Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৩ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-০৭-২০১৯

আবুল হায়াত : সুনিপুণ এক শিল্পী

আবুল হায়াত : সুনিপুণ এক শিল্পী

ঢাকা, ৭ সেপ্টেম্বর- স্বাধীনতাপরবর্তী বাংলাদেশ যে কয়টি ক্ষেত্রে খুব দ্রুত উন্নত ও আধুনিক হয়েছিল, তার মধ্যে টিভি নাটক অন্যতম। এর পেছনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন সে সময়ের বেশ কয়েকজন শক্তিমান অভিনেতা। তাদেরই একজন আবুল হায়াত। সত্তর দশক থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত তার অভিনয়ের জাদু মুগ্ধ করে রেখেছে দর্শকদের।

আজ এই গুণী অভিনেতার ৭৬তম জন্মদিন। বাংলা ১৩৫১ সালের ২৩ ভাদ্র ভারতের মুর্শিদাবাদে মো. আবদুস সালাম ও শামসুন্নাহার বেগমের ঘর আলোকিত করে পৃথিবীর বুকে জন্ম নেন আবুল হায়াত। মুর্শিদাবাদের সেই আবুল হায়াতই অভিনয় দিয়ে এ দেশের নাট্যাঙ্গনকে সমৃদ্ধ করেছেন। দেশ-বিদেশে বাংলা ভাষার নাটককে করেছেন সমাদৃত।

একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনেতা, নাট্যকার ও নির্দেশক আবুল হায়াতের ৭৫তম জয়ন্তীতে সংস্কৃতিসহ দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের ১০০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির লেখা নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে ‘সার্থক জনম তোমার হে শিল্পী সুনিপুণ’। বইটিতে যারা আবুল হায়াতকে নিয়ে লিখেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম সৈয়দ হাসান ইমাম, আতাউর রহমান, আলী যাকের, আসাদুজ্জামান নূর, সুবর্ণা মুস্তাফা, সুলতানা কামাল, রবিউল হুসাইন, বিপাশা হায়াত, তৌকীর আহমেদ, শাহেদ শরীফ খান, অপূর্ব, সজল, তিশা, সকাল আহমেদ প্রমুখ। বইটি সম্পাদনা করেছেন জিয়াউল হাসান কিসলু। প্রকাশ করেছে প্রিয় বাংলা প্রকাশন।

অভিনয় শিল্পী সংঘ ও নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের যৌথ উদ্যোগে আজ আবুল হায়াতকে সম্মাননা জানানোরও কথা ছিল। কিন্তু জরুরি কাজে স্ত্রী শিরীন হায়াতকে নিয়ে ব্যাংককে যেতে হয়েছে বিধায় আপাতত অনুষ্ঠানটি করা হচ্ছে না। জন্মদিন প্রসঙ্গে আবুল হায়াত বলেন, ‘দেখতে দেখতে জীবনের দীর্ঘ একটা সময় পেরিয়ে এসেছি। জীবনে যা কিছু অর্জন, তা নিয়েই আমি সন্তুষ্ট। আমার স্ত্রী শিরীন, দুই সন্তান বিপাশা ও নাতাশা, দুই মেয়ের জামাই তৌকীর ও শাহেদ এবং তাদের সন্তানÑ এ নিয়েই আমার সুখের পৃথিবী। সবার দোয়া, ভালোবাসার মধ্য দিয়েই বাকিটা জীবন পার করে দিতে চাই।’

পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ার সময়ই আবুল হায়াত প্রথম মঞ্চ নাটক ‘টিপু সুলতান’-এ অভিনয় করেন। নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের হয়ে মঞ্চে তার প্রথম নাটক আতাউর রহমানের নির্দেশনায় ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ’। টিভিতে প্রথম নাটক জিয়া হায়দারের প্রযোজনায় ‘ইডিপাস’। প্রথম বিজ্ঞাপন কিউট টুথপেস্টের। মঞ্চে নির্দেশিত তার প্রথম নাটক ‘আগন্তুক’ এবং টিভিতে ‘হারজিৎ’। প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র ঋত্বিক কুমার ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’। ১৯৭৪ সালে আলী যাকেরের নির্দেশনায় মঞ্চে ‘বাকী ইতিহাস’ নাটকে অভিনয় করে তিনি ‘সিকোয়েন্স অ্যাওয়ার্ড ফর ইন্ট্রুডিউসিং ন্যাচারালিস্টিক অ্যাক্টিং অন বাংলাদেশ স্টেজ’ অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়ে ইতিহাস রচনা করেছেন। এটি বাংলাদেশে দর্শনীর বিনিময়ে প্রথম মঞ্চ নাটক।

আর/০৮:১৪/০৭ সেপ্টেম্বর

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে