Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯ , ৪ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-২১-২০১৯

চালক নয়, ড্রাইভিং সিটে ছিল কন্ডাক্টর

জসীম উদ্দীন


চালক নয়, ড্রাইভিং সিটে ছিল কন্ডাক্টর

ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর- চালক মো. সুমন বাসটি না চালিয়ে পাশের সিটে বসে ছিলেন। আর ড্রাইভিং সিটে বসেন কন্ডাক্টর আক্তার হোসেন। টঙ্গী থেকে আসা ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের বাসটি বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে আসছিলে কন্ডাক্টর। বাসটি তুরাগে আসার পর সদরঘাটগামী অপেক্ষমাণ যাত্রী সংগীত শিল্পী ও পরিচালক পারভেজ রবকে চাপা দেয়। পরিস্থিতি বুঝে ঘটনাস্থলেই বাস ফেলে পালিয়ে যান সুমন ও আক্তার।

মারা যান পারভেজ রব। ঘটনার পর মামলা করা হয়। গা ঢাকা দেন সুমন ও আক্তার। দুজনই একসঙ্গে ঢাকা ত্যাগ করেন। গত ১৩ সেপ্টেম্বর দুজনই তাদের ব্যবহৃত মোবাইলফোন যমুনা নদীতে ফেলে দেন। তবে তাতেও রক্ষা হয়নি। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় চালক মো. সুমন এবং সহকারী (কন্ডাক্টর) আক্তার হোসেনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন মাসদাইড় বাজার এলাকা থেকে চালক সুমনকে এবং শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানাধীন দিনারা এলাকা থেকে কন্ডাক্টর আক্তার হোসেনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা উত্তর বিভাগের একটি টিম।


এ ব্যাপারে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা উত্তর বিভাগের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান বাস চাপার ঘটনা ও গ্রেফতার সম্পর্কে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চালক সুমন জানান, ঘটনার সময় বেপরোয়া গতির ওই বাসটির চালকের আসনে ছিলেন না তিনি। তিনি পাশের সিটে বসে ড্রাইভিং সিটে বসিয়ে দেন কন্ডাক্টর আক্তার হোসেনকে। ওইটাই কাল হয়। বেপরোয়া গতিতে বাসটি চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটান আক্তার।

গোয়েন্দা পুলিশের ডিসি মশিউর বলেন, বাসটির আসল চালক সুমনের ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকলেও কন্ডাক্টর আক্তারের নেই। তারপরও তিনি বাসটি চালাচ্ছিলেন। আক্তার মাঝে-মধ্যেই সুযোগ পেলেই ড্রাইভিং সিটে বসতেন।

মশিউর রহমান বলেন, চালক ও কন্ডাক্টরকে তুরাগ থানায় করা মামলায় (মামলা নং ৮) গ্রেফতার দেখিয়ে আজ আদালতে সোপর্দ করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে। রিমান্ড মঞ্জুর হলে তাদের বিশদভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।


গত ৫ সেপ্টেম্বর’ বেলা ১১টায় তুরাগ থানাধীন ধউর ইস্টওয়েস্ট মেডিকেল কলেজের সামনে মেইন রোডের উত্তর পাশে সংগীত শিল্পী ও পরিচালক পারভেজ রব সদর ঘাট যাওয়ার উদ্দেশ্যে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় ভিক্টর ক্লাসিক নামের বাসটি (রেজিঃ নং-ঢাকা মেট্রো-ব-১২-০৯৬৩) থামানোর জন্য সংকেত দিলে গাড়ির চালক বাসটি না থামিয়ে বেপরোয়া ও দ্রুত গতিতে বাসটি চালিয়ে পারভেজ রবকে চাপা দেয়। হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী রুমানা বেগম বাদী হয়ে তুরাগ থানায় একটি মামলা করেন।

ওই ঘটনার বিষয়ে ভিক্টর ক্লাসিক গাড়ির মালিক, ম্যানেজার, ড্রাইভার ও হেলপারদের খোঁজ করতে গেলে বাদী, বাদীর ছেলে ইয়াছির আলভী রব ও ছেলের বন্ধু মেহেদী হাসান ছোটনদেরকে ভিক্টর ক্লাসিকের অপর একটি বাস উত্তরা ৯নং সেক্টর এলাকায় গাড়ি চাপা দেয়। ওই ঘটনায় ইয়াছির আলভী রব গুরুত্বর আহত হয়। এবং মেহেদী হাসান ছোটন নিহত হন। ওই ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় আরেকটি মামলা দায়ের হয়।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/২১ সেপ্টেম্বর

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে