। সেদিক থেকে রাজার কাছেও বহু তথ্য থাকতে পারে বলে মনে করছেন সিবিআই তদন্তকারীরা। তলব পেয়ে রাজা জানিয়েছেন, কেলেঙ্কারির জট খুলতে তিনি তাঁর সাধ্যমতো সিবিআইকে সাহায্য করবেন।

আর/০৮:১৪/২৬ অক্টোবর

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে