Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-০৬-২০১৩

শ্রীমঙ্গলে দরিদ্র মৎস্যজীবিদের ইজারাকৃত জলমহাল ভোগ দখলে প্রভাবশালীরা


	শ্রীমঙ্গলে দরিদ্র মৎস্যজীবিদের ইজারাকৃত জলমহাল ভোগ দখলে প্রভাবশালীরা

মৌলভীবাজার, ০৬ অক্টোবর- জলমহাল ইজারা আসে দরিদ্র মৎস্যজীবিদের নিয়ে ঘটিত শ্রীমঙ্গল হাজীপুর হাইল হাওর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির নামে আর তা ভোগ দখল করে প্রভাবশালীরা। যার বিন্দুমাত্র সুফল পাননা সংগঠনের দরিদ্র মৎস্যজীবিরা। এভাবেই শ্রীমঙ্গল হাজীপুর হাইল হাওর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির নামে জলমহাল ইজারা নিয়ে জলমহাল নীতিমালার পরিপন্থিভাবে সাব লিজের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সংগঠনের সভাপতি পরবেশ আলীর বিরুদ্ধে।
শ্রীমঙ্গল হাজীপুর হাইল হাওর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সভাপতি পরবেশ আলীর বিরুদ্ধে বহিরাগতদের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নিয়ে সমিতি পরিচালনা, যথা সময়ে কমিটির নির্বাচন আহবান না করা, ডিবির কাড়া বিল জলমহালটি সমিতির নামে ইজারা নিয়ে নিজের নামে চুক্তি বদ্ধ করা, সদস্যদের মতামত বা পরামর্শ গ্রহণ না করাসহ সমিতির সকল সদস্য প্রকৃত মৎস্যজীবি হওয়া সত্বেও বাহিরের লোক দিয়ে জলমহাল ফিসিং করে সমিতির সদস্যদের আর্থিক ক্ষতি সাধনসহ নানা স্বেচ্ছাচারিতা ও অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ তুলে জেলা সমবায় কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখত অভিযোগ দায়ের করেন ওই সংগঠনের সহ সভাপতি মো. বশির মিয়া সহ ১৭ জন সদস্য। এছাড়াও শ্রীমঙ্গল হাজীপুর হাইল হাওর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির নামে মেদী বিল, দলি দছরা, আনলিবেরি লালের ডুবা, বিআই বিল, ডিবির কারা, ছোট খান্দা ও পুআইন্না বিল সহ ৭টি জলমহাল ইজারা নিয়ে সমিতির সভাপতি পরবেশ আলী ২০০৯ এর জলমহাল নীতিমালার পরিপন্থিভাবে সাব লিজের মাধ্যমে ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেন সদস্যরা। অভিযোগের প্রেক্ষিতে শ্রীমঙ্গল উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলমকে তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করা হয়। গত ১৮ জুলাই দাখিলকৃত তদন্ত প্রতিবেদনে পরবেশ আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। এতে সংঘঠনের ২৫জন সদস্যের মধ্যে ১৭জন সদস্য বর্তমান সভাপতি পরবেশ আলীর পদত্যাগ দাবী করেন। পরবর্তীতে গত ২০ আগস্ট স্বাক্ষ্য প্রমাণসহ সমিতির সদস্যরা জেলা সমবায় কর্মকর্তার কার্যালয়ে হাজির হয়ে শুনানী কাজে সহায়তা করেন। একের পর এক তদন্ত পরিচালনা করে প্রভাবশালী মহলটিকে বাঁছাতে বিষয়টিকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মনে করেন দরিদ্র মৎস্যজীবিরা।
এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার জেলা সমবায় কর্মকর্তা তাজ উদ্দিন আহম্মদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, প্রথমে বিষয়টি দুই পক্ষকে নিয়ে আপসে মিমাংসা করার চেষ্টা করা হয়েছিল। এখন তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাওয়ার পর যথাযত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 

মৌলভীবাজার

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে