Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ১ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-১০-২০১৯

আওয়ামী লীগ মিথ্যাচারের কোম্পানি : রিজভী

আওয়ামী লীগ মিথ্যাচারের কোম্পানি : রিজভী

ঢাকা, ১০ সেপ্টেম্বর - বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে বলেছেন, আওয়ামী লীগ মিথ্যাচারের কোম্পানি। এই কোম্পানির বিজ্ঞাপন ম্যানেজার হচ্ছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ ছাড়া সরকারি বিজ্ঞাপন ম্যানেজার হচ্ছেন তাদের তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

তিনি আরও বলেন, এই মিথ্যাচার কোম্পানির চেয়ারম্যান স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। তিনি কী বলেন, আর না বলেন, আজকে দোয়া অনুষ্ঠানে সেটির আর কী বলব!

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় পবিত্র আশুরা উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে এসব কথা বলেন রিজভী আহমেদ। বিএনপির আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে পরিচলনা করে জাতীয়তাবাদী ওলামা দল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে রিজভী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আপনি কীসের গর্ব করেন? আপনার প্রতিটি পদক্ষেপ হচ্ছে হিংসা-বিদ্বেষ ছড়ানো আর কুৎসা রটানো। আপনি আজকে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী, এটা তো জিয়াউর রহমানের দান। আপনি তো এ পদে থাকতে পারতেন না, যদি সেদিন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতির পদে থেকে আপনাকে সুযোগ করে না দিতেন।’

জিয়াউর রহমান অবৈধ রাষ্ট্রপতি ছিলেন-প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী আহমেদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আপনার কাছে জিয়াউর রহমান অবৈধ রাষ্ট্রপতি হতে পারেন। কারণ ডাকাতরা যখন কারও বাড়িতে ডাকাতি করে তারা কি বলে আমরা অবৈধ কাজ করছি? কিন্তু যার বাড়ি ডাকাতি হয় সে বুঝতে পারে কী হয়েছে।’

তিনি বলেন, দেশের মালিক জনগণ তারা বুঝতে পারছে। তাদের ভোটাধিকার, চলাফেরার স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা-সেটা কি হরণ করেনি আওয়ামী লীগের এই ডাকাত সরকার? তিনি (প্রধানমন্ত্রী) তো অস্বীকার করবেন, কারণ তিনি নিজেই তো ডাকাতি করছেন। যারা গণতন্ত্রকে হত্যা করছেন, তারা কি জিয়াউর রহমান সম্পর্কে ইতিবাচক কথা বলবেন? কারণ জিয়াউর রহমানকে স্বীকৃতি দিলে তারা যে হত্যাকারী, এটিতে প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়।

বাকশাল, সংবাদপত্র হরণ করেছিল কে? রাজনৈতিক দলগুলোকে কথা বলার স্বাধীনতা বন্ধ করে দিয়েছিল কে? সমস্ত কিছুর জন্য কে দায়ী? এমন প্রশ্নও রাখেন রিজভী।

জিয়াউর রহমানকে ‘গণতন্ত্রের প্রতীক’ উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘মত প্রকাশের স্বাধীনতা মানে জিয়াউর রহমান, কথা বলার স্বাধীনতা মানেই জিয়াউর রহমান। শান্তিতে ঘুমানো মানেই জিয়াউর রহমান। আইনের শাসন মানেই জিয়াউর রহমান।’

ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা নেসারুল হকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলন সংগঠনের সদস্যসচিব মাওলানা নজরুল ইসলাম, তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, ওলামা দলের কেন্দ্রীয় নেতা শাহ মো. মাসুম বিল্লাহসহ ওলামাদল ও বিএনপির নেতাকর্মীরা।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ১০ সেপ্টেম্বর

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে