Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-০২-২০১৩

ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন কার্যালয় ভাংচুর


	ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন কার্যালয় ভাংচুর

ময়মনসিংহ, ০২ অক্টোবর- ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন কার্যালয়ে স্বাচিপ সমর্থকরা হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও তছনছ করেছে। এর আগে নতুন সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ হাবিবুল্লাহকে অফিস থেকে বের করে দিয়ে তার কক্ষে তালা লাগিয়ে দেয় হামলাকারীরা। আজ বুধবার সকাল ১০টার দিকে ভাংচুর শেষে হামলাকারীরা জয়বাংলা স্লোগান দিয়ে মাইক্রোবাস যোগে পালিয়ে যায়। এসময় হামলাকারীদের সঙ্গে গাড়িতে করে চলে যান সদ্য বিদায়ী সিভিল সার্জন ডা. সঞ্জীব চক্রবর্তী। ঘটনার পর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নতুন সিভিল সার্জনকে প্রত্যাহার দাবিতে বহিরাগতদের নিয়ে স্বাচিপ সমর্থকরা এ হামলা চালায়।
স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার সকাল ১০ টার সময় সাবেক সিভিল সার্জন ডা. সঞ্জীব চক্রবর্তীর কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেন নতুন সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ হাবিবুল্লাহ। এসময় দুটি মাইক্রোবাস যোগে আসা ১৫-২০ জনের একটি দল অতর্কিতভাবে সিভিল সার্জনের কক্ষে ঢুকে হামলা চালিয়ে আসববাপত্র ভাংচুর ও কাগজপত্র তছনছ শুরু করে। এক পর্যায়ে নতুন সিভিল সার্জনকে অফিস থেকে বের করে দিয়ে তার কক্ষে তালা লাগিয়ে দেয় হামলাকারীরা। ভাংচুর শেষে পালিযে যাওয়ার সময় সদ্য বিদায়ী সিভিল সার্জন হামলাকারীদের মাইক্রোবাসে করে সিভিল সার্জন কার্যালয় ত্যাগ করেন। নতুন সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ হাবিবুল্লাহ অভিযোগ করে জানান, সদ্য বিদায়ী সিভিল সার্জনের ইন্ধনে বহিরাগতদের নিয়ে স্বাচীপ সমর্থকরা এ হামলা চালায। ঘটনার পর সিভিল সার্জন কার্যালযে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ১৮ সেপ্টেম্বর মন্ত্রণালয় এক আদেশে ডা. সৈয়দ হাবিবল্লাহকে ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ও ময়মনসিংহের সিভিল সার্জন ডা. সঞ্জীব চক্রবর্তীকে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন হিসেবে বদলী করে। গত ২২ সেপ্টেম্বর স্বাচীপ নেতাদের বাধার মুখে ডা. সৈয়দ হাবিবুল্লাহ ময়মনসিংহে যোগদান করতে না পেরে স্বাস্থ্য বিভাগের ঢাকা বিভাগের পরিচালকের কাছে যোগদান পত্র দেন। এসময় দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ায় গত ১ অক্টোবর  মন্ত্রণালয় অপর এক আদেশে ডা. সঞ্জীবকে ষ্ট্যান্ড রিলিজ করে পদাবনতি দিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ওএসডি করেন। এ আদেশের পর বুধবার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার সময় এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। স্বাচীপের একটি সূত্র জানায, গত ১৯৯৮ সালে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কুৎসা রটনার লিফলেটসহ হাতে নাতে গ্রেফতার হন ডা. সৈয়দ হাবিবুলাহ। পরবর্তীতে আদালত থেকে অব্যাহতি পাওয়ার পর বিএনপি জামায়াত জোট সরকার মেয়াদে ডা. সৈয়দ হাবিবুল্লাহ ময়মনসিংহ জেলার রিজার্ভ স্টোর ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্টোর ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ তিনি গাজীপুরের সিভিল সার্জন ছিলেন।

ময়মনসিংহ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে