Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৬ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-২৪-২০১৯

আবেগীয় স্ট্যাটাস দিয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

আবেগীয় স্ট্যাটাস দিয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

ময়মনসিংহ, ২৪ আগস্ট- প্রেম, ভালোবাসা মাঝে মাঝে সত্যিই অন্ধ করে দেয় মানুষকে। তাইতো প্রেম মানে না কোন বয়স, কোন নিয়ম। সমাজ যতই বাঁকা চোখে তাকাক, যতই কটু কথা শোনাক না কেন, প্রেমের ক্ষেত্রে কিন্তু কোনও কিছুই বাধা মানে না।

‘প্রেম মানে না কোন বাধা, জাত কি বেজাত’- শত শত বছর ধরে চলে আসা এমন বাণীর বাস্তব প্রমাণ মিলল ময়মনসিংহের ভালুকায়।

আর্থিকভাবে গরিব ছাত্রের সাথে প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেয়ায় পরিবারের সাথে অভিমান করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নবম শ্রেণীর এক মেধাবী ছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন।

নিহত ছাত্রীর নাম মারিয়া আফরোজ সুইটি (১৪)। সে উপজেলার পুরুড়া গ্রামের তেতুলীয়া পাড়ার কুয়েত প্রবাসী মোতাহার হোসেন সবুজের কিশোরী মেয়ে এবং ভরাডোবা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) সকালে বাড়ির পাশে তাকে দাফন করা হয়।

পুলিশ, নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুইটির সাথে দেড় বছর ধরে একই গ্রামের তাজুল ইসলাম তাজেলের কলেজ পড়ূয়া ছেলে কবির আহমেদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সুইটির বাবা মা তার মেয়ের এই প্রেমের সম্পর্ক মেনে নেননি। ছেলে পক্ষ বিয়ের জন্য মেয়ের বাবার বাড়িতে লোক পাঠালে ছেলে গরিব হওয়ায় বিয়ে দিবেন না বলে না করে দেয়া হয়। এ নিয়ে গত এক বছরে দুই পরিবারের মাঝে বেশ কয়েক দফা আলোচনাও হয়। কিন্তু মেয়ে পক্ষ ঘটনাটি কোনোভাবেই মেনে না নেয়ায় গত বুধবার সুইটি ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন।

স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, ‘আমাকে বুঝার ট্রাই তোমরা কোনদিন করোনাই……যেইদিন আমি তোমাদের ছেড়ে চলে যাবো অচিনপুর তখন তোমরা আমাকে বুঝবা আমি কি ছিলাম, তোমাদের জন্য তখন চাইলেও কেউ আমাকে ফিরে পাবে না, বাই’।

এরপর গত বৃহস্পতিবার সকালে সুইটি স্কুলে আসেন এবং দুপুরের বিরতির সময় তিনি ভালুকা সদরে গিয়ে ইঁদুর মারার বিষ কিনে খেয়ে বাসে চড়ে বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু বাস থেকে ভরাডোবা বাসস্যান্ড নামার পর তিনি অচেতন হয়ে মাটিতে পরে যান। এসময় স্থানীয় লোকজন তাকে ভালুকা ৫০ শয্যা সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ময়মনসিংহ মেডক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। ঘটনার রাতেই তিনি হাসপাতালে মারা যান।

সুইটির চাচা আজিজুল হক সুজন জানান, এক বছর একই গ্রামের কবির নামে কলেজ পড়ুয়া এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে ওই সম্পর্ক ভেঙে গেছে।

উপজেলার ধলিয়া স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র ও সুইটির প্রেমিক কবির আহমেদ সুইটির সাথে তার প্রেমের সম্পর্কের কথা স্বীকার করে বলেন, আমরা গরিব বলে আমার কাছে সুইটির পরিবার বিয়ে দিবে না বলে জানায়। তাই সুইটির সাথে অনেক দিন ধরে আমার যোগাযোগ নেই।

ভরাডোবা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুর হক জানান, ঘটনাটি আমরা পরে শুনেছি।

ভালুকা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, স্কুলছাত্রীর আত্মহ্যার পর ময়না তদন্ত শেষে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। পরে তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ
এনইউ / ২৪ আগস্ট

ময়মনসিংহ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে