Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ২ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-১৯-২০১৯

পানিবন্দী ২০০ মানুষের মানবেতর জীবনযাপন

মোঃ আসাদুজ্জামান


পানিবন্দী ২০০ মানুষের মানবেতর জীবনযাপন

বরগুনা , ১৯ আগস্ট - বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের পূর্ব বুড়িরচর পায়রা নদী পাড়ের বেড়ী বাঁধের উপরে সিইআইপি-০১ প্রকল্পের আওতায় চায়না ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিকো স্লুইজ নির্মাণে ৪ শ ফুট বেড়ী বাঁধ কেটে ফেলায় বেড়ী বাঁধ সংলগ্ন অনিন্দিতা আশ্রয়ণ প্রকল্পে জোয়ারের পানিতে ৪০টি পরিবারের প্রায় ২ শ মানুষ পানিবন্দী হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

চায়না ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিকো গ্রাম রক্ষা বাঁধ কেটে মাটি দ্বারা স্লুইজের পার্শ্ব প্রাচীর ভরাট দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন আশ্রয়ণের একাধিক বাসিন্দা।

সরেজমিনে দেখা যায়, আশ্রয়ণ সংলগ্ন বাঁধ না থাকায় পায়রা নদীর জোয়ারের পানিতে আশ্রয়ণের ঘরগুলো মেঝে পর্যন্ত তলিয়ে যায়। এ অবস্থায় শিশুসহ নারী পুরুষ সবাই দিশাহারা।

আশ্রয়নের বাসিন্দা কহিনুর বেগম জানান, পায়রা নদীর পানিতে আমরা ভাসছি। ছোট বাচ্চাদের কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে রাত কাটাই। ঘরে পানি ওঠায় বসার জায়গাটুকু পর্যন্ত থাকে না। বাথরুম, পাকঘর পানিতে তলিয়ে যায়। হাঁস, মুরগি, গরু, ছাগল কোথায় রাখব? আশ্রয়নের চারদিকে শুধু পানি। আমরা গরীব, তাই আমাদের দুঃখ দুর্দশা কারও চোখে পড়ে না।

অনিন্দিতা আশ্রয়ণ প্রকল্পের সভাপতি সেলিম মিয়া অভিযোগ করে বলেন, চায়নার সিকো কোম্পানী আশ্রয়ণ সংলগ্ন বেড়ী বাঁধ কেটে ফেলায় জোয়ারের পানিতে আশ্রয়ণ সম্পূর্ণ তলিয়ে যায়। আমরা সমবায় সমিতি লিঃ এর আওতায় সকল সদস্যরা চাঁদা তুলে আশ্রয়ণের একটি পুকুরে মাছের চাষ করি। সেই পুকুরের সব মাছ জোয়ারের পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। টয়লেট অকেজো, মহিলারা টয়লেটে যেতে পারছে না। প্রতি জোয়ারে পাকঘর পানিতে তলিয়ে গেলে রান্না-বান্না বন্ধ হয়ে যায়। কি খেয়ে আমরা বাঁচব?

জানতে চাইলে সিইআইপি-০১ প্রকল্পের সিএসই গিয়াস উদ্দিন জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। ঘটনাস্থলে আমাদের প্রতিনিধি গিয়েছে। অবিলম্বে এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

এ বিষয়ে বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, ইতোমধ্যেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, তারা অল্প সময়ের মধ্যেই ওখানে যে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে সেটি নিরসন করবে। আমরা আশা করি এক সপ্তাহের মধ্যেই আশ্রয়ণ প্রকল্পের সকল বাসিন্দা সুষ্ঠু ও সুন্দর ভাবে বসবাস করতে পারবে।

সূত্র :  বিডি২৪লাইভ
এন এইচ, ১৯ আগস্ট.

বরগুনা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে