Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৫ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-০৯-২০১৯

প্রতারকচক্রের খপ্পরে তিন তরুণের স্বপ্নভঙ্গ

প্রতারকচক্রের খপ্পরে তিন তরুণের স্বপ্নভঙ্গ

চট্টগ্রাম, ১০ সেপ্টেম্বর- সাতক্ষীরা ও লালমনিরহাট থেকে এসে তিন তরুণ নিয়োগ পরীক্ষা দেন চট্টগ্রামে। সরকারি চাকরির নিয়মানুযায়ী পুলিশ ভেরিফিকেশন, ডাক্তারি পরীক্ষাসহ সবকিছুই সম্পন্ন করেছেন। এক সময় হাতে পান কাস্টম কর্মকর্তার স্বাক্ষরিত নিয়োগপত্র। গত ২ থেকে ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে চাকরিতে যোগদান করতে বলা হয় তাতে। জমানো স্বপ্ন নিয়ে নির্ধারিত সময়েই নিয়োগপত্র হাতে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে আসেন তিন তরুণ। কিন্তু নিমিষেই ভেঙে যায় সব স্বপ্ন। তাদের সঙ্গে যা করা হয়েছে, সবই ছিল প্রতারকচক্রের নাটক। বর্তমান কমিশনারের স্বাক্ষর জাল করে নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছিল। বিনিময়ে হাতিয়ে নেওয়া হয় প্রায় ৩৫ লাখ টাকা।

ভুক্তভোগীরা হলেন- লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার পূর্ব বেজগ্রামের কৃষ্ণকান্ত চক্রবর্তীর ছেলে মিলন চক্রবর্তী, সাতক্ষীরার কলারোয়া থানার বোয়ালিয়া গ্রামের আজিজুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম এবং একই থানার ওফাপুর গ্রামের আকিমুদ্দীনের ছেলে আবদুল গফুর।

জানা গেছে, কাস্টম হাউসের কমিশনারের সিলসহ নিয়োগপত্র হাতে নিয়ে গত রবিবার কাস্টমস কমিশনারের একান্ত সহকারীর কক্ষে প্রবেশের পর তিন তরুণ জানতে পারেন সবকিছুই ভুয়া। নিয়োগপত্রে দেওয়া চট্টগ্রাম কাস্টমস কমিশনার মোহাম্মদ ফখরুল আলমের স্বাক্ষরটিও জাল। কমিশনারের নাম লেখা ছিল এম ফখরুল আলম। কয়েকটি শর্তসহ আবদুল গফুরকে অস্থায়ী ভিত্তিতে অফিস সহায়ক এবং মিলন চক্রবর্তী ও সাইফুল ইসলামকে অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে যোগদানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে নিয়োগপত্রে।

প্রতারণার শিকার তিন তরুণ জানান, চাকরি নিশ্চিত করতে তারা আনোয়ারুল ইসলাম নামে একজনকে প্রায় ৩৫ লাখ টাকা দিয়েছেন। চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের গেটেই খামে ভরে তাদের নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ২০১৮ সালের ১০ মে ইস্যু করা প্রবেশপত্রে কাস্টমসের তৎকালীন অতিরিক্ত কমিশনার ড. নাহিদা ফরিদীর স্বাক্ষর রয়েছে।

প্রবেশপত্রের নির্দেশনানুযায়ী, তারা নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় একটি বিদ্যালয়ে গত ২২ জুন নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেন। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ায় চক্রটি পুলিশ ভেরিফিকেশন, ডাক্তারি পরীক্ষাসহ সরকারি চাকরির নিয়মানুযায়ী সবকিছুই সম্পন্ন করা হয়।

এদিকে চক্রের মূল হোতা আনোয়ারুল ইসলামের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন প্রতারণার শিকার তিন তরুণ। এ বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে চিঠি দিচ্ছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে চট্টগ্রাম কাস্টমসের অতিরিক্ত কমিশনার আকবর হোসেন বলেন, ‘প্রতারকের খপ্পরে পড়ে তিন তরুণ ভুয়া নিয়োগপত্র নিয়ে কাস্টমসে যোগ দিতে এসেছিল। তাদের নিয়োগপত্রে কমিশনারের সই জাল। তারা লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। আমরা প্রতারকদের চিহ্নিত করতে চেষ্টা করছি।’

আর/০৮:১৪/১০ সেপ্টেম্বর

চট্টগ্রাম

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে