Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ , ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-২০-২০১৯

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী

ঢাকা, ২০ অক্টোবর- যেকোনো উপায়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গা নাগরিকদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আজ রোববার অর্থমন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

গতকাল শনিবার ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে রোহিঙ্গা শরনার্থী বিষয়ক এক গোল টেবিল বৈঠক এবং বিশ্বের দুটি শীর্ষ স্থানীয় ব্যাংক সিটি ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ও এইচএসবিসি ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠকে বিশ্বব্যাংকের কাছে এ সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে এ বৈঠকে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শেফার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ, অর্থ সচিব আবদুর রউফ তালুকদারসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের জন্য আমরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। তাই তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। এ ক্ষেত্রে কোনো বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই, শুধু তাদেরকে ফিরিয়ে নিতে হবে।’

সরকারের এই মন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিববীর অন্যতম প্রধান জনবসতি ঘনত্বপূর্ণ দেশ বাংলাদেশ। বাংলাদেশ হচ্ছে একটি সামাজিক বন্ধন ও সম্প্রীতির দেশ। এটি আমাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্যও একটি হাতিয়ার। এখানে একে অপরের কষ্টে ব্যথিত হয়, যেকোনো ধরনের আপদ-বিপদে একে-অপরকে যেভাবে সাহায্য সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসে তা যেকোনো দেশের ইতিহাসে বিরল।’

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি বিশ্বব্যাংক বিশ্ববাসীর সঙ্গে আলাপ করে একটা পজেটিভ সিদ্ধান্ত নেবে। ইতিমধ্যে মিয়ানমারের সাথে আমাদের তাদের নিয়ে যাওয়ার চুক্তি হয়েছে, কিন্তু সেখানে কোনো টাইমলাইন দেওয়া হয়নি। আশা করি দ্রুত টাইম লাইন আসবে। কীভাবে দ্রুত সময়ে তাদের নিজ দেশে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ফিরিয়ে যেতে পারে সেই বিষয়ে বিশ্বব্যাপী জনমত গড়ে তোলার জন্য বিশ্বব্যাংকে জোরালো ভূমিকা রাখতে বলেছে বাংলাদেশ। এই বিষয়ে ইতিবাচক মনোভব প্রকাশ করেছেন হার্টউইগ শেফার।’

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নাগরিকদের বাংলাদেশে মানবিক কারণে আশ্রয় দেওয়া হলেও এখন তার উচ্চমূল্য দিতে হচ্ছে। কক্সবাজারসহ ওই এলাকার পুরো পরিবেশ বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। এতে আমাদের সামাজিকভাবে ও জলবায়ুগত চ্যালেঞ্জ বাড়ছে। আমাদের সামাজিক বন্ধনসহ যেসব ক্ষতি হচ্ছে তা ডলার বা টাকার অঙ্কে পরিমাপ করা সম্ভব নয়। তাই রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে, এটাই আমাদের প্রধান চাওয়া।’

বিশ্বের দুটি শীর্ষ স্থানীয় ব্যাংক সিটি ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ও এইচএসবিসি ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠক সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যাংক দুটি বাংলাদেশে পুঁজিবাজার ও বন্ড মার্কেটে বিনিয়োগ বাড়াতে চায়। এই সংক্রান্ত দুটি প্রস্তাব আলাদাভাবে বিশ্বব্যাংকের সভায় অর্থমন্ত্রীর কাছে তোলা হয়েছে। এইচএসবিসি মালয়েশিয়ায় জনপ্রিয় সুকুব বন্ড ইস্যু করতে চায়। বাংলাদেশের ব্যাংকিংখাতে পাবলিক ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ইসলামী ব্যাংকিং পদ্ধতি চালু নেই। তবে সেটা বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলোতে চালু রয়েছে। এই জন্য তাদের প্রস্তাব নিয়েছি এগুলো যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সূত্র : আমাদের সময়
এন কে / ২০ অক্টোবর

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে