Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-১৭-২০১৯

‘করতেই হচ্ছে’ সিলেট আওয়ামী লীগের সম্মেলন!

রফিকুল ইসলাম কামাল


‘করতেই হচ্ছে’ সিলেট আওয়ামী লীগের সম্মেলন!

সিলেট, ১৭ সেপ্টেম্বর- বেলা বয়ে গেছে অনেক, সুরমার জল গড়িয়েছে বহুদূর। তবু সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের কোনো আভাসই ছিল না। সম্মেলন নিয়ে শীর্ষ নেতাদেরও ছিল না কোনো আগ্রহ। ফলে তিন বছরের কমিটি দিয়ে পার হয়ে গেছে আট বছর। অবশেষে কেন্দ্রের কঠোরতায় সম্মেলন করতেই হচ্ছে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগকে। কেন্দ্র থেকে স্পষ্টভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সকল কমিটির সম্মেলন সম্পন্ন করতে হবে। এরই প্রেক্ষিতে সম্মেলনকে ঘিরে তোড়জোড় শুরু করছেন সিলেট আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের চার সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয় ২০১১ সালের ২১ নভেম্বর। পরদিন উভয় শাখায় ৭১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করা হয়। এ কমিটির মেয়াদ ছিল ৩ বছর, ২০১৪ সালের নভেম্বর পর্যন্ত। এরপর সম্মেলন আয়োজন করে নতুন কমিটি গঠনের কথা ছিল। কিন্তু ওই ২০১১ সালের কমিটি দিয়ে এখনও সাংগঠনিক কার্যক্রম চালাচ্ছে সিলেট আওয়ামী লীগ। ৩ বছরের কমিটি পার করে দিচ্ছে প্রায় ৮ বছর।

দীর্ঘদিন কমিটি না হওয়ায় সিলেট আওয়ামী লীগে একদিকে নতুন নেতৃত্ব ওঠে আসছে না, অন্যদিকে সাংগঠনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা নেমে আসছে বলে অভিযোগ নেতাকর্মীদের।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এটিএম হাসান জেবুল ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক জগলু চৌধুরী বলছিলেন, ‘রাজনৈতিক দলের জন্য সম্মেলন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সম্মেলনের মাধ্যমে নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত ও সক্রিয় হয়ে ওঠেন, গতিশীল হয় দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম। সিলেট আওয়ামী লীগে এখন সম্মেলন জরুরি।’

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভা দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। তবে কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগে দেশের সকল জেলা, মহানগর, পৌরসভা, উপজেলা, থানা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের মেয়াদোত্তীর্ণ শাখা সমূহের সম্মেলন শেষ করতে নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা।

এরই প্রেক্ষিতে পরদিন (১৫ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দেশের সকল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীলদের কাছে চিঠি পাঠান। চিঠিতে নির্দেশ দেওয়া হয়, জেলা ও মহানগর শাখার আওতাধীন প্রতিটি মেয়াদোত্তীর্ণ ইউনিটের সম্মেলন আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবরে ওই চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে।

তবে ওই চিঠি সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত হাতে আসেনি বলে এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ।

সম্মেলনের বিষয়ে আসাদ উদ্দিন আহমদ সিলেটভিউকে বলেন, ‘কেন্দ্র থেকে ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্মেলন সম্পন্ন করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে শুনেছি। তবে কেন্দ্রের নির্দেশনার চিঠি এখনও হাতে আসেনি। সম্মেলনের ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে যে নির্দেশনা দেওয়া হবে, আমরা তা পালন করবো। আমরা সম্মেলন আয়োজনের জন্য প্রস্তুত আছি।’

শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘কেন্দ্রের নির্দেশনার চিঠি এখনও পাইনি। তবে সম্মেলন আয়োজন করতে আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে।’

জানা গেছে, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আগে উভয় শাখার আওতাধীন বিভিন্ন মেয়াদোত্তীর্ণ ইউনিটের সম্মেলন করে কমিটি গঠন করা হবে।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক জগলু চৌধুরী এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘সিলেটে ৬টি উপজেলায় আমাদের কমিটি আছে, বাকি ৭টিতে কমিটি করতে হবে। এছাড়া ৪টি পৌর কমিটি এবং বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন কমিটিও গঠন করতে হবে। আশা করছি ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে এসব কমিটি গঠনের কাজ শেষ হবে। বিভিন্ন ইউনিটের সম্মেলনের জন্য আমরা শিগগিরই বৈঠকে বসবো।’

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ জানিয়েছেন, মহানগরের আওতাধীন ২৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে কয়েকটির কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ। সম্মেলনের মাধ্যমে এগুলোর কমিটি করা হবে।

সূত্র: সিলেটভিউ

আর/০৮:১৪/১৭ সেপ্টেম্বর

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে