Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ , ৮ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-০৭-২০১৯

খোলাবাজারে ডলারের দাম বেড়েছে

খোলাবাজারে ডলারের দাম বেড়েছে

ঢাকা, ০৭ অক্টোবর - টাকার বিপরীতে ডলারের দাম বেড়েছে। সর্বশেষ ২ অক্টোবর খোলাবাজারে প্রতি ডলার ৮৭ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এক মাস আগেও প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য ছিল ৮৫ টাকা ৫০ পয়সা।

এক মাসের ব্যবধানে তা বেড়েছে প্রায় দেড় টাকা। আবার রফতানিকারক ও প্রবাসীদের সুবিধা দিতে সামনে ব্যাংকিং চ্যানেলেও ডলারের দাম বাড়ানোর দাবি উঠেছে।

ব্যাংকসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকের বাইরে বড় অঙ্কের টাকা চলে গেছে। সাম্প্রতিক দুর্নীতিবিরোধী অভিযানকে ঘিরে যে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে, তাতে অপরাধীদের একটি অংশের বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। আবার অনেকে দেশে থাকলেও টাকা পরিবর্তন করে ডলার করে রাখছেন। এ ক্ষেত্রে বেশিরভাগ লোকই খোলাবাজার থেকে ডলার কিনছেন।

কারণ ব্যাংক থেকে ডলার কিনতে গেলে নানা কাগজপত্র লাগে। কিন্তু খোলাবাজার থেকে সহজে টাকা দিয়ে ডলার কেনা যায়। এ পরিস্থিতিতে খোলাবাজারে ডলারের চাহিদা বাড়লেও সে অনুযায়ী সরবরাহ নেই। ফলে চাপ বেড়ে গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি ব্যাংকের এমডি বলেন, বেসরকারি অনেক বড় আমদানির দায় পরিশোধ হচ্ছে। এ কারণে অনেককে খোলাবাজার থেকে ডলার কিনতে হচ্ছে। তবে খোলা বাজারে দাম বাড়লে বড় ক্ষতি হবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ব্যাংকগুলো নিজেদের মধ্যে এখনও ৮৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে ডলার লেনদেন করছে। এই দরে ২৩ সেপ্টেম্বর ব্যাংকগুলো নিজেদের মধ্যে ১৩ কোটি ডলার, ২৪ সেপ্টেম্বর ১৫ কোটি, ২৫ সেপ্টেম্বর ১৩ কোটি ও ২৬ সেপ্টেম্বর ১৯ কোটি ডলার কেনাবেচা করে। বৃহস্পতিবারও ৮৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে ব্যাংকগুলো ডলার কেনাবেচা করেছে। তবে বৃহস্পতিবার জনতা ব্যাংক আমদানি ব্যয় পরিশোধের জন্য (বিল সেলিং রেট) প্রতি ডলারের দাম দেয় ৮৪ টাকা ৬৫ পয়সা। সেদিন ব্যাংকটি নগদে প্রতি ডলার বিক্রি করেছে ৮৬ টাকা ৬০ পয়সায়। কথা হল যুক্তরাষ্ট্রগামী লিয়াকত আলীর সঙ্গে। তিনি ১ অক্টোবর মতিঝিলের মানি চেঞ্জার থেকে ৮৭ টাকা দরে ডলার কিনেছেন। তিনি বলেন, এত দামে আগে কখনও ডলার কিনিনি। আগে সর্বোচ্চ প্রতি ডলারে ৮৬ টাকা দিয়েছি।

ব্যাংকের পাশাপাশি খোলাবাজার ও মানি চেঞ্জারের লেনদেনও পর্যবেক্ষণ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, পুরো জুলাই মাসে প্রতি ডলার ৮৫ টাকা ৩০ পয়সা দরে বিক্রি হয়। আগস্টে তা বেড়ে ৮৬ টাকা ৫০ পয়সা পর্যন্ত হয়। সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে কোনো কোনো দিন প্রতি ডলার ৮৭ টাকায়ও বিক্রি করে মানি চেঞ্জারগুলো।

এদিকে ব্যাংকগুলোতে এখনও ডলারের তেমন চাপ নেই। এ কারণে বাংলাদেশ ব্যাংককে ডলার বিক্রি করতে হচ্ছে না। সাধারণত ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে চাহিদা তৈরি হলে ডলার বিক্রি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ব্যাংকগুলোর কাছে ২৩৩ কোটি ৯০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে ব্যাংকগুলোকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ১৯ হাজার ৬৫৫ কোটি টাকার ডলার কিনতে হয়। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ব্যাংকগুলোকে ১৯ হাজার ৪৯ কোটি টাকার ডলার কিনতে হয়েছিল। জুলাই মাসে বিক্রি করে ৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার, আগস্টে বিক্রি করে ২ কোটি ৩০ লাখ ডলার। সেপ্টেম্বরে কোনো ডলার বিক্রি করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক।

সূত্র : যুগান্তর
এন এইচ, ০৭ অক্টোবর

ব্যবসা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে